ইউজার লগইন

এম্নেই ১১

গতরাত থেকে অনেককিছু মিলায়ে মনটা একটু এলোমেলো। অবসাদ বলে একটা শব্দ আছে বাংলায়, সেটা ঠিক ক্লান্তি না, ক্লান্তির থেকে আলাদা কিছু। রাগ, দুঃখ এইসব মোটাদাগের অনুভুতিগুলা বাদে অন্য যেসব অনুভূতির কথা বইতে লেখা থাকে, আমার ধারণা তার বেশিরভাগই আমি বুঝিনা। যেইরকম অবসাদ শব্দটা আসলে ঠিক কোন অনুভূতিটা বুঝায় আমি জানিনা। তবে আমার মাঝে মাঝে ক্লান্তি+কিছু-করতে-ইচ্ছা-না-করা+মন-এলোমেলো+উদাসীনতা সব মিলানো কিছু একটা হয়, আমি সেইটাকেই ভাবি অবসাদ। তবে সবথেকে দুর্বোধ্য হইলো ক্রোধ। ক্রোধ জিনিষটা ছোটবেলায় পড়তাম মহাভারত টাইপ বইতে। এই কারণেই মনে হয় আমি নিজের মধ্যে কখনো ক্রোধ অনুভব করিনাই, কারণ ক্রোধ জন্মাবার মত শক্তি আমার দুর্বল মনের নাই, খুব বেশি হলে 'রাগে গা জ্বলে যেতে' পারে, কিংবা 'প্রচন্ড রাগে অন্ধ হয়ে' যাওয়াও সম্ভব। ক্রোধ, আক্রোশ এইগুলা সব দেবতা আর বড় বড় লোকেদের ব্যাপার, আমার এইসব বিরাট বিরাট ব্যাপার বোঝার কথা না।

কালকে রাত তিনটার দিকে একজন এই ব্লগের লিঙ্ক দিয়ে জিজ্ঞেস করলো, এইটা কি তোমার ব্লগ? দেখলাম অস্বীকার করার কোনো উপায় নাই কারণ এখানে লেখা অনেক ব্যাপার তার জানা। আমি হ্যা বলতেই সে বলল 'এইসব হাবিজাবি ক্যান লিখ?' আমি বললাম এইটা তো ডায়রি, হাবিজাবি-ই তো হবে। তার বক্তব্য এইটা ডায়রি নামের ভন্ডামি, কারণ আমি হাজারটা লোকে পড়বে এমন জায়গায় লিখতেছি, ডায়রি তো গোপন জিনিস। আমি রাত তিনটার স্বাভাবিক আগডুম বাগডুম তর্ক করলাম কিছুক্ষণ। কিন্তু আসলে ক্যানো লিখি ওপেন প্ল্যাটফর্মে, সেইটার কোনো যৌক্তিক উত্তর দিতে পারলাম না। এমন হইত যে আমি নতুন কোনো দৃষ্টিভঙ্গি যোগ করতেছি কোনকিছুতে, কিংবা সাহিত্য রচনার চেষ্টা করতেছি...কিন্তু দুইটার একটাও নিজে থেকে করতে আমার কোনো আগ্রহ নাই...আমি মানুষের লেখা পড়তেই পছন্দ করি, আর মাঝে মাঝে নিজের অস্থির লাগলে কিছু একটা লিখে ফেলা...এর বাইরে জগত্সংসারে অবদান রাখার মত কোনো মহান উদ্দেশ্য আমার নাই, আবার আমার নিজের কথা দুনিয়াকে জানাতে হবে এই তাড়নাও নাই। চিন্তার প্রক্রিয়া আমার খুবই খারাপ, মানুষ গুছায়ে চিন্তা করতে পারে, তারপর সেই গুছানো চিন্তা আরো গুছায়ে লিখেও ফেলতে পারে, আমি দুইটার একটাও পারিনা। তো ক্যানো লিখি এইখানে? বাংলায় লেখা শুরু করছিলাম যখন ফোনেটিক এর মজাটা পেয়ে গেলাম, আমার পিসিতে সারাজীবন বাংলা ফন্ট বেশ বড় বড় দেখায়, একেকটা কী টাইপ করি আর সেইটা ম্যাজিকের মত বড় বড় বাংলা অক্ষর হয়ে যায় এইটা দেখলে আমার এখনো ভিডিও গেইম খেলার মত উত্তেজনা হয়। সামহোয়ার-এ একটা ব্লগ ছিল অনেক আগের, সেইখানে পোস্ট লিখে নিজের পাতায় রেখে দিতাম প্রথম পাতায় না দিয়ে। অনেকদিন লেখা হয়নাই, একদিন দেখি ইউযারনেইম ভুলে গেছি। পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে সেটা পাওয়া যায়, ব্লগের নাম-ই যদি ভুলে যাই তাহলে সেটা আর খুঁজে পাওয়া যায়না। এইখানে অনেককাল পরে আবার বাংলায় লিখি, সেই ফন্ট দেখার আনন্দেই আসলে। প্রথম পাতায় না দিয়ে নিজের পাতায় রেখে দেয়ার সুযোগ থাকলে হয়ত সেইভাবেই লিখতাম আবার। কিন্তু এইখানে একদিন সেটা করে দেখি সাম্প্রতিক মন্তব্যে নতুন পোস্ট সগৌরবে বিদ্যমান। ব্লগস্পটে একটা ইংলিশ ব্লগ আছে যেই বেচারা অনেককাল ধরে আমার সঙ্গী, খুব কাছের দুইতিনজন ছাড়া ওটার খবর কেউ জানেনা। ঐটাতে আমি যা ইচ্ছা তাই লিখি, তবে সেইদিন হঠাৎ কি মনে হওয়াতে পুরানো কিছু লগ পড়লাম, দেখলাম আশ্চর্যজনকভাবে আমার শুরুর দিকের ব্লগ আর এখনকালের ব্লগের মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নাই। সেইকালেও একেকটা এন্ট্রি লিখতাম নিজেকে গালাগালি করতে, এখনো একেকটা এন্ট্রি লিখি নিজেকে গালাগালি করতে। গত পাঁচ বছরে আমার মানসিকতায় কোনো পরিবর্তন আসেনাই এইটা দেখে আমি একটু আতঙ্কিত। আমরা ধারণা আমার বাংলায় লেখা ব্লগগুলার সাথে ক্লাস নাইন/টেন-এ লেখা সেই ডায়রিগুলার অনেক মিল থাকবে। উপরে উপরে আমি যতই ভাব ধরিনা ক্যানো, আমার মনে হয়না আমি আসলে ১৭ বছরের পর আর একটুও বড় হইছি। নাহলে সেই ১৭ বছরে করা ভুলের মত ভুল কিভাবে করি এখনো আমি?

একটা ডুব দিব দুই মাসের জন্য, সেটার পরিকল্পনা করছিলাম আরো দুই মাস আগেই। জীবনের যেকোনো পরিকল্পনার মত এইটাও কাজ করেনাই। কিন্তু এবার কাজ করাতেই হবে। অকম্মার ঢেঁকি আমাকে দিয়ে কাজ করায় নিতে হবে একটা অনেক-কাজ-করে-ফেলবো ভাবওয়ালা আমাকে। কাজটা একবার শেষ হলে আমি স্বাধীন। পাহাড়ে চলে যাব তারপর। ছোটখাটো একটা চাকরি হলে আমার হয়ে যাবে। ঢাকা শহর নিজের জায়গা, কিন্তু মাঝে মাঝে নিজের জায়গার কাছ থেকে পালাতে হয় নিজের জন্যেই।

পোস্টটি ৫ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

মীর's picture


ভাই কুলি-মজুর কিছু লাগলে আওয়াজ দিয়েন। তানবীরা'পুকে অনেক দিন আগে বলসিলাম, বগুড়া যাওয়ার সময় গাইড লাগলে আওয়াজ দিতে। সে দেয় নাই, বেকার বসে বসে হাত-পাএ জঙ ধরে গেল।

তানবীরা's picture


নিজের নাই খাওনের ঠিক, তার আবার গাইড Crazy

লীনা দিলরুবা's picture


মাস্টার পিস একটা। এইটা বাঁধায় রাখি আগে তারপর জিগাই কই যাও? কেনে যাও? কার কাছে যাও? যদিও এসব প্রশ্নের উত্তর দেবার তোমার প্রয়োজন নাই আমিও অধিক কৌতুহল দেখাবোনা। বাট একটা কথা কইতে পারি- লেখার তুমিরে মাঝে মাঝে বুঝতে পারিনা কিন্তু চোখের সামনে যেই তুমি তারে বুঝতে পারি, ভালু পাই।

মীর's picture


আপনে মনে হয় দুইজন প্রায় একইরকম মাইনষের মধ্যে মিক্স-আপ করে ফেলতেছেন লীনা আপু Big smile
ব্যপার না, আমারো মাঝে মাঝে হয়।

জ্যোতি's picture


আমিও Big smile Tongue মজা

লীনা দিলরুবা's picture


মজা

মজা

এইখানে দুইটা ক্যান বলতে হবে।

মীর's picture


মজা
তারপরে এইখানে একটা ক্যান বলতে হবে।

জ্যোতি's picture


বাইরে স্নিগ্ধ বাতাস। যাই বারান্দায় বসি।
গুড নাইট বাচ্চারা।

লীনা দিলরুবা's picture



কইতে হবে এখানে দুইটা ক্যান Smile

১০

মাহবুব সুমন's picture


Puzzled

১১

নাজ's picture


চিন্তার প্রক্রিয়া আমার খুবই খারাপ, মানুষ গুছায়ে চিন্তা করতে পারে, তারপর সেই গুছানো চিন্তা আরো গুছায়ে লিখেও ফেলতে পারে, আমি দুইটার একটাও পারিনা।

আমিও পারি না। Sad

ঢাকা শহর নিজের জায়গা, কিন্তু মাঝে মাঝে নিজের জায়গার কাছ থেকে পালাতে হয় নিজের জন্যেই।

আপনার সব কর্মকান্ড আর সব ইচ্ছার সাথে আমার ইচ্ছা গুলোর এত্ত মিল কেন?
আগেই বলেছিলাম "আমার খুব ইচ্ছা হয় আপনার মত বিন্দাস ঘুরে বেরাই"। আর এখন এটাও বলেই যাই যে, আমিও মাঝে মাঝেই বলি, "এই ঢাকা শহর ছেড়ে যদি পালিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখতে পারতাম"

১২

তানবীরা's picture


আর মাঝে মাঝে নিজের অস্থির লাগলে কিছু একটা লিখে ফেলা...এর বাইরে জগত্সংসারে অবদান রাখার মত কোনো মহান উদ্দেশ্য আমার নাই, আবার আমার নিজের কথা দুনিয়াকে জানাতে হবে এই তাড়নাও নাই। চিন্তার প্রক্রিয়া আমার খুবই খারাপ, মানুষ গুছায়ে চিন্তা করতে পারে, তারপর সেই গুছানো চিন্তা আরো গুছায়ে লিখেও ফেলতে পারে, আমি দুইটার একটাও পারিনা

এটা আমার কপি রাইট

উপরে উপরে আমি যতই ভাব ধরিনা ক্যানো, আমার মনে হয়না আমি আসলে ১৭ বছরের পর আর একটুও বড় হইছি। নাহলে সেই ১৭ বছরে করা ভুলের মত ভুল কিভাবে করি এখনো আমি?

এটা অবশ্য আমি বলি না, আমারে সবাই বলে। আর কয়েকদিন পর মেয়েও বলবে। এমনিতেই সারাদিন বলে, দুষ্ট আম্মি

কিন্তু মাঝে মাঝে নিজের জায়গার কাছ থেকে পালাতে হয় নিজের জন্যেই।

আমিও তোমার সাথে পালাইতে চাই, প্লীজ। কেয়ামত সে কেয়ামত তাক Wink

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.