ইউজার লগইন

আমি বলছি না আমি লিখছি : প্রখম খণ্ড ।

মনে করি , আমি কিছু একটা লিখছি । কি লিখছি তা ঠিক এই মুহূর্তেই বলতে পারছিনা । তাই বলে আপনারা কি একটা চরম উদ্বেগে ধিক্কার দেন - ' রাখো এসব ন্যাকামো ' , কি একটু ধৈর্য ধরে পড়ে বলবেন - ' কি একটা ভাঁড়ামো না ছাই হলো ', তাতে আমি কিছুমাত্র বিচলিত হতে যাবোনা । কারণ , সে কোন মজাদার সাহিত্যকর্মই হোক (অসম্ভব) , আর বস্তাপঁচা পান্ডুলিপিই হোক , আমি লিখছি । যাক, আমি কোন কিছুই বলছিনা । কারন আমি লিখছি । কি লিখছি তা ঠিক এ মুহূর্তেই বলতে পারছিনা (ভবিষ্যত বলতে পারলে তো জ্যোতিষী হতাম )।
বলতে পারছিনা কারণ , বলবার কিছু বাকি আছে ? যুগে যুগে মহাবক্তারা যে কখার সমুদ্র গড়েছেন , আমার মত মূঢ়ের কাছে তার তল পাওয়ার জো আছে ? কোন সরু নালা বেয়ে আধো আধো কথার ক'ফোঁটা জল এসে ঐ সমুদ্রে পড়লে কার কি এসে যায়? ঐ বিপুল কথাসমুদ্রের জল তাতে কিছুমাত্র কমবেও না , বাড়বেও না । তারপরও কিন্তু আমি কিছুই বলছিনা । কারণ আমি লিখছি , কিছু একটা লিখছি , অকারণেই হোক আমি লিখছি । আপনারা পড়ুন আর নাই পড়ুন । আমি লিখছি ।

ভাবছি মানুষ কেন লিখে ? মাখায় আসছেনা বিধায় সে বিষয়ে কিছু বলতে চাইনা । সরি , লিখতে চাইনা । কোন কিছু কেন ঘটে , কিভাবে ঘটে এসব বের করা জ্ঞানী আই মিন বিজ্ঞানীদের কাজ । ওসব আমার কাজ নয় । তবে নিজের কাজ ছাড়া যে অন্য কারো কাজে নাক গলাই না অর্থাত্‍ অকাজ করি না তা নয় । অকাজ যে করি তার উদাহরণ : ১. নাক ঠিক গলানোর জিনিস নয় তবু গলাই , ২. নাক গলানোটা জ্ঞানীদের কাজ হলেও আমার মত মূর্খেরও যে নাক আছে তা অযথাই দেখাতে যাই । ইত্যাদি ।

এবার অকাজের কথাই লিখি ।

কাজ আর অকাজের পার্থক্য যদি সেদিন কেউ আমায় কান মলেও শেখাতো , তবুও হয়তো শিখতাম না । কেননা কাজকে অকাজ আর অকাজকে কাজ ভেবে আমি বেশতো ছিলাম । কার কথায় কি এমন এসে যেত ? কিন্তু সেদিনটা তো ঠিক এসে গেলো । কোন দিনটা ? তারিখটা মনে নেই । তবে দিন একটা হবে । দিন নয় রাত । রাত ১ টা হবে । ঘুম নেই । ঘুমোলে তো চুকেই যায় সব ল্যাটা । অন্ধকার ঘর । অনেক বেশী একা একা লাগছে । ভাবছি একটা কল করি যাচ্ছেতাই নাম্বারে । বলি জেগে আছেন না ঘুমিয়েছেন ? একটা গান শোনাই ? আজ জোত্‍স্না রাতে সবাই গেছে বনে । না , তার চেয়ে আকাশ দেখি । বাইরে এলাম । বাইরে এসে থ মেরে গেলাম । জানতাম না আজ সত্যিই জোত্‍স্না রাত । আকাশ দেখতে দেখতে বিভোর হয়ে পড়লাম । হঠাত্‍ সামনে দেখি অসংখ্য নারিকেল গাছ হাত ধরাধরি করে এক লাইনে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আছে । গাছগুলো থেকে থেকে খোলা হাওয়ায় গা এলিয়ে দোল খাচ্ছে । আমি কিছু একটা মনে পড়ায় তা মন থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করছি । কিন্তু মনের দাগ মুছে এমন ইরেজার সম্ভবত নেই , অন্তত আমার কাছে নেই । কিছুক্ষণ নিঝুম নিরবতা । হঠাত্‍ খেয়াল করি পা দুটো আপনা আপনি চলছে দুধার ঘাসে ছাওয়া মেঠো পথে । পথের দুপাশে খোলা মাঠে ধানের শীষ গুলো আকাশের মমতা পেতে উন্মুখ হয়ে আছে ।এ পথ ধরে কখনো হেঁটেছি বলে মনে হয়না । তবু মনে হচ্ছে এ যেন জন্মজন্মান্তরের চেনা । আমি মুগ্ধ দৃষ্টিতে আকাশ দেখে হাঁটছি । ভাবছি আকাশের বুকে অপার মমতা থাকলে ব্যাথাও নিশ্চয় আছে । আর ব্যাথা থাকলে তা উপশমেরও কোন ওষুধ থাকবে । তবে কি আকাশের কাছে দুহাত পেতে চাইব সে ওষুধ ? দুহাত তুলেও ফেলেছি । কিন্তু এও কি সম্ভব ? জানি সম্ভব না । তাই এবার হাঁটার গতি বাড়ছে , হৃত্‍পিন্ডের গতিও । বাড়ছে পখও ।
কখন যেন সামনে কোথাও পাতার মরমর সঙ্গীত বেজে উঠলো । দেখি সেই তালে বাতাসও মাতাল হয়ে ছুটছে । দেখি একই তালে পাশের বাঁশবনে এবং আমার মনেও একটা মৃদু ঝড় বয়ে যাচ্ছে । আমি হাঁটছি । এমন ভাব করছি যেন আমার কিছুই হয়নি । না , বেশিক্ষণ ভাব ধরে খাকা যায়না । তাই এবার পা দুটো ক্রমশ পাথর হয়ে পড়ছে , আর চোখ ছলছল করছে । আমি আকাশ দেখি । অপলক দৃষ্টি । আকাশে যে কি খুঁজে চলেছি নিজেও জানিনা । চাঁদের হাসিটা কেমন যেন মৃয়মান হয়ে পড়ছে । সারা আকাশ জুড়ে হঠাত্‍ কোথা থেকে এত কালো মেঘ এসে ভিড় বাঁধালো ! যেন আমি মারা গেছি আর আমাকে দেখতে ভিড় বাঁধিয়েছে স্বজনেরা , আমাকে আড়াল করে রেখেছে রাস্তার কৌতুহলী মানুষদের দৃষ্টি থেকে । না , চাঁদটা যেন নববধুর মত লজ্জায় গাল লাল করে , মেঘের ঘোমটায় মুখ লুকিয়ে আছে । আর আমি অধীর আগ্রহে তার মুখখানি দেখার জন্য ব্যাকুল । যদিও ভালো করেই জানি চাঁদ কিছুতেই ধরা দেবে না । জনম জনম তপস্যা করলেও না । তবু এমন ভাব করছি যেন চাঁদ আমার পৈত্রিক সম্পত্তি !

পোস্টটি ৪ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

বিষণ্ণ বাউন্ডুলে's picture


ভাল লাগল পড়তে। অন্যরকম।

সুদূরের পিয়াসী's picture


অনেক ধন্যবাদ বি : বা : ! জানি এটা আসলে কিছুই হয়নি । তবুও ভালো লাগছে ।আপনাদের ভালো লাগলে , অনেক ভালো লাগে । ভালো থাকবেন ।

রায়েহাত শুভ's picture


বেশ লাগলো কিন্তু এই অকাজের কথা...

সুদূরের পিয়াসী's picture


শুভ ভাই , আপনার বেশ লেগেছে ? কিন্তু বেশ ভালো না বেশ খারাপ বুঝলাম না । ভালো থাকবেন ।

রায়েহাত শুভ's picture


অকাজের কথা শোনানো যখন শুরু করলেন তখন থেকে আকর্ষণ করেছে, তার আগের অংশটা খুব একটা আকর্ষণীয় লাগে নাই...
ফ্রাঙ্কলি বললাম, কিছু মনে কইরেন না Smile

সুদূরের পিয়াসী's picture


মনে কিছু করছিনা । কারন আমি লিখছি বলছিনা । আপনাকে সাধুবাদ যে আপনি সত্য কথা ফ্রাংকলি বললেন । আমিও এটাই চাই । আসলে কিন্তু অকাজ থেকেই মূল লেখাটা । তার আগেরগুলো আমার কাছেও ল্যাজ মনে হয়েছে । বুঝেনতো অকাজ সবসময় কাজ হয়ে উঠতে পারেনা । জোর করে লেজ জুড়ে দিয়েছি তাই তা লেজ ভেবে অগ্রাহ্য করলেই বাঁচি । দোয়া রাখবেন । ভালো থাকবেন । আর হ্যাঁ , আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

লিজা's picture


আপনার নামটাই এমন, মনে হয় দুনিয়ার সবথেকে দুঃখী মানুষ আপনি Puzzled । কেন ভাই? এই বয়সেই এত শূন্য শূন্য ভাব কেন? লেখেন তো ভালো, হাসিখুশীও থাকুন সবসময় ।

সুদূরের পিয়াসী's picture


ভাই অনেক খুশি হলাম । এইযে হাসছি হি হি হা হা । আপনে যে আমাকে দুখু মিয়া বানায় ফেললেন ! এটাও একটা সুখকর বিষয় । আর আমার নাম কিন্তু একান্ত অভাজন নয় । এটা ছদ্মনাম , প্রতীকীও বলা যায় ।
আপনার মতে আমি লিখি ভালোই কিন্তু . . . । আমি আগেও বলেছি আপনাদের ভালো লাগলে আমি অনেক খুশি থাকি । তার মানে এ নয় যে সবসময় ভালো বলবেন । তারপর ভালো বললে খারাপ লাগার কথা না । আমি চেষ্টা রাখব আপনার সদুপদেশ পালনের । আপনার আন্তরিকতার জন্য ধন্যবাদ যথেষ্ট নয় । তাই আপনার মঙ্গল প্রার্থনাই করছি । ভালো খাকুন ।

তানবীরা's picture


শেষ প্যারাটা আমার অসাধারণ লেগেছে, ফ্র্যাঙ্কলি এন্ড ট্রুলি স্পোকেন Big smile

১০

সুদূরের পিয়াসী's picture


শেষ কমেন্টটা ও ছিল অসাধারণ । ট্রুলি স্পোকেন । এবং ধইন্যা ধইন্যা ।

১১

লীনা দিলরুবা's picture


দারুণ!

১২

সুদূরের পিয়াসী's picture


লীনা আপাকে ধন্যবাদ । দোয়া রাখবেন । ভালো থাকুন ।

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

সুদূরের পিয়াসী's picture

নিজের সম্পর্কে

অন্তহীন পথ . . . .
গন্তব্যহীন ছুটে চলা . . . .
নিজের খোঁজে ।
এইতো . . . .
আর কী ?