ইউজার লগইন

কাজী রূপাই'এর ব্লগ

হুমায়ূন আহমেদ এর প্রতি

তোমারে দেখার স্বাদ জীবন সমুদ্রে আমারচাতক
পাখির মতো কুরে কুরে খেয়েছে ভীষণ
হে মহান কারিগন,নখত্রের শ্যামল ছায়ায়
তোমারউজ্জ্বলমুখ,দিগন্তে জাগায় ফল্গু ধারা;
অলস আঁধার কেটে জেগে উঠে ফুলের বিস্ময়

পৃথিবীর সব মৃত ব্রিখ প্রানে জাগিয়ে দিলেন
নতুন আলোর ধারা,তোমার বিনভ্র সরলতা,
শস্য হীন মাঠে জাগে চিরজীবী সোনালী স্পন্দন
চান্নি পসর রাতে জেগে উঠে নুহাশ পল্লীর
গল্মলতা

হে নিখুঁত স্বপ্ন দ্রষ্টা,তোমার নির্মম
উনুউপস্থিত বিপুল বেদনা লয়ে কাঁদায়
আমারে নিশিদিন।

বিবর্তনবাদ

এখন আমি উলঙ্গ নই ৷
প্রজাপতি কিংবা ঘাসফড়িং আমার ইচ্ছের
আকাশও নই ৷ ঘুড়ি আর নাটায়ের জীবন
প্রিয়তমা নদীটির আত্মার স্রোতধারায়

এখন আমি প্রকৃতির স্তন থেকে পাঠ
করি কবিতার রক্তমথ
সমুদ্রের
ভেতরে জেগে উঠা প্রতিটি দুঃস্বপ্নকে খুন
করে ফিরে আসি আমার ভূগোলে
আমার আমিকে মেলে ধরি ডালপালার মতো ৷

এখন আমি সুলেখা রে খুঁজে ফিরি ওয়ারীর
ছায়া বৃক্ষের মৌনতায় ৷৷

আমার স্বপ্নের শৈল্পিক পতাকা এখন কোন দিকে উড়ছে

মেঘদের পালক
খসে পড়ছে বৃষ্টিহীনতার করুণ
করতালিতে
ম্লান হয়ে উঠেছে পথের মানবিক
ধূলোপ্রাণ!সাম্প্রদায়িকতার
অশ্লীন কথোপকথনে নীল
হয়ে গেছে বাতাসের লাবন্য প্রভা
উদ্ভট অন্ধকারের
রহস্যে ডুবে যাচ্ছে প্রজাপতির মুক্ত
উড়াল

ওরা আমার স্বপ্নের শৈল্পিক পতাকার
ডানা ভেঙে দিতে চায়
ওদের উলঙ্গ যৌনাচারে স্থবির
হয়ে পড়েছে-
আমার ভেতরের মুক্ত নদীটির ছুটে চলা

হায় পতাকা,আমার সবুজাভ
স্বপ্নগূলি কী ফের
গিলে খাবে সেই সব অজগর ?
আমার কবিতার রক্তাক্ত
উপমাগূলি কী বাড়ি ফেরা ভূলে যাবে ?