ইউজার লগইন

☻◐☺¿¿

13557_170909102286_101700882286_2614077_7899942_n.jpg
=====================================================
প্রতিদিনকার মতো এলার্ম ক্লকের কর্কশ শব্দে আজ ঘুম ভাঙ্গেনি। সূর্যের কোমল রশ্মি যখন কাঁচের জানালা ভেদ করে ঘরে ঢুকছিল, তখন কেনো যেন মনে হলো আজ আর বেলা করে বিছানা ছাড়া ঠিক হবে না। উঠে গিয়ে পাশের বারান্দায় দাঁড়াতেই মনে হলো টবে রাখা গাছগুলো বলছে আজ তাঁদের ভালো লাগছে। দোতলা থেকে নিচে তাকাতেই দেখলাম, ঘাসের উপর শিশির বিন্দুগুলোও আজ অন্যরকম। এক দৌড়ে গিয়ে আঙ্গিনার মাটির স্পর্শে পাগলপারা হয়ে গেলাম।

আমি তো খেয়ালই করিনি ডালিম গাছে বসে একটা বুলবুলি ডাকছে। দেয়াল ঘেঁষে দেবদারু গাছগুলো কেমন মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে, তারা ডালপালা নেড়ে আমাকে বলছে, ওগো সুকন্যা...আমরা তোমাকে ভালোবাসি, খুউউউউউব ভালোবাসি, ভীষণ ভালোবাসি......

ওই যে দখিনের নিমগাছটা...ফটকের বাইরে পলাশ, বকুল, কাঁঠালচাঁপা...ফটকের ভিতরে দেয়াল ঘেঁষে শিউলি, জারুল, সোনালু...তার পাশেই ঝিরঝিরি পাতার কনকচূড়া...এরা সবাই একই কথা বলছে, “ভালোবাসি...ভালোবাসি...”। শিউলি গাছটার পাশেই হাস্নাহেনার ঝাড়টা কেমন যেন মলিন দেখাচ্ছে। ওকে একটু আদর করে দিলাম। একে একে গন্ধরাজ, বেলী, কামিনী...সবার কাছে গেলাম। সবাইকে যতনে মমতায় ভরিয়ে দিলাম। ওরা ফিশফিশ করে ওদের অনুভূতিগুলো আমাকে শোনালো। সবশেষে যখন ঘরে উঠতে যাচ্ছিলাম, কে যেন আমাকে পেছন থেকে বললো... “আমি ছোট্ট বলে আমায় বুঝি ভালোবাসো না, আমাকে তো একটু আদর করে দিলে না...”। চেয়ে দেখলাম ছোট্ট রঙ্গন গাছটা।

রঙ্গনকে আদর দিয়ে ঘরে ঢুকতেই দেখি, মা চায়ের কাপ হাতে দাঁড়িয়ে আছে। চা হাতে নিয়ে ভাবলাম আজ এমন লাগছে কেনো? সবকিছু এত্ত সুন্দর কেনো? পুলকিত মনে পত্রিকা হাতে নিয়ে ভাবলাম, পত্রিকা খুললে এ পুলক নষ্ট হয়ে যাবে না তো...! কিন্তু না, এ পুলক নষ্ট হলো না, কারন আজ পত্রিকায় সব খবরই ভালো লাগছে। আজ হরতাল নেই, গতকাল থেকে দেশে কোনো মানুষ খুন হয়নি, হয়নি কোনো সড়ক দুর্ঘটনা, লাঞ্ছিত হয়নি কোনো নারী, আজ থেকে দেশে কোনো বেকার থাকবে না। সব-সবই ভালো। এমন লাগছে কেনো আজ!? আজ কি বিশেষ কোনো দিন?

ভার্সিটির জন্য জলদি দলদি তৈরি হলাম, আজ ক্লাস মিস করা যাবে না। হরতালের জন্য দুইদিন ক্লাস করা হয়নি। যখন বের হবো, তখন দেখলাম বাবা-মার মুখে প্রশান্তির হাসি...প্রতিদিনের মতো বলছে না...”সাবধানে যাস!” শুধু টেনশনমুক্ত একটি মিষ্টি হাসি। মনে হলো আজ মা-বাবাকে সালাম করেই দিন শুরু করি। বের হয়ে রাস্তায় দেখলাম, আজ শহরটা স্বপ্নের মতো পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন আর ছিমছাম। শহরের ব্যস্ততম সড়কে এসে দেখি... আজ কোনো জ্যাম নেই, গাড়িগুলোও চলছে ট্রাফিক আইন মেনে। গাড়ির কালো ধোঁয়াহীন পরিবেশে আজ আর গাড়িতে উঠতে ইচ্ছে করছে না...কিছুক্ষণ হাঁটলে মন্দ হয়না। আজ একা রাস্তায় হাঁটতে ভয় লাগছে না। একটু এগুতেই দেখলাম, এক ট্রাফিক পুলিশ এক বৃদ্ধাকে রাস্তা পাড় করে দিচ্ছে। রাস্তা পাড় হাওয়া শেষ হলে, বৃদ্ধা ওই ট্রাফিকের মাথায় হাত রেখে তাকে দোয়া করলেন। তখন দেখলাম বৃদ্ধার চোখে জল, কেন যেন মনে হচ্ছে...আজ এ জল স্বাভাবিক, কারণ এ জল যে আনন্দের।

ভার্সিটিতে পৌঁছেই দেখলাম কোনো দেয়ালেই কোনো রাজনৈতিক দলের কুৎসিত লিখন নেই, আজ পরিবেশ খুব্বই শান্ত। নিরিবিলি পরিবেশে কেউবা পড়ছে, কেউবা বন্ধুর সাথে গল্প করছে। ফেমাস জুটি চৈতি-সুমনের ঝগড়ার শব্দও শুনতে পাচ্ছি না। ঝগড়া তাহলে মিটলো!! ক্লাসে গিয়ে বসার পরই যথাসময়ে ক্লাস শুরু হলো...আজ সবাই ক্লাসে উপস্থিত...আমাদের সবচেয়ে রুগ্ন স্যারও আজ ভালো পড়াচ্ছেন, তাঁর মুখেও প্রশান্তির হাসি।

ক্লাস শেষে দেখলাম একটি ব্যানার নিয়ে কয়েকজন ছাত্র এগিয়ে চলছে, যাতে লিখা... “নতুন বাংলাদেশ, স্বপ্নের বাংলাদেশ”। বুঝতে বাকি রইলো না, এটা আজকের দিনকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য আনন্দ মিছিল। আজ কেউ মিছিলে যাওয়ার জন্য বাধ্য করছে না, কিন্তু আজ যে আমার যেতে ইচ্ছে করছে! পেছনে তাকিয়ে দেখি পরিচিত সবাই আছে মিছিলে...সবাই সারিবদ্ধভাবে হাঁটছি... হঠাৎ এলার্ম ক্লকের কর্কশ শব্দে চমকে উঠে দেখি ঘড়িতে বেলা দশটা। আজও ক্লাসটা মিস হলো............
=====================================================

পোস্টটি ১০ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

রায়েহাত শুভ's picture


ভাবছিলাম কমেন্ট করবো দারূণ স্বপ্নতো। কিন্ত্য শেষ লাইনে আইসা আমার কমেন্টের দশটা বাজায়া দিলেন Tongue

অফটপিকঃ- মেলায় আইসা মুর্গা হন্নাই কেন? Stare

লাবণী's picture


হাহা! ভাগ্যিস শেষ লাইনটা লিখেছিলাম! Smile
=============================
আম্মাআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআআ------(হাত-পা ছড়িয়ে কান্না!!)

মেলার কথা কেন মনে করিয়ে দিলেন? টিসু
পারিবারিক-সামাজিক-রাজনৈতিক-জাতীয়-আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বাধা বিপত্তির সম্মুখীন হয়ে আমার মেলায় যাওয়ার স্বপ্ন চুরমার হয়ে গেল!! ইচ্ছে করছে কলা গাছে ফাঁস লাগাই!!! Sad Sad
==============================

গ্রিফিন's picture


খাইছে আমারে। আপ্নের মেলা যাওন ঠেকাইতে এতগুলান পক্ষ সক্রিয় আছিলো? Steve

লাবণী's picture


আর কইয়েন না গ্রিফিন ভাই! কত্ত কত্ত প্ল্যান যে করেছিলাম! ঢাকায় যাবো...মেলায় যাবো...ম্যুরাল কিনবো...বসন্তে বাসন্তী হবো...ভ্যালেন্টাইন'স ডে তে লালে লাল হবো... Sad! কত শপিং টপিং করলাম! স-ব মাটি...সামান্য একটা কারণে! Sad

রায়েহাত শুভ's picture


ইয়ে মানে গানপাগলায় সেদিন দেখলাম একখানা গান শেয়ার দিসেন Wink

লাবণী's picture


উরি বাবা! কেমনে চিনলেন!!??? Nail Biting

রাসেল আশরাফ's picture


পোস্টের শিরোনাম কী? আমার এখানে এইসব কী দেখাছে?
=================
এতো দিন কই ছিলেন?
=================
শুভ ভাই এর কথার জবাব দেন? মুরগা হন নাই কেন?
=================
আর কয়দিন?? Big smile Big smile

লাবণী's picture


স্বপ্ন তো শিরোনামহীন! তাই আপনার ওখানেও শিরোনামহীন কিছু দেখাচ্ছে! Smile
=====================
এতদিন ছিলাম আগের মতোই, তবে পিসির সামনে বসার সময়টা হয়ে উঠেনি! Sad
=====================
আবার!!! আম্মাআআআআআআআআআআআআআআআ------ :"(
=====================
মেলায় কেন, ঢাকায় যাওয়া-ই আর হচ্ছে না আপাতত!! Sad Sad : ( Sad

রাসেল আশরাফ's picture


শেষের প্রশ্নের উত্তর পাইলাম না.... Wink মানে এবির লোকজনের দাওয়াত কবে? Big smile

১০

লাবণী's picture


হায় আল্লাহ্‌! কিসের দাওয়াত!??!! Shock

১১

রাসেল আশরাফ's picture


Stare Stare Stare Stare

১২

লাবণী's picture


স্যরি! বুঝতে হবে তো কিসের দাওয়াত! আমার মাথা তো টিউব লাইট Sad

১৩

স্বপ্নের ফেরীওয়ালা's picture


শুনলাম এবি'র লুকজনের আপ্যায়নের জন্য আপ্নে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নে টাকা পাঠাচ্ছেন...

~

১৪

লাবণী's picture


এই অভাবী মেয়েটার এত বড় সর্বনাশ কে করলো ফেরীওয়ালা ভাই?? এখন কে আমায় আশা দেবে? কে আমায় ভরসা দেবে?
কেউ কি নেই যে কিছু টাকা আমায় ধার দেবে এবির লোকজনের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য!? Sad

১৫

রাসেল আশরাফ's picture


লাবণী | ফেব্রুয়ারী ৭, ২০১২ - ৩:২২ অপরাহ্ন

আমার শ্বশুর বাবা পারলে এখনই আমাকে নিয়ে যায়! কিন্তু আমার বর মশাই---
আমার খুব ইচ্ছে ছিল ফেব্রুয়ারীতে বিয়ে করার! ঠিক করেছিলামও ১৪ই ফেব্রুয়ারী! বর মশাইয়ের তাড়া নেই! তার নাকি ম্যালা প্রিপারেশন লাগবে!!
দোয়া কইরো বু------

আর কিছু কমু না Crazy মাইর

১৬

লাবণী's picture


আরে! রারাফ ভাই তো মারাত্মক চেতছেন! ঝাড়ির সাথে মাইরও দিলেন? Sad
=================================
আমার শুভ বিবাহের কথা বলছিলেন??!! ভাইরে...ক্লাস এইট থেকে সে আমারে বুক কইরা রাখছে! প্রায় দশ বছর হতে চলল! বিয়েটা ঘটা করে করতে হবে না!! তাই প্রিপারেশন নিতে একটু সময় তো লাগবেই Smile Shy

১৭

জোনাকি's picture


অরেএএএএএএএ! এমুন দেশ হইলে কত্ত ভালই না হইতো । লেখা অনেক ভালো লাগেছে। Laughing out loud

১৮

লাবণী's picture


থ্যাঙ্কুশ জোনাকি বু Smile !!
বু-টা কেমন আছে?

১৯

জোনাকি's picture


বু-টা ভালো ছিল এখন মন খারাপে আছে Sad
লাভলি বু দেখি ফটুক দিছেন ! সুন্দর ! Big smile

২০

লাবণী's picture


বু-টার মন কি ভালো হয়েছে?
================
থ্যাঙ্কুশ বুউউউউ Love

২১

জ্যোতি's picture


আমি তো ভাবলাম, বাহ্ কি মিষ্টি একটা দিন কাটলো আপনার কিন্তু শেষ লাইনে আইসা তো আমার ভাবনা উষ্টা খেয়ে মাটিত পড়ে গেলো।

২২

লাবণী's picture


হে হে! আপনার ভাবনা উষ্টা খেয়ে আঘাত টাঘাত পায়নি তো!????
পায়লে আমার দোষ নাই Sad

২৩

মীর's picture


জোনাকির সঙ্গে একমত। আপনার চেহারা সুন্দর!

২৪

লাবণী's picture


হিহিহি! থ্যাঙ্কুশ মীর মামু :Cool

২৫

তানবীরা's picture


স্বপ্ন দেখার নাই সীমানা দেখে যাবো তাইইইইই Puzzled

২৬

লাবণী's picture


তাইতো আমিও স্বপ্ন দেখে যাই, তানবীরাপু ------ Big Hug

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

লাবণী's picture

নিজের সম্পর্কে

রঙিন রোদের জ্বালাতন সহ্য করা আশ্রয়হীন পাখির মতো শুধু ডানায় ভর করে দিগন্তের পর দিগন্ত পাড়ি দিয়ে একসময় আমরা হয়ে পড়ি পথহীন দিকভ্রান্ত পথিক। পায়ের তলায় এসে মাথা কুটতে থাকে পথেরা। ক্লান্ত জীবনে নিঃশব্দের মতো সন্ধ্যা নামে...রাত আসে। জোৎস্না রাতের উজ্জ্বলতায় চেয়ে দেখি বৃষ্টি ভেজা চতুর্দশীর মতো তারায় সেজে আছে আকাশ। শুধু ভাবি...সুবিস্তৃত অসীম আকাশের কোনো এক কোণে কি একটু আশ্রয় পাওয়া যাবে না?