ইউজার লগইন

শিশুর সাথে কখনই এই কাজটি করবেন না...

যদি পড়বার মুড না থাকে তবে এই পোষ্টটির একটি পডকাষ্ট পাবেন এখানে অন্যথায় পড়া চালিয়ে যান।

আমার এই লেখা শিশুদের জন্য নয়, বড়দের জন্য। যারা শিশুদের সাথে ভুল করে নানা সময় অন্যায় করি। ক্ষতি করি আমাদের প্রিয় সন্তানদের, ভাগ্নে-ভাগ্নীদের, ভাতিজা-ভাতিজীদের...

আমরা অনেকেই শিশুকে ক্ষেপাই এই ধরনের কথা বলে:
আমরা: সুনাতা তুমি পঁচা
সুনাতা: না আমি ভালো
আমরা: না তুমি খুবি পঁচা
সুনাতা (কাঁদো কাঁদো স্বরে): না আমি ভালো তো
আমরা: তাহলে তোমার আব্বু পঁচা।
সুনাতা (চোখে পানি এসে গেছে): আমার আব্বুও ভালো।
আমরা: তবে তোমার আম্মু পঁচা।
সুনাতা (কান্না শুরু হয়েই গেছে): আম্মুও অনেক ভালো।
আমরা: তুমি পঁচা, পঁচা পঁচা...

এইভাবে চলতে থাকে ঐ শিশুটির প্রতি আমাদের অত্যাচার। আমরা কথাগুলি হাসতে হাসতেই বলি আর তাই ঐ শিশুটির বড়রা এটাকে কিছুই মনে করেন না। (আমরা বড়রা হয়তো তখনি রাগি যদি বড় কেউ আমার শিশুকে অযথা মারে। কিন্তু শুধু কিছু আচরনের দ্বারাও যে একটি শিশুর ক্ষতি হয় সেটা আমরা বড়রা বুঝিনা বলে আমরাও পঁচা পঁচা কথার সাথে হাসি) কিন্তু আপনারা কি জানেন একটি শিশুকে কখনই ক্ষেপানো উচিত নয়? একটা শিশুকে কখনই খারাপ গুনে ডাকা ঠিক নয় এবং তার কাছের জনদেরকেও কখনই খারাপ বলতে হয়না।

একটি শিশু জন্মের পর থেকে তার মা-বাবা (ও আরো আত্নীয়কে) কে খুব কাছে থেকে দেখে। সে বুঝে যায় যে, এনারা আমার নিরাপত্তা দেন, এনারা আমার ক্ষুধায় খাবার দেন, অন্ধকারেও এনাদের কথা শুনতে পাই, আমি কাঁদলে এনারা ছুটে আসেন, আমার অসুস্থতায় এনারা পাশে থাকেন আর তাই এই খুব ভালো লাগা মানুষদেরকে যখন আমরা পঁচা বলি, একটি শিশু হিসাব মেলাতে পারেনা একদম। তারকাছে কথাগুলি হজম করতে খুব কষ্ট হয়। আর তাই অতি নিমেষেই ঝর ঝর করে কেঁদে ফেলে।

দোহাই আপনাদের যারা যারা এই লেখা পড়লেন, আর কখনই কোন শিশুকে এইভাবে ক্ষেপাবেন না। এভাবে ক্ষেপিয়ে মুলত আপনি নিজেই ঐ শিশুটির অপ্রিয় পাত্র হবেন। আপনার আপনজনদেরকে এই ব্যাপারটি জানান। শুধু একটি বার ভেবে দেখেন যে, এই প্রাপ্ত বয়স্ক বয়সে যদি আজ আমাকে কেউ আমার পিতা-মাতার চারিত্রিক কোন মারাত্নক দোষের ঘটনা তুলে ধরে তবে আমার কেমন লাগবে! ঠিক তেমনি লাগে একটি শিশুর কাছে যদি সে তার মা-বাবাকে পঁচা বলে কেউ। কেবল মাত্র 'পঁচা' শব্দটাই তার কাছে যথেষ্ট ঘৃন্য একটি শব্দ।

নোট: আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি এই জন্য যে এই লেখা আমি অন্যান্ন ব্লগেও পোষ্ট করেছি এবং এটা দিয়েই পোষ্ট শুরু করলাম আমরা বন্ধুতে। আসলে আমি মনপ্রান থেকে চাই যেন আমরা শিশুদের প্রতি আরো যত্নবান হই আর তাই চাই বড় জনগষ্ঠিকে সচেতন করতে।

পোস্টটি ৯ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

রশীদা আফরোজ's picture


স্বাগতম এবি-তে।
শিশুদের কখনোই নেতিবাচক কিছু বলা ঠিক না।
লেখাটির জন্য ধন্যবাদ।

জ্যোতি's picture


গ. "আমরা বন্ধু" তে শুধু নতুন লেখাই প্রকাশিত হবে। পুরনো লেখা রিপোস্ট করা যাবে না। অন্য কোনো কম্যুনিটি ব্লগে প্রকাশিত লেখা এবিতে প্রকাশ নিষিদ্ধ। এবিতে প্রকাশিত কোন লেখা ৪৮ ঘন্টার মধ্যে অন্য কোনো কমিউনিটি ব্লগে প্রকাশ করা যাবে না। ব্যক্তিগত ব্লগ এবং পত্রিকা এই নিয়মের আওতার বাইরে।

নিয়ম ভেঙ্গেই প্রথম পোষ্ট দিলেন?এ বি তে আমরা নতুন পোষ্ট আশা করি।আর ব্লগারদের ব্লগের নিয়ম মেনেই পোষ্ট দেয়া উচিত।

সাহাদাত উদরাজী's picture


পোষ্টটা থাকুক। অত্যন্ত ভাল পোষ্ট। আমাদের জানা দরকার আছে। সমাজে শিশুদের সাথে এমন বাজে ব্যবহার করার অনেক লোক আছে। শিবলী মেহেদী ভাইয়ের পুরা 'পডকাষ্ট' টা শুনে দেখেছেন কি?

নাজমুল হুদা's picture


শিবলী মেহেদী, আমরা বন্ধুতে স্বাগতম । নিয়ম ভেঙ্গে এলেন এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট নিয়ে, যা প্রত্যেকের জানা উচিত । নতুন নতুন পোস্ট আশা করছি আপনার কাছ থেকে ।

সাহাদাত উদরাজী's picture


ভাল লাগল। দুষ্ট প্রকৃতির মানুষের মাথায় হিট লাগলে হয়!

মডারেটর's picture


নোট: আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি এই জন্য যে এই লেখা আমি অন্যান্ন ব্লগেও পোষ্ট করেছি এবং এটা দিয়েই পোষ্ট শুরু করলাম আমরা বন্ধুতে। আসলে আমি মনপ্রান থেকে চাই যেন আমরা শিশুদের প্রতি আরো যত্নবান হই আর তাই চাই বড় জনগষ্ঠিকে সচেতন করতে।

নীতিমালা মেনেই আমরা বন্ধুতে জয়েন করেছেন। সেটার প্রতি সন্মান দেখানোও আপনার দায়িত্ব। আশা করছি শিশুদের প্রতি আমাদের আচরন নিয়ে নতুন নতুন লেখায় ব্লগারদের সচেতন করবেন।

স্বাগতম আমরা বন্ধু ব্লগে

সাহাদাত উদরাজী's picture


কঠিন মডু ভাই দেখছি। ঘুরিয়ে নুতন পোষ্ট নিয়ে আসুন।

আপনি ভাল মানুষ, ফিরে আসুন।
আমরা বন্ধুতে আপনার জয় হউক।
শুভ কামনা।

শিবলী মেহেদী's picture


নিয়ম ভাংগা আমার একদমই উচিত হয়নি এবং আমি আর এই কাজ করবোও না। (তবে এই লেখাটি অন্য ব্লগে পোষ্ট করেছিলাম অনেক অনেক আগে)। আসলে আমি শিশুদের প্রতি একটু বেশি সেনসেটিভ্‌ আর এও জানি যে অনেকেই এই বিষয়ে সচেতন নন। আর তাই এই পোষ্টটিই দিলাম।

কিন্তু এই প্রসংগে একটা কথা না বলেও পারছিনা। আমি অনেকটা ইচ্ছা করেই নিয়মটা ভংগ করেছি। আমার উদ্দেশ্য ছিলো যে আপনারা কেমন রেসপন্স করেন। বিশ্বাস করুন, বিগত ২-৩ সপ্তাহে আমি আরো কিছু ব্লগ ও ফোরামে যোগ দিয়েছি। প্রথমত সকল নিয়ম একজন নতুনের পক্ষে মনে রাখা সম্ভব হয়ে উঠেনা। তারপর নতুন বলে কথা। আবার এক এক সাইটের পোষ্ট করার ধরনও এক এক রকমের। যাই হোক, অন্য বাংলা ব্লগে সামান্য নিয়ম ভংগের (আমার বিবেচনায় সেটা আদৌ বড় অপরাধ ছিলোনা, আর সকল নিতিমালার চাইতে) কারনে রিতিমত গালাগালি শুনতে হয়েছে। আমি অবাক হই, মানুষ এতোটাই অস্থির হয় কেমন করে! আর মানুষ কেনই বা এভাবে গালাগলি করে!

আপনারা অন্তত কেউ আমাকে গালি দেন নাই। ইন্টারনেটে গালি দিতে ১ সেকেন্ডও লাগেনা। আর এইটাই আমার অনেক ভালো লেগেছে! আমি ইচ্ছাকৃত নিয়ম ভংগ করবোনা আর। তবে ভুল করে ফেললে দয়া করে এভাবেই (গালাগালি না দিয়ে) শুধরিয়ে দেবেন। আর তারপরও যদি একই ভুল করতেই থাকি তবে ব্যান করে দিয়েন বিনা নোটিসে। Smile

শিবলী মেহেদী's picture


ভালো কথা, আমি অবশ্য খেয়াল করেছি যে আমাকে অলরেডি শাস্তি দিয়েছেন। মানে এই পোষ্ট টি প্রথম পাতা থেকে সরিয়ে ফেলেছেন। Smile মাথা পেতে নিলাম।

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা