ইউজার লগইন

পিকনিকের আরো কিছু প্যাচাল

mesbah
দাদাভাই মেসবাহ যাযাদের ছবি দিয়া পিকনিকের প্যাচাল শুরু করলাম। কেন করলাম এইটা ব্যাখ্যা করার জরুর না, সবাই জানে। এবি পিকনিক মানেই দাদাভাই।
bus
সাড়ে ৮ টার মধ্যে শাহবাগ থেকে বাসে উঠতে হবে। রিক্সায় উঠে হিসাব করলাম টায়টায় গিয়ে পৌছাব। কিন্তু চালাক বাবাজী ভুল করে প্রেসক্লাব ঘুরে যাওয়াতে পাঁচ মিনিট দেরী। দাদাভাই চিল্লাচিল্লি করবে এইটা জানা। উনি বেহুদাই আমার সাথে ফাপর লন। আর এখন তো দেরী! গিয়া দেখি সবাই চলে এসছে। চরম ত্যাক্ত চেহারা নিয়া ভাই ঝাড়ি মাইরা বাসে উঠাইলেন, এক পেয়ালা চা খাইতে চাইছিলাম ধমক দিয়া বসায় রাখলেন।
rr
বাস যাইতেছে সংসদ ভবন। দু্ঃসংবাদ উদ্রাজি যাবেনা। গতবার বেচারা বউ নিয়ে গিয়ে শক্ত চেলা কাঠের মত সোজা হয়ে বউয়ের পিছে পিছে ছিলেন। সিগারেটও খাইতে পারেন নাই। এইবার নিশ্চয়ই অনেক আশা ছিল মনে।

সংসদ ভবন রাজধানী স্কুলের সামনে থ্রি স্টুজেস(আনিকা, তাজিন, মৌসুম) সহ বাকীরা উঠল। ফারযানা বাকি আছে। সো অপেক্ষা। মেসবাহ চরম গরম। কাঁচা খাইয়া ফেলব এমন ভাব। পনের মিনিট পর ফারযানার আগমন। আইসা উল্টা ঝারি। অফেন্স ইজ দয়া বেস্ট ডিফেন্স। 'একটা রিক্সাওলাও মানিক মিয়া চিনে না।' আদুরে গলায় ফারযানার অভিযোগ। দাদাভাই পুরা গলে গেলেন। মনে হলো রিক্সাওলা মানিক মিয়া চিনেনা এইটা দাদাভাইয়ের দোষ। এরপর যখন বলল, মেসবাহ ভাই আপনার জন্য এইটা আনছি, বলে এক প্যাকেট টয়লেট পেপার ধরায় দিল মেসাবাহ ভাই প্রথম বারের মত দাঁত বাইর করলেন।

কিন্তু বাস ছাড়ে না। কারণ মিতু ভাবির জন্য অপেক্ষা। আবার ত্যাক্ত মুডে দাদাভাই।
ss
গৌতম দম্পত্তি। চুপচাপ। বাসে এত হাউকাউ কিন্তু কোনো রা নাই। একবার দেখলাম ঘুমায় গেছে।
goutom

ছালু। এইবারের উদরাজি। বৌ বাচ্চাকে সারভিস দিতে দিতে সময় পার। বান্ধবীদের সাথে বেচারা ছবি তুলতেও সাহস পায় নাই।
salu

বাস ছাড়ল আধা ঘন্টা পর। নাস্তা। গরম নরম বনরুটি ও কলা। তারপর চট্টগ্রাম থেকে নুশেরার পাঠানো চকলেট। অনেক ধন্যবাদ নুশেরাকে। ঐপারে গিয়া যেন ৭০টা পুরুষ হুর পায়।
bus
গত পিকনিকে বিমা কিঞ্চিত চান্স লইতে চাইছিল। তাই দাদাভাই আগেভাগে ফারযানার কাছে আবদার করেন, বিমা বিবাহিত সেজন্য বিমাকে চান্স না দিয়া তারে দিতে কারণ সে অভিজ্ঞ। এদিকে ফারযানার চান্দা ছিল জেবীনের কাছে জমা। জেবীন সেইটা মেসবাহকে দিতে চাইলে মেসবাহ কড়া আপিত্তি। সে ফারযানার কাছ থিকা নিবে। তাইলে একটু হইলেও হাতের স্পর্শ পাবে লুলটা। কী আর করা ফারযানা অভিজ্ঞ লোকের আব্দার মিটাইল
mesbah
ক্যমেরা এখন সবার কাছে। গলায় ক্যমেরা ঝুলায়া ভাব নেয়ার দিন খতম। কারো কাছে আবার একাধিক।
bilai
এরপর গান। থ্রি স্টুজেস মিনমিন করে গায়। ইশান মাহমুদ শুনছে। আর কেউ মনে হয় শুনতে পায় নাই। এট লিস্ট আমরা পাই নাই। বললাম আমাদের সাথে একসাথে গাইতে। দলের পান্ডা মৌসুম আসলনা।

গানটান গাইতে গাইতে গাজীপুর পৌছায় গেলাম। চা খাওয়ার জন্য সবাই আকুলি বিকুলি করছে। মাগার দাদা ভাইএর এক কথা, নটি নটি। তারপর জিগাইতে জিগাইটে পিকনিক স্পট। স্পটের পাশে দোকান থেকে চা খাওয়া গেল রাসেল ও নাজমুল ভাইয়ের সাথে। দুই পেটি কার্ড কিনে রাসেল।

ছবির মত সুন্দর যায়গা।
spot

spot
ইশান মাহমুদের পরিবারের ছবি তুলি। ইশান ভাই পরিচয় করায় দেয় ভাবির সাথে। ভালো ক্যামেরা ম্যান। মনে মনে বলি বাঘ নাই বনে শিয়াল রাজা। এবিতেই দুর্দান্ত ফটোগ্রাফার আছে। পিকনিকেও ছিল। মৌসুম। তবে আমাগোমত আম ফটোগ্রাফার না, সবসময় ক্যামেরা খিচে না।
dd
পুকর পাড়ে চরম ফটো সেশন হয়। বিলম্বু ফল খায় অনেকে কেউ চাকায়। ছবি তুলব কি ফারযানা বলে ভাই আমি আপনার ছবি তুলে দিই। জয়ি পাশে বসে ছবি তুলার জন্য। আই ছবি দেখে তাতা সহ অনেকে বরবর ভাষায় মন্তব্য করল। দিলে দাগা দিলা তাতামনি!

জয়িতা ছিল সবচেয়ে আনন্দে। তার র হাসি খুশি প্রাণোচ্ছল মুখ দেখে ভালো লাগে। সবাই যদি সবসময় এমন হাসি খুশি থাকত।

বাফড়া। বুদ্ধিদীপ্ত। সিলেটি। রংউঠা সোয়েটার। চুলে স্পাইক। আড্ডায় অলয়েজ ও শুয়ে থাকে। কিন্তু পিকনিকে ছিল সুপার ডুপার। বিশেষ করে জয়ির সাথে বাফড়ার ফটোসেশন ছিল অসাম। ওদের দুইজনের তারুন্যের উচ্ছ্বাসের ছবি দেখলে যে কারো মন ভলো হয়ে যাবে।

কার্ড খেলতে বসলাম। বেচার রাসেল শান্তিতে খেলতে পারে নাই। ছেলে ঋককে সামলাইতেই সময় গেছে মাতৃস্নেহে বাচ্চা বড় কয়ে তোলা বাবা রাসেলকে।

আরেক সেট নিয়া মেসবাহ বাফড়া। একবার তুই তোকারি, একবার বৃটিশ একসেন্টে ইংলিশে দুয়া, মাঝে মাঝে লাফ দিয়া চিৎকার, গড়াগড়ি দিয়া জয়ের উল্লাস। মেসবাহ তার পার্টনার মিতুকে ঝাড়ি দিয়া দৌড়ের উপরে রাখে।

এইবার গান, নাহিদের। নাহিদরে যদি অন্য কোনো সময় গান গাইতে লক্ষবার সাধেন, গাইবেনা। ছবির হাটে জয়িতা গলায় পারা দিয়াও গান বাইর করতে পারে নাই। কিন্তু পিকনিকে নিজে থেকেই গান গাইয়া শোনায় উইথ একতারা।

টুটুল বৌ বাচ্চা সাথে মেয়ে সহ নাজনীন খলিল আসেন। শুরু হয় ঋহান কে নিয়া টানাটানি, ছবি তোলার প্রতিযোগিতা।

কার্ড খেলা শেষে বাফড়া শুইয়া পড়ল ঘাসে। তার উপর শুইল বিলাই ও কাউয়া। খাবার হইতে দেরী । খিদায় পেট চোঁ চোঁ।
baf
খাবার তৈয়ার হইতেই সবাই লাইনে খাবার সংগ্রহ করি। মজার খানা খাইয়া আমরা সবাই শুয়ে পড়ি ঘাসের উপর। উপরে আকাশ দেখি।
eating
তারপর মেসবাহ কাকে নিয়া চিপায়গেল, উদ্রাজির পিকনিক নিয়া পোস্ট ইত্যাদি নিয়া পেচ্ছাপেচ্ছির পর সন্ধ্যায় ফেরার পালা। বাসে বাত্তি নিভানের গান। মাসুম ভাইতো পোস্টে পুরা লিরিক তুইলা দিছেন। রাত বারোটার পরে যাবি আম গাছের তলে জাতীয় গান গলা ফাটাইয়া সবাই গাই।ডুয়েট। মাঝখানে কী নিয়ে যেন হুরের কথা আসল। মামুন হুর দিয়া কী করবে এইটা বুঝতেছেনা জানানোর পর মাসুম ভাই অবাক বিষ্ময়ে বলেন, আমিতো শুনছিলাম আপনি নাকি বিয়ে করছেন!

ফেরার সময় নিরাপত্তার নিমিত্তে পাকনা বাপ্পি কে ফারযানা গার্ড হিসাবে পাশে বসায়। চরম উতফুল্ল বাপ্পির পারফরমেন্স ছিল সেইরকম। সেই সুপার ডুপার ডায়লগ " শরীরে হাত দেন ক্যান" বলে বাজীমাত করে সে।

তারপর একসময় ল্যাবএইডে চলে আসে বাস। সবাই যায় যার যার ডেরায়। মনে হয় কত দ্রুত দিনটা শেষ হয়ে গেল।

এইতো পিকনিকের কিছু ঘটনা। আমার প্যাচাল শেষ।

এই পিকনিকিরে প্রধান সেনাপতি জেনারেল মেসবাহ। উনার কৃতিত্বে, ম্যানেজমেন্টে পিকনিক সুসম্পন্ন। লেখা শুরু করছি উনাকে দিয়া শেষও করি উনাকে দিয়ে। পুকুরে পাড়ে একটা উচু যায়গা আছে। ঐখানে আর্মি নিয়া কথা হচ্ছিল। আমি বলতে যাইতেছিলাম, আর্মির ডাকতারি পরীক্ষা নিয়া একটা জোক্স বলি..। মেসবাহ আমারে এক ধমক দিয়া থামায় দেয়। বলে, 'আপনে গেছেন নাকি আর্মির পরীক্ষায় যে কথা কন? আমি গেছিলাম, ঐটা শুনেন'। শুরু করেন উনি -

ডাক্তারি পরীক্ষার সময় কাপর চোপড় খুইলা উলঙ্গ কইরা সব চেক করে। আমার সিরিয়াল আসল। পায়ূপথে টর্চ মাইরা আর্মির ডাক্তার চেক করার সময় জিজ্ঞাস করে, সিগারেট খান?
আমি বলি, 'ক্যান ধুয়া বাড়াইতেছে'?

পোস্টটি ১৬ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

সাহাদাত উদরাজী's picture


গুরু, ছবি কথা বলছে!

হাসান রায়হান's picture


ধন্যবাদ বস।

সাহাদাত উদরাজী's picture


গুরু, এবারের পরিবহনটা কিন্তু হেভী সেক্সী ছিল। পিছনের দিক থেকে ছবি তুল্লেন ক্যান! ফেইস.।।

জেবীন's picture


ফাইজালামি না... সিরিয়াস ভাব নিয়ে ততোধিক  সিরিয়াস তোনে বলছি ঃ    উদ্রাজী আপনার মতোন এমন বস্তুনিষ্ঠ অনুসন্ধানি প্রশ্ন করবে না কেউ আমি নিশ্চিত!।। অধীর অপেক্ষায় রইলাম রাইহানভাই কি জবাব দিয়ে করে আপ্নারে কাইত!... 

আগেও উদ্রাজী'র  কমেন্টে লাইক দিয়ে চেয়েও ব্যার্থ হইছি!!...  এবি'তে কমেন্ট লাইক অপশন নাই কেন!!! মডু জবাব চাই!!  J)   Crazy

সাহাদাত উদরাজী's picture


সিস্টার জেবীন, এটা আমি আর আমার গুরু বিষয়ক। আমার গুরু'রে লজ্জা দিয়েন না।

ঈশান মাহমুদ's picture


Puzzled Devil Smile) Rolling On The Floor Applause Rolling On The Floor Rolling On The Floor Rolling On The Floor ছবি ,পোস্ট জব্বর হইছে রায়হান ভাই. হাসতে হাসতে পেটে খিল...।

হাসান রায়হান's picture


থেন্কু Smile

জ্যোতি's picture


গ্রেট পোষ্ট। পোষ্ট পড়ে মন পুরা পাংখা হয়ে গেছে।

দিলে দাগা দিলা তাতামনি!

Tongue আহারে। Big smile
দাদাভাই জিন্দাবাদ। যদিও ধমক দেবে বলে ফোন নিয়ে ফারজানার সাথে এমনভাবে কথা বললো যেনো ফারজানার লেট হওয়াতে মেসবাহ ভাই এর ই দোষ।এসব না বলি।

হাসান রায়হান's picture


Smile

১০

শওকত মাসুম's picture


দিলে দাগা দিলা তাতামনি!

১১

তানবীরা's picture


দিলে দাগা দিলাম আমি!!!!!

আপ্নে অন্যদের সাথে এমন ক্লুজ ফুটু তুলবেন? আর কারো দিল নাই Sad(

Tongue Tongue Tongue

১২

হাসান রায়হান's picture


একটু নাহয় ভুল হইছে। তাই বলে এমন !
আর আমি কি ইচ্ছা করে তুলছি নাকি? পাশে আইসা বসছে আর ফারজানা জোর কইরা তুলছে।

১৩

জ্যোতি's picture


আর আমি কি ইচ্ছা করে তুলছি নাকি? পাশে আইসা বসছে আর ফারজানা জোর কইরা তুলছে।আচ্ছা!মনে রাইখেন রায়হান ভাই। আমি মনে রাখলাম।

১৪

শওকত মাসুম's picture


রায়হান ভাই ঠিক কইছেন। গতবারেও আমার পাশে এরম জোর কইরা ৫/৬ জন বইছিল।

১৫

জ্যোতি's picture


আর জোর করে আপনি মাঝে বসছেন?
আর রায়হান ভাই জোর করে রোমান্টিক হাসি দিছে। আহারে কি দুর্ভাগা আপনারা। ঘরে বাইরে অত্যাচারিত। সমবেদানা।

১৬

তানবীরা's picture


জয়িতা, বাংলাদেশ তাহলে দেখি সুইডেনের কাছাকাছি পর্যায়ে উন্নত হয়েছে। Wink ফটো তোলার সময় কিন্তু আর জোর করো না, মাসুম ভাই - রায়হান ভাই মামলা করে দিবে এরপরে Tongue

১৭

উলটচন্ডাল's picture


ছবিগুল খুবি শার্প। লেখাও কম চোখা না।

১৮

হাসান রায়হান's picture


অনেক ধন্যবাদ।

১৯

রাসেল আশরাফ's picture


এতদিন পরে ক্যান???????

২০

হাসান রায়হান's picture


টেকনিক্যাল প্রোবলেম ছিল।

২১

সাহাদাত উদরাজী's picture


গুরু আমার, এমন খেল দেখাবে আমি অনেক আগেই অনুমান করছিলাম।

২২

টুটুল's picture


ইশ... প্রত্যেক সপ্তাহে যদি একটা কৈরা পিকনিক হইতো Smile

মেসবাহ ভাই আমারে ঝাড়ি দিয়া বাস থিক্কা নামাইয়া দিছে Sad

২৩

জ্যোতি's picture


দাদাভাই এর নামে মিছা কথা কইয়ো না টুটুল।আমরা মানবো না। তুমারে কে যেনো ঝাড়ি দিলো!তুমারে তো আমরা নিতাম না রিহানকে ছাড়া।

২৪

হাসান রায়হান's picture


কেজানি বলছিল তিনমাস পর পর পিকনিক করা উচিৎ। প্রস্তাব টা ভালো।

২৫

টুটুল's picture


শীতে একটা... বর্ষায় একটা... শরতে একটা ... তবে গরমে না Sad

২৬

জ্যোতি's picture


হ। সহমত।

২৭

সাঈদ's picture


এই পোষ্ট টার জন্য অপেক্ষায় ছিলাম ।

রায়হান ভাইয়ের পোষ্ট ছাড়া পিকনিকের ফিনিশিং হয়না।

২৮

হাসান রায়হান's picture


হ্যা ফিনিশিং দিলাম Smile

২৯

নাজমুল হুদা's picture


ফিনিশিং ! আমার যে আরো ক'টা ছবি দেবার ইচ্ছা ছিল- দেওয়া যাবে না ?

৩০

জেবীন's picture


মেসবাহভাই সবডিরে ধইরা "স্কুল অব হিউম্যান ডেভেলভমেন্ট"  এ ভর্তি করাইতে নিতাছে!!!... Tongue
এবারের সব এলব্যামের মাঝে রায়হানভাইয়েরটা  ১নং। যদিও গতবার সাঈদ্ভাই ছিলেন নম্বর ১। তবে এবার উনি নেমে গিয়ে ৩ এ চলে গেছেন...  ্নবীনের জ্যজয়কার দেখাতে মুক্ত'র এলব্যাম উঠে এশেছে ২নং এ!...

৩১

হাসান রায়হান's picture


Smile

৩২

কিছু বলার নাই's picture


আমার কাছে অল্প কয়টা ছবি আছে তাজিন আর আনিকার তোলা, আমার আইলসামি লাগে ছবি তুলতে তাই তোলা হয়নাই...দিয়া দিবনে এই পোস্টে...সিস্টেমটা বুইঝা লই।

৩৩

হাসান রায়হান's picture


ফ্লিকারে আপনার ছবি দেখে আমি আপনার ফ্যান অনেক দিন থেকে। আর আপনার লেখাও অনেক দিন থেকেই পছন্দ করি। সেই সামুর প্রথম দিকের সময় থেকে।

৩৪

কিছু বলার নাই's picture


লেখা আর ছবি তোলা দুইটাই বন্ধ অনেকদিন, আপনাদের না ফোটোওয়াক প্ল্যান চলতেছে? ডাক দিয়েন, যামুনি! পোস্টে মজা পাইছি Smile ...তয় এই ব্লগের অতি গ্যানজাইমা ছবি আপলোড রহস্য ভেদ করতে পারলাম না বইলা তাজিনানিকার তোলা ছবিগুলা দিতে পারতেছিনা Worried

৩৫

হাসান রায়হান's picture


পোস্টে এমনেই একটু মজাক করলাম । Smile

৩৬

নাজমুল হুদা's picture


অপেক্ষায় আছি । এত দেরী ?

৩৭

নাজমুল হুদা's picture


ছবি দেখে হতবাক ! এত সুন্দর ছবি যার হাতে তোলা তিনি আমার তোলা ছবির প্রশংসা করেছিলেন । এখন মনে হচ্ছে, কোন পোস্টে পিকনিকের ছবি দেওয়া উচিৎ হয়নি আমার ।
আর লেখা ? বর্ণনার ঢং এত আকর্ষণীয় ও প্রাঞ্জল যে পড়ে মনে হচ্ছিল যে আমি সেই পিকনিক স্পটেই আছি ! তবে পার্থক্য এই যে, তখন হাসি পায় নি এত, কিন্তু পোস্ট পড়ে হাসতে হাসতে পেটে খিল ধরে যাবার অবস্থা । ধন্যবাদ হাসান রায়হান, অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ।

৩৮

হাসান রায়হান's picture


আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ নাজমুল ভাই।

৩৯

মাহবুব সুমন's picture


Cool দারুন

৪০

হাসান রায়হান's picture


Smile

৪১

শাওন৩৫০৪'s picture


আমরা যখন উপ্রে উঠছিলাম(!), দাদাভাই তখন একটা কৈতক কৈছিলো, কুন জায়গায় যে শেষ হৈছিলো, আমি অখনো ধর্তার্লাম্না!
সেই বিষয়টার উপ্রে একটু টর্চ মারতেন যদি?

৪২

হাসান রায়হান's picture


ধূয়া দিয়া শেষ করছে Wink

৪৩

নাজমুল হুদা's picture


এরপর গান। থ্রি স্টুজেস মিনমিন করে গায়। ইশান মাহমুদ শুনছে। আর কেউ মনে হয় শুনতে পায় নাই। এট লিস্ট আমরা পাই নাই। বললাম আমাদের সাথে একসাথে গাইতে। দলের পান্ডা মৌসুম আসলনা।

থ্রি স্টুজেসের মিনমিন করে গাওয়া দু'টো গানের অংশবিশেষ, যারা সেদিন তাদের গান শুনতে পান নাই তাদের জন্য । [শ্রবণশক্তি অটুট রাখতে আপনার সাউন্ড সিস্টেমের ভলিউম কমিয়ে দিন]ঃ
http://www.youtube.com/watch?v=VzRxLMziCZo

http://www.youtube.com/watch?v=6FXyNA1RPhQ

নাহিদরে যদি অন্য কোনো সময় গান গাইতে লক্ষবার সাধেন, গাইবেনা। ছবির হাটে জয়িতা গলায় পারা দিয়াও গান বাইর করতে পারে নাই। কিন্তু পিকনিকে নিজে থেকেই গান গাইয়া শোনায় উইথ একতারা।


নাহিদের গান আর তাসের আড্ডা
চলেছিল একই সাথে । পিকনিকের হৈহল্লা, তাস পেটানো আর গান একত্রে উপভোগ করুন । [আমার উপরে ক্ষেপপেন না, এমন অদ্ভুত রেকর্ডিংয়ের জন্য, পোলাপান এর চেয়ে ভাল পোজ দিতে পারে নাই, আমার কি করার ছিল?]
http://www.youtube.com/watch?v=H4bu4Ljm9L0
http://www.youtube.com/watch?v=HyA2xjECjDQ
এবার যেটা শুনবেন, সেই গানটা আগের একটা পোস্টে আপনাদের শোনা হয়ে গেছে, তবুও দিলাম, আপনাদের স্মৃতি উসকে দেবার লক্ষ্যেঃ ।

http://i4.ytimg.com/vi/GgFse359JEg/default.jpg
সবাই আনন্দে থাকুন । প্রতি তিনমাসে একটা করে পিকনিকের মানসিক প্রস্তুতি নিন ।

৪৪

হাসান রায়হান's picture


জটিল কাজ করছেন বস।

৪৫

নাজমুল হুদা's picture


আপনি ছাড়া আর কেউ দেখেছে কিনা সন্দেহ হচ্ছে ।

৪৬

মীর's picture


কি কন নাজমুল ভাই Wink

৪৭

আনিকা's picture


তওবা তওবা... আস্তাগফিরুল্লাহ! নাজমুল ভাই... এইটা কি হইলো... এখন তো আমাদেরকে কেউ আড্ডায় আর ডাকবোনা... এই বিকট বেসুরা গান যে বাসের ঘটাং ঘটাং পার কইরাও এইরমভাবো শোনা যাইবো সেইটা তো বুঝি নাই। আইজ থাইকা পাব্লিক প্লেস স্পিকটি নট হইয়া থাকনের শপথটা নিয়া ফালামু নাকি বুঝতাসিনা।

৪৮

নাজমুল হুদা's picture


শপথ নিতে পারেন, তবে অবশ্যই তা ভঙ্গ করবার জন্য ।

৪৯

কিছু বলার নাই's picture


সেরেচে! আপনি কি সবাইরে বয়রা বানাবার ধান্দা করতেছেন নাকি?

৫০

নাজমুল হুদা's picture


ভলিউম কমাবার সতর্কসঙ্কেত আগেই দিয়েছি । এরপরও কেউ যদি...............

৫১

রাসেল আশরাফ's picture


নাজমুল ভাইরে মাইনাস।

আসল ডুয়েট গানটা না দেয়ার জন্য।

৫২

নাজমুল হুদা's picture


আসল ডুয়েট গানটা যখন গাওয়া হয়েছিল, তখনই তো আমি মা্ইনাস ছিলাম । আমাকে সামনের দুই সিটে একা বসিয়ে রেখে পিছনে সবাই মজা লুটলেন । এখন আর নুতন করে কি মাইনাস দেবেন রে ভাই । দুক্কু, আপসুস......

৫৩

সকাল's picture


পিকনিকে না যেয়েও পিকনিকের আনন্দ পাচ্ছি।
ধন্যবাদ, রায়হান ভাই।

৫৪

হাসান রায়হান's picture


আপনাকেও ধন্যবাদ সকাল।

৫৫

ফারজানা's picture


পোষ্ট পছন্দ হয়েছে | নতুন বছরে আরেকবার পিকনিকের স্মৃতি ঝালাই করানোর জন্য রায়হান ভাইকে ধইন্যা| তবে একটু ভুল সংশোধন কর্তে চাই| মেজবাহ্ ভাইকে টয়লেট পেপার দেইনাই| গতবার সাবান নিয়া একটু অসুবিধা হয়েছিল বিধায় এইবার হাত মোছার টিস্যু দিলাম|

৫৬

হাসান রায়হান's picture


Smile

৫৭

গৌতম's picture


শোনেন, সাথে বউ থাকলে সবসময় গুড বয় হয়ে থাকতে হয়। দেখেন না, পুরা রাস্তায় সবসময় বউয়ের সাথে সাথেই ছিলাম! আর কারো দিকে তাকাই নাই; কারো সাথে ইচ্ছে থাকলেও কথা বলতে যাই নাই। হে হে হে... আপনার লেখা পড়ে মনে হচ্ছে, পরীক্ষায় পুরা পাশ। Wink

৫৮

হাসান রায়হান's picture


হা হা । আপনাদের দেখে কহুব ভালো লাগছে। সুইট ফ্যামিলি।

৫৯

মীর's picture


ব্যপক লাইক্কর্লাম।

৬০

হাসান রায়হান's picture


ব্যপক ধন্যবাদ

৬১

মুকুল's picture


লেখা হিসেবে গতবারের টাই সেরা। তয় এইটাও জব্বর হইছে। a

৬২

হাসান রায়হান's picture


গতবার তো তুমি ছিলা তাই লেইখা মজা পাইছিলুম।

৬৩

শওকত মাসুম's picture


আপনার লেখাটার জন্যই অপেক্ষায় ছিলাম। আজকাল তো আবার রায়হান ভাইরে লেখার জন্য ব্যাপক তেল দিতে হয়।
নতুন বছরে বেশি বেশি লেইখেন।

পোস্ট সেরম হইছে

৬৪

হাসান রায়হান's picture


এনাফ তেল হইছে লিখুম। Smile

৬৫

আরিফ জেবতিক's picture


পিকনিক বিষয়ক এই পোস্টটা বেশি সুস্বাদু হয়েছে।
পোস্টের শুরুতে ডিপজলের ছবিটা বেশ ভালো এসেছে।

৬৬

নাজমুল হুদা's picture


'গভীরওয়াটার' নাকি উনি ?

৬৭

হাসান রায়হান's picture


ধন্যবাদ বস। গভীরজলের ফটুটা আমারো খুব প্রিয়। Cool

৬৮

লীনা দিলরুবা's picture


দারুণ দারুণ....

৬৯

হাসান রায়হান's picture


ধন্যবাদ

৭০

নাজমুল হুদা's picture


এখন ১২ জন সদস্য ও ১১ জন অতিথি অনলাইনে
অনলাইন সদস্য

* রন
* রাসেল আশরাফ
* লীনা দিলরুবা
* ভাস্কর
* হাসান রায়হান
* রশীদা আফরোজ
* জয়িতা
* সাহাদাত উদরাজী
* আরিফ জেবতিক
* ভাঙ্গা পেন্সিল
* মুক্ত আকাশ
আপনারা পেচ্ছাপেচি শুরু করুন, আমি এখন যাই ।

৭১

সুবর্ণা's picture


ফটো পোস্ট..দুইটাই জোস...

৭২

হাসান রায়হান's picture


আসলেননাতো Sad

৭৩

মেসবাহ য়াযাদ's picture


আবার কবে পিকনিক ? আমি বেকার, হাতে ম্যালা টাইম...

কাজের মধ্যে দুই
খাই আর শুই...

পোস্ট সেরাম হৈছে বস, পিলাস

৭৪

হাসান রায়হান's picture


অল ক্রেডিট গোস টু আপনের কাছে।

৭৫

সাঈদ's picture


দাদা ভাই, চলেন আপনার পাহাড়ে যাই পিকনিকে Tongue

৭৬

উচ্ছল's picture


Cool

৭৭

নুশেরা's picture


চরম মজাদার পোস্ট! আরো কিছু যোগ করে দ্বিতীয় পর্ব ছাড়েন Smile

বদদোয়া দেন ক্যান Sad

৭৮

হাসান রায়হান's picture


নাহ পেচ্ছাপেচ্ছি ছাইড়া দিয়া ভাবগম্ভীর মুরুব্বি হয়ে থাকুম ভাবতেছি।

৭৯

নুশেরা's picture


ক্যান, ভাবীর ইডিডি ঘনাইছে? Tongue

৮০

নাজমুল হুদা's picture


এখানে আমার কিছু বলা বোধহয় ঠিক নয় ।

৮১

নাজ's picture


পিকনিক এর অনেক কিছুই মিস করেছি Sad

৮২

হাসান রায়হান's picture


হ্যা, পিকনিকের বাসে না থাকলে পিকনিকের ৮০% আনন্দ লস।

৮৩

জুলিয়ান সিদ্দিকী's picture


উদরাজী ঘরে দিনরাইত বউয়ের সান্টিং খায় এই কথা জানা আছিলো। কিন্তু পিকনিকের দিন (এমন খুশির দিনেও) বাসে সবার সামনে বউয়ের সান্টিং খাইছে ছবি না দেখলে... আমি উদরাজীর দুঃখে দুঃখী Sad(

৮৪

সাহাদাত উদরাজী's picture


কন কি!

৮৫

রাসেল আশরাফ's picture


সান্টিং কি??

কেমনে খায়?? Tongue Tongue

৮৬

সাহাদাত উদরাজী's picture


গুরু, আপনার নূতন ব্লগ মুছে ফেলেছেন কেন? মাইন্ড খাইছে।

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

হাসান রায়হান's picture

নিজের সম্পর্কে

অথচ নির্দিষ্ট কোনো দুঃখ নেই
উল্লেখযোগ্য কোনো স্মৃতি নেই
শুধু মনে পড়ে
চিলেকোঠায় একটি পায়রা রোজ দুপুরে
উড়ে এসে বসতো হাতে মাথায়
চুলে গুজে দিতো ঠোঁট
বুক-পকেটে আমার তার একটি পালক
- সুনীল সাইফুল্লাহs