ইউজার লগইন

শরিফুল ইসলাম (শরীফ)'এর ব্লগ

একটি রোমান্টিক স্মৃতি কাহিনী!

আমি একটি মেয়েকে চার বছর যাবৎ মনে মনে ভালবেসেছি, মেয়েটি একজন সরকারী প্রাইমারী স্কুলের শিক্ষিকা! সামনা-সামনি কোন দিন ভালবাসার কথা বলিনি,শুধু ভয় হতো ভালবাসার কথা বললে না জানি কি হয়! তবুও মনের ভীতর সবসময় সাহস রাখতাম একদিন না একদিন মনের লুকানো কথা বলবোই বলবো! এভাবে অনেক দিন চেষ্টা করলাম কিন্তু মনে সাহস আনতে পারলাম না! প্রাইমারী স্কুলের পিছনে একটা পুকুর আছে,আমি যখন গোসল করতে যেতাম, তখন আমি তার পানে অবাক নয়নে তাকিয়ে থাকতাম সেও আমার পানে অবাক নয়নে তাকিয়ে থাকতো! মনে মনে তাকে নিয়ে অনেক কিছু ভাবতাম এমনকি অনেক কিছু কল্পনা করতাম, তাকাতাকি আর চোখাচোখিতে দিন মাস পার করি! চৈত্র মাসের খরার মতো আমার মনের কথা গুলো শুকিয়ে যেতে লাগলো!*এভাবে আমার জীবনে ৩ টি বছর পার হয়ে যায়! শেষের বছর মনের ভীতর পর্বতসম সাহস আনলাম যে কোন ভাবে আমি ওর সামনে মনের কথা গুলো বলবোই, যেই কথা সেই কাজ!

ঈদ মোবারক!!! আসুন জানি-হাদিসের আলোকে ঈদ এবং ঈদের পালনীয় বিধান গুলি৷

ঈদের চাঁদ দেখা গেছে৷ আগামী কাল ঈদ! ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে পালিত হবে এটি,দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার ফসল হলো-এ ঈদুল ফিতর!প্রতি বছরে মুসলিমদের জন্য দুটি ধর্মীয় উৎসব পালিত হয়!তার মধ্যে একটি হলো-এই ঈদুল ফিতর৷ আসুন আমরা এখন হাদিসের আলোকে ঈদ এবং ঈদের পালনীয় বিধানাবলী গুলি জানি:
"আনাস বিন মালিক (রা:) থেকে বর্ণিত,
রাসূল যখন মদীনায় আসলেন-দেখলেন,
মদিনাবাসীরা দুটি দিনে আনন্দ ফূর্তি করে!
তিনি জিজ্ঞেস করলেন-এ দিন দুটি কি?
তারা বলল-আমরা জাহিলিয়া যুগে এ দুদিন আনন্দ-ফূর্তি করতাম!
রাসূল বলেন- আল্লাহ এ দুদিনের পরিবর্তে এর চেয়ে উত্তম দুটো দিন তোমাদের দিয়েছেন৷
তা হলো- ঈদুল আযহা ও ঈদুল ফিতর৷ (আবুদাউদ-৯৫৯)
বিধনাবলী:
(১) ঈদের দিন রোযা রাখা নিষেধ৷ (বুখারী-১৮৫৫)
(২) ঈদ উপলক্ষে পরস্পর শুভেচ্ছা বিনিময় করা৷(বায়হাকী-২/৩১৯)
(৩) পায়ে হেঁটে ঈদগাহে গমন করা৷(বুখারী-৯৩৩)
(৪) ইহা ছাড়া আরও কিছু: