ইউজার লগইন

সঞ্জয় কান্তি দে'এর ব্লগ

লজ্জিত পথিক

জনতার ভিরে হাজারো প্রশ্ন তরী বেয়ে বেরাচ্ছে
“ভুল ও নির্ভূল” হার জিতের মাঝা মাঝির দাড়িপাল্লায় ঝুলছে।।
এখন তরীর মাঝি পথে পথে গানের সুর ভুলে হারাচ্ছে গতি
মানুষ দিধাগ্রস্থ হয়ে হাহাকারের ভিড়ে হারাচ্ছে মানবতা।
শূণ্যতা বুকে নিয়ে মা চলছে দক্ষিণ রাস্তার দিকে,
কান্নার রোল ভিঝিয়ে দিচ্ছে রাস্তার পথঘাট।

আনন্দের সাথে কান্নার জোয়ারের জিৎ হয়েছে আজ,
লাখো প্রাণের নিবেদন চরমে গিয়ে লজ্জায় মাথা ঢাখা পড়ে
চলে এসেছে।
কিন্তু ভিরু আর কাপুরুষের মত নয়,
থমকে আছি বলে ভুলে যেও না আমায়।।

হঠাৎ কুকুরের ডাকে বেসুরে আওয়াজটা প্রাণের কাছে কলঙ্কের কথা মনে করিয়ে দেয়।
অভিশাপ এসেছে কি! আর্শীবাদ এসেছে বিধাতা জানে।।
শুধু বলতে চাই “মানুষ”, ডাকতে চাই “মানুষ”
তোমরা হারিয়ে যেও না।

জল!নাকি ছিল অশ্রু

নিজের মনটিকে সাজাতে গিয়ে আমি কোথায় হারিয়ে যাচ্ছি ।তা কিভাবে হচ্ছে জানিনা ,কিন্তু কিছু বুঝলাম কোথাও হইতো ভুল হলো।

আয়নার সামনে দাড়াতে সে বলে উঠে,আর কত দিন এই ব্যস্থতা? স্বাভাবিক মুহুর্ত টুকু মাঝেমধ্যে অস্বাভাবিক ভাবে টেনে হেচড়ে নিয়ে যায় কঠিন বাস্তবতার দিকে।মানুষের জীবনটা কেন কাঁদে করুন সুরে ? পাল্টাই তার ভিতর যতটুকু ছিল সে।কখনও অভাবের দ্বারপাল বন্ধি করে রাখতে চায়,নিজেকে ধরে রাখার শেষ কোথায় গিয়ে থামায় নিজের অজান্তে হইতো বাধ্যগত ভাবে ।। শক্তি খুব সীমিত তাই যুদ্ধশেষ হওয়া পর্যন্ত হইতো থাকবোনা।

কামনারে রাখিসনে বেঁধে

মানুষের ঘরে ঢুকে ছিল এক চোর ,চোরটি এসেছিল ভিক্ষার ঝুলি হাতে, সেই ঝুলিতে কি জানি ছিল-কিছুতেই পূর্ণ হয় না, মানুষ দিতে থাকে কিন্তু পূর্ণ হয়না, একদিন যখন মানুষটির সম্পদ আর বাকি থাকল না। শেষ সেই পরিনতি তার বিবেক,বুদ্ধি,সততা,নিষ্ঠা, সবি তাকেই দিতে হল।।
আমাদের মনে যে কামনা নামের চোরটি বসবাস করে তার অভিসন্ধি কেউ বুঝতে পারিনা। যদি তার অভিসন্ধি বুঝা যেত তবে কেউ রাজনীতি করত না।।

বন্ধ হোক ধর্মের নামে অর্ধমভিত্তিক রাজনীতি

এই র্ধম ভিত্তিক রাজনীতিটা ধর্মের নামে অন্যায়,বিবাদ, জাত বিদ্বেষি মনোভাব ,পবিত্র কোরানী শাষনের নামে অহেতুক হত্যাকান্ড,আত্মঘাতী যা সব ধর্মের জন্য ঘৃনিত অপরাধ, এই সব করে আর এই জন্য এদেরি এটি নিষিদ্ধ করা খুবই প্রয়োজন।অতচ তাদের নেতারা ধর্ষক অবস্তানে থেকেও তাদেরকে পীর মেনে আসছে ,যেন অসুরের নেতা অসুর.. আর এটি হচ্ছে তাদের আসুর ভিত্তিক রাজনীতি।।

পরান আমার শাহবাগে এখন যেন মরে ও শান্তি পাব

শাহবাগ সে যেন পরানের পরান ,আমি তো জানি না রাজনীতি শুধু ভালবাসতে জানি দেশ ও মানুষকে।
যারা ভালবেসেছে তারা সবাই এসে মিলেছে শাহবাগে ,পরান চত্বরে এই ভালবাসা মানুষে মানুষে যার বিবেক জাগ্রত হয়েছে, জাগ্রত হয়েছে যার চেতনা-অনুভূতি।আজ বড় আনন্দের দিন সে কতদিন পরে দেখেছি মানুষের ডাক,এত দিন জানতাম মানুষ তার হারিয়েছে..
তা আজ মিথ্যে হয়ে গেল,,,
মানুষের ডাকে মানুষ এ সেছে .......তাই যত পশু ছিল তারা গেল তলিয়ে।
জয় শাহবাগ,জয় পরান,জয় হোক ভালবাসার।।

কাফন কোরতা

দ্বীপ নিভে নিভে,অশান্ত মন-কুয়াশাচ্ছন্ন হৃদয় কিছু বলতে চাইঃ
মানুষ তার বিবেককে ঠাই দিবে কোথায়?কারও জানা নেই।।
এই রকম রাই বাংলাদেশ সরকারের কাপুরুষতার লক্ষণ নয়কী?
কাদের ও কিসের জন্য ভয়????
আমরা প্রস্তুত, রক্তের উচ্ছাসে বাঁধ ভাঙ্গাব ,
অসীম জোয়ারে তলিয়ে নিব সব বাঁধা।।
বাংলাদেশে থাকবেনা আর রাজাকার আলবদর,
থাকবেনা সেই রাজ কদর।।

বাংলাদেশ তোমাই করি নত শির।

ভালবাসার তাগিতে বিশ্ব খুজিছে বাংলাদেশ তোমায়,
আবেগ নয় পেয়েছি জাগরণ ভালবাসার অনুভূতি।।
বিশ্ব তোমায় করিবে সালাম,
দ্রোহীরা দেখি তাহা লজ্জাই নত করিবে শির ।।
আর নয়,সময় আর নেই হাতে চলিতে হবে তন্দ্র রাতে ,
লীগ,দল,জামায়াত অনেক খেয়েছিশ লুটেছিশ।।
বিশ্বাস সবি ধংস করেছিস,জনগণ আমরা জেগেছি।
ভোগ ছাড়ি, লাথি মারী, করিব সংহার - জেগেছি আমি জনগণ।।
কোন এক অনাঙ্কাখীত বিদ্রোহীর মাঝে হইতে বেড়ে ওঠা একটি শিশুর
রক্তচালিকা হৃৎপিন্ড কাপছে তাই দিকে দিকে বিদ্রেহীর কম্পন বাংলাদেশ বলছে।।