ইউজার লগইন

গুপী দাদা তোমারে সেলাম

গুপী গায়েন

মোরা সেই ভাষাতেই করি গান
রাজা শোনো ভরে মন প্রাণ
এ যে সুরেরই ভাষা
ছন্দেরই ভাষা
তালেরই ভাষা
আনন্দেরই ভাষা
ভাষা এমন কথা বলে
বোঝে রে সকলে
উঁচা নীচা বড় সমান
মোরা এই ভাষাতেই করি গান
মহারাজা তোমারে সেলাম

এই আনন্দের গান দিয়ে স্তব্ধ করে দিয়েছেন হাল্লা রাজার সৈন্যদের, থামিয়ে দিয়েছেন যুদ্ধ। সুরের সরলতায় আনন্দ ছড়িয়েছেন, হিংসা ভুলিয়েছেন, জয় করে নিয়েছেন শুন্ডি রাজার মন। আমলকী গ্রামের কানু কাইনের ছেলে গুপী কাইন, যিনি গুপী গায়েন নাম নিয়েছিলেন গানের সুবাদে, সেই গুপী আর নেই। বাঘাটা আগেই গিয়েছিলো, গুপীটাও গেলো।

গুপী গায়েনের পর্দাহীন নাম তপেন চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু এই নামটি নয়, গুপী গায়েন নামেই তিনি বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে। শুনিয়ে যাবেন আনন্দের গান। যেভাবে শুনিয়েছিলেন হীরক রাজার দেশেতে-

http://www.youtube.com/watch?v=514FGNNZLow

বয়স হয়েছিলো বাহাত্তর বছর। প্রথম জীবনে ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার। রাজস্থানে চাকরি করতেন। সেটা ছেড়ে কলকাতায় আসেন। কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় পরিচয় করিয়ে দেন সত্যজিত রায়ের সঙ্গে। সত্যজিত রায় চিনতে ভুল করেননি। গুপী গায়েন হিসেবে নিয়ে নেন তপেনকে। গুপী গায়েন বাঘা বায়েনের পর হীরক রাজার দেশে। আরেকটা ক্লাসিক। সত্যজিত পুত্র সন্দীপ রায়ের 'গুপী বাঘা ফিরে এলো'তেও তিনি ছিলেন।

গানের জন্যই গুপী বিখ্যাত। কিন্তু গানগুলো তাঁর গাওয়া না। সবগুলো গেয়েছেন অনুপ ঘোষাল। এমনকী গুপী গায়েনের জন্য অনুপ ঘোষাল গায়কীতেও এনেছিলেন পরিবর্তন।

তবু আমাদের কাছে অনুপ ঘোষাল না, তপেন চট্টোপাধ্যায় না, আমাদের মনমাঝে বেঁচে থাকেন হাসিখুশী গুপী গায়েন। যিনি সর্বদা আনন্দের গীত গান। কিন্তু তাঁর মৃত্যুর খবরে একটুও আনন্দ ছিলো না।

২।
একই দিনে দু দু'টো মন খারাপ করা খবর। চলে গেছেন বেবী ইসলামও। ঋত্বিক ঘটকের তিতাস একটি নদীর নাম ছবির চিত্রগ্রাহক বেবী ইসলাম। চারবারের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পাওয়া বেবী ইসলাম। 'তানহা' (উর্দু), 'চরিত্রহীন' এসব ছবির পরিচালক বেবী ইসলাম। তিনিও আজ নেই আমাদের মাঝে।

পোস্টটি ২০ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

নজরুল ইসলাম's picture


আহা গুপী গায়েন... সিনেমাটা আবার দেখতে ইচ্ছা করতেছে

টুটুল's picture


আহা ... কত স্মৃতী ... কামেল লোক গুলো চলে যাচ্ছে ধীরে ধীরে... Sad

শওকত মাসুম's picture


আমি কালকেই ভাবছিলাম এটা নিয়ে একটা পোস্ট আসা উচিৎ।
গুপী আর বাঘা কেউই রইলো না।

আরিফ বুলবুল's picture


আমাদের মনমাঝে বেঁচে থাকেন হাসিখুশী গুপী গায়েন। যিনি সর্বদা আনন্দের গীত গান। কিন্তু তাঁর মৃত্যুর খবরে একটুও আনন্দ ছিলো না।

একই দিনে দু দু'টো মন খারাপ করা খবর। চলে গেছেন বেবী ইসলামও।

আমি মৃত্যু-সংবাদ সহ্য করতে পারি না। চলে যাওয়া মেনে নিতে পারি না। তারপরেও সময়ের কাছে বারবার পরাজিত হতে হয়। আল মাহমুদের একটা কবিতা খুব মনে পড়ে আমার--

বাতাসের ফেনা
----আল মাহমুদ----
কিছুই থাকে না দেখো, পত্র পুষ্প গ্রামের বৃদ্ধরা
নদীর নাচের ভঙ্গি, পিতলের ঘড়া আর হুকোর আগুন
উঠতি মেয়ের ঝাঁক একে একে কমে আসে ইলিশের
মৌসুমের মতো
হাওয়ায় হলুদ পাতা বৃষ্টিহীন মাটিতে প্রান্তরে
শব্দ করে ঝরে যায়। ভিনদেশী হাঁসেরাও যায়
তাদের শরীর যেন অর্বুদ বুদ্বুদ
আকাশের নীল কটোরায়।

কিছুই থাকেনা কেন? করোগেট, ছন কিংবা মাটির দেয়াল
গায়ের অক্ষয় বট উপড়ে যায় চাটগাঁর দারুণ তুফানে
চিড় খায় পলেস্তরা, বিশ্বাসের মতন বিশাল
হুড়মুড় শব্দে অবশেষে
ধসে পড়ে আমাদের পাড়ার মসজিদ!

চড়ুইয়ের বাসা, প্রেম, লতাপাতা, বইয়ের মলাট।
দুমড়ে মুচড়ে খসে পড়ে। মেঘনার জলের কামড়ে
কাঁপতে থাকে ফসলের আদিগন্ত সবুজ চিৎকার
ভাসে ঘর, ঘড়া-কলসী, গরুর গোয়াল
বুবুর স্নেহের মতো ডুবে যায় ফুল তোলা পুরোনো বালিশ।
বাসস্থান অতঃপর অবশিষ্ট কিছুই থাকে না
জলপ্রিয় পাখিগুলো উড়ে উড়ে ঠোঁট থেকে মুছে ফেলে
বাতাসের ফেনা।/

বুবুর স্নেহের মতো ডুবে যায় ফুল তোলা পুরোনো বালিশ. . . . .

তানবীরা's picture


যেখানেই থাকুন তারা, ভালো থাকুন

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

সাম্প্রতিক মন্তব্য