ইউজার লগইন

বইমেলা কাহানী...

আমার প্রায় প্রতিদিনই বই মেলায় যাওয়া হয়েছে। কোনো কোনো দিন আড্ডাবাজ কাউকে না পেয়ে শ্রেফ একটা চক্কর মেরেই চলে এসেছি। অফিস থেকে ৬ টা নাগাদ বেরিয়ে নিউমার্কেট, নীলক্ষেত পেরিয়ে টিএসসিতে হিমু মটর সাইকেলটা রেখে মেলায় ঢুকে যাই। নজরুল মঞ্চ পার হয়ে তথ্য কেন্দ্রকে বায়ে রেখে লিটল ম্যাগ চত্বরে ঢু মারি। তারপর আড্ডা উড্ডা মেরে মেলা ঘুরে আটটা নাগাদ ছবির হাঁটে ফিরে আসি। ওখানে আমার বন্ধুরা সরাতে আর কাগজে ছবি আঁকে। সেসব ছবি বিক্রীর টাকাতে ওরা ঘুড়ি উৎসবের যাবতীয় খরচ যোগাবে। কত কর্পোরেট কোম্পানি আমাদের ঘুড়ি উৎসবটাকে স্পন্সর করতে চায়...। আমরা রাজী হই না। কত কষ্ট করে নিজেরা চাঁদা দিয়ে ঘুড়ি উৎসবটা করি আমরা। ঘুড়ি বানানোর সরঞ্জামাদি কেনার টাকা, তারপর নিজেদের যাওয়া-আসা-থাকা-খাওয়া এসবের টাকা যোগাড় করতে যেয়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি বন্ধুরা পালা করে কাজ করে যায় ছবির হাঁটে। থাকনা, আমাদের নিজের বলে কিছু জিনিস ! এখন তো বৈশাখ, ভালোবাসা আর ১ ফাল্গুন- সবই এক একটা কর্পোরেট দিবস। এমনকী, বদলে যাবার শপথ নেয় যে পত্রিকা তাদের শপথের সমাপনী অনুষ্ঠানটাও কক্সবাজারে কোনো এক বহুজাতীক কোম্পানির সৌজন্যে হয়...। এসব দেখে আমার আর আমার বন্ধুদের কষ্ট হয়...

যাই হোক, ধান বানতে শীবের গীত গেয়ে ফেল্লাম। মার্জনা চাই। যা বলছিলাম, কাল শুক্কুরবার ঠিক দুপুরের পর পরই ছেলেকে নিয়ে চলে যাই বই মেলায়। যদিও সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১.৩০ পর্যন্ত ছিলো শিশু এবং মহিলাদের জন্য বিশেষ সময়। বিকেলের দিকে বেজায় ভিড় ঠেলে অনেকই যেতে পারেনা। সকালে যাবার ইচ্ছে ছিলো। পারিনি। ফেব্র“য়ারি মাসে যে কটা শুক্কুরবার গেছে- সব কটাতেই আমি ব্যস্ত ছিলাম। অফিসের পিকনিক, এবি’র পিকনিক ইত্যাদি কারনে। তো, আমার স্ত্রী অতীব গম্ভীর স্বরে আমাকে কদিন থেকে বলে আসছেন, ঘরে সব খাদ্যদ্রব্য বাড়ন্ত। আমার সময় থাকলে যেনো আসছে শুক্কুরবার সদাইপাতি করে ফেলি। আপনারা অবগত (অনেকেই) আছেন যে, আমার স্ত্রী ইদানীং ক্যাঙারু হয়েছেন... (বিস্তারিত না বলি)। সে কারনে আমার শ্বাশুড়ী নিজের বাসা ছেড়ে মেয়ের বাসায় অবস্থান করছেন। সুতরাং ছুটির দিনের ঘুমের নিকুচি করে আমি সকাল ৯ টার মধ্যে বাজারে গেলাম। ১১ টা নাগাদ ফিরে আসলাম। মটর সাইকেল পরিস্কার করলাম। ১২ টা বাজলো। ছেলেকে নিয়ে নামাজে গেলাম (জুম্মার নামাজ বলে কথা)। ১.৪৫ মিনিটে বাসায় ফিরে দুপুরের খাবার খেলাম এবং বাপ-ছেলে মিলে মটর সাইকেলে দাবড়িয়ে বই মেলায়।
ছেলের পছন্দের গোটা দশেক বই কিনলাম। জাফর ইকবাল স্যারের একটা উপন্যাস (যা আমার অসম্ভব পছন্দের) আমার বাসা থেকে হারিয়ে গেছে। সম্ভবত ১৯৯৪ সালে কেনা। জাফর স্যারের অটোগ্রাফ দেয়া বই। হারানোর পর বইটা অনেক খুঁজেও আর পাইনি। প্রতি বছর মেলাতে খুঁজি। কাল পেয়ে গেলাম। কিনে নিলাম, দুঃস্বপ্নের দ্বিতীয় প্রহর। নুশেরার বইটা নিলাম। আমাদের পুরোনো বন্ধূ মাইনুল.এইচ সিরাজীর প্রথম উপন্যাস বেরিয়েছে- সেটি নিলাম। ঘন্টাখানেক বাদে মেলায় পঙ্গপালের মত মানুষ ঢোকা শুরু হলো। ছেলের চাপাচাপিতে বেরিয়ে এলাম। বইমেলা থেকে টিএসসি হেঁটে মটর সাইকেলে চড়ে বাপ বেটা ছবির হাঁটে। আঁকা আঁকিতে বেজায় আগ্রহ ছেলের। কে কারনে আর্ট স্কুলেও পড়ছে ৩ বছর থেকে। ছবির হাঁটে সবাই বন্ধু আমার। রোদ্দুরকেও চেনে সবাই। সরা আর রং তুলি নিয়ে বসে পড়লো ছবি আঁকতে। ক্ষাণিক ভাবলো। তারপর আঁকা শুরু করলো। এর মধ্যে একবার শুধু বললো, বাবা কিছু খাবো। পাশের দোকান থেকে ভাজা মাশরুম আর আরুর চপ এন দিলাম। খেলো। আবার আঁকায় মনোযোগ দিলো। নিচে সবুজ ভূমি, উপরে আকাশ। একটা বাচ্চা ছেলের হাতে নাটাই। আকাশে রঙ্গীন ঘুড়ি উড়ছে...। আঁকা শেষ হলো। আমাকে বললো,
ক্যামোন হয়েছে বাবা ?
খুব ভালো হয়েছে...।
শুধু আমি নই, আমার বন্ধুদের অনেকেও উৎসাহ দিলো। আমার মনটা কেমন উদাস হয়ে গেলো। তাকিয়ে আছি ছেলের দিকে। মনটা অন্য কোথাও। আমার পরানের গহীনের স্বপ্নগুলো ওর হাতের পরশে বিশাল আকাশে উড়িয়ে দিলো রোদ্দুর। কোনো কারন নেই, চোখটা ভিজে উঠলো...  

পোস্টটি ৬ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

নীড় সন্ধানী's picture


ঘুড্ডিবেলার কথায় মন খারাপ হলে দোষের কিছু নাই। আমার শেষ ঘুড়িটার কথা এখনো ভুলতে পারি না। Sad

টুটুল's picture


ভালো লাগা

হাসান রায়হান's picture


লাইক্কর্লাম। কেমনে কেমনে বয়স চলে‌‌্যায়। এইতো সেদিন ঘুড্ডি উড়াইতাম।

মেসবাহ য়াযাদ's picture


বয়সটারে যাইতে দিয়েন্না বস। বয়সতো শরীরে না, মনে...

হাসান রায়হান's picture


আজকেও চলেন বইমেলায়। জয়ি, টুটুল ও যাইতেছে।

মেসবাহ য়াযাদ's picture


আইতাছি

ভাস্কর's picture


আমিও আইতাছি তাইলে...

হাসান রায়হান's picture


দারুন Smile

নজরুল ইসলাম's picture


এইবারের ঘুড্ডি উৎসব কবে কোথায়?

১০

মেসবাহ য়াযাদ's picture


৫ মার্চ যাইবো প্রথম দল, যারা ঘুড়ি বানাইবো।

পরবর্তী  দল যাইবো ১১ মার্চ রাইতে, যারা ঘুড়ি উড়াইবো...

কক্সবাজারের  ইনানী বিচে এইবারের উৎসব, যাইবেন ?

১১

লোকেন বোস's picture


বইমেলার উপর নিয়মিতই একটা পোস্ট দিতে পারেন কিন্তু। অপেক্ষায় থাকলাম

১২

ভাঙ্গা পেন্সিল's picture


ঘুড়ি উৎসবে যাইতে মঞ্চাইলো Puzzled ওইদিন এক সিনেমায় দেখলাম নায়ক-নায়িকা বেলুনে , পেছনে ব্যাকগ্রাউন্ডে পুরা আকাশ জুড়ে রংবেরঙ্গের বেলুন। ঘুড়ি উৎসবও মনে হয় ঐরকম কিছু একটা হয়। দেখা হইলো না Puzzled

১৩

শাওন৩৫০৪'s picture


....ঘুড্ডি উৎসবে যাবার ইচ্ছা আমারো হৈলো....

 

রোদ্দুর  রে আদর, আর ভাবী ক্যাঙ্গারূ হবার শুভেচ্ছা জানইলাম....Smile

১৪

অদ্রোহ's picture


এই  মুহুর্তে পকেট গড়ের মাঠ,কাজেই বইমেলা থেকে আপাতত শত হাত দূরে আছি Cry..

১৫

সাঈদ's picture


ভাতিজার জন্য বিশেষ স্নেহ আর আদর রইলো। এক সময় আমিও আঁকা আঁকি করতাম তাই।

১৬

জ্যোতি's picture


কোনো কারন নেই, চোখটা ভিজে উঠলো...

১৭

মেসবাহ য়াযাদ's picture


Cry

১৮

শওকত মাসুম's picture


রোদ্দুরের  ভাইএর নাম কি হবে? এইটা আমার মাথায় খালি ঘুরতাছে। 

১৯

ভাস্কর's picture


আপনের কোন সাজেশন আছে? নাকি আমরা একটা নতুন পোস্ট নাজেল করুম?

২০

শওকত মাসুম's picture


নাজেল করেন, সাজেশন নাই। তয় রোদ্দুরের ভাইয়ের নাম সেরম হওয়া উচিৎ

২১

মুক্ত বয়ান's picture


বইন হইলে "বরিষণ" হইতারে!!! Innocent

২২

মেসবাহ য়াযাদ's picture


মেয়ের জন্য নাম ছিলো- রোদেলা, বিষ্টি, মেঘ, মেঘলা, গোধুলী, বরষা....

রোদ্দুরের পুরো নাম : সামিন মোহাম্মদ য়ানান (রোদ্দুর)

নতুনটার নামও ঠিক করা হয়েছে : রামিম মোহাম্মদ য়াযান.....

নিক নেমটা  দরকার... কেই কী হেল্পাইবেন ?

২৩

ভাস্কর's picture


আনকমন নাম হইলে বর্ষণ রাখবার পারেন...

ডেইট পড়ছে কোন মাসে? সেইটা জানাইলে আরো কিছু নাম প্রস্তাব করবার পারুম আশা রাখি...

২৪

মেসবাহ য়াযাদ's picture


ডাক্তার কৈছে ১ মার্চ ২০১০

২৫

ভাস্কর's picture


তাইলে চোখ নাক আর কান বুইজা ফাগুন রাইখা দিতে পারেন...বা বসন্ত...

২৬

মেসবাহ য়াযাদ's picture


বস, ফাগুন বিশেষ বিবেচনায় রৈলো... থ্যাংকু

২৭

মুক্ত বয়ান's picture


ঘুড়ি উৎসবে যাইতে চাই।
বিস্তারিত জানায়ে অবশ্যই পোস্ট  দিবেন। Smile

২৮

মেসবাহ য়াযাদ's picture


জানামু

২৯

ভাঙ্গা পেন্সিল's picture


বয়ান্দা, সামলাইয়া। তারিখটা দেখেন Wink

৩০

অদিতি's picture


মনটা কেমন যেন হয়ে গেল পড়ে।

৩১

নড়বড়ে's picture


জানি না কেন, লেখাটা খুব ভাল লাগলো ...

বইমেলার কথা আসলেই মনটা খারাপ হয়ে যায়, এত এত বছরের অভ্যাস ... বহু বহুদিন পরে বইমেলা যাচ্ছি না।

৩২

নুশেরা's picture


মিয়াবিবিকে অভিনন্দন। রোদ্দুরের ভাই সমুদ্দুর হতে পারে না?

চমৎকার লাগলো লেখাটা।
বইমেলা নিয়ে কেন যে আপনি সিরিজ করলেন না! Sad

৩৩

কাঁকন's picture


ভালো লাগলো লিখাটা

৩৪

নুশেরা's picture


মাইনুল সিরাজী এতোদিন পর প্রথম বই বের করলেন! কী খবর উনার, কোথায় আছেন এখন?

৩৫

মেসবাহ য়াযাদ's picture


সিরাজী কাপ্তাই কী একটা কলেজ পড়ায়... মাঝে মধ্যে কথা হয়

৩৬

মুকুল's picture


মাইনুল.এইচ সিরাজীর প্রথম উপন্যাসটা নোয়াখালী বইমেলাতেও আছে। মাইজদীতে ছোট পরিসরে এক

সপ্তাহব্যাপী বইমেলা চলতেছে।

৩৭

হাসান রায়হান's picture


আসল নাম যখন বিজাতীয় রাখছেন নকল নাম বাংলা রাখনের দরকরা কি। নাম রাখেন মোয়য্জিন।

৩৮

মেসবাহ য়াযাদ's picture


সামিন মোহাম্মদ য়ানান (রোদ্দুর) আর নতুনটার নামও ঠিক করা হয়েছে : রামিম মোহাম্মদ য়াযান..... এরমধ্যে আপনে বিজাতীয় পাইলেন কৈ ? আপনের সমস্যা কী ? আইজকা বৈ মেলায় পাইয়া লৈ...

৩৯

হাসান রায়হান's picture


য়ানান সামিল যায়ান এগুলিকি বাংলা না আরবি? আমরা কি আরবি জাতি?

৪০

জ্যোতি's picture


মারামারি করবেন?

৪১

জ্যোতি's picture


আপনেরে না কইছি রোদ্দুররে কইবেন ভাই এর নাম রাখতে, দেখেন না ভাতিজায় কি নাম রাখে ।লাগলে আপনে হেল্পান।

৪২

সাঁঝবাতির রুপকথা's picture


এইবার বইমেলায় যাই নাই, মানে মানে কইরা আরেকদিন কাটায়া দিতে পারলেই হইল, আর যাওয়া লাগবে না ...

৪৩

তানবীরা's picture


মন উদাস হওয়ার কি আছে মেসবাহ ভাই? যা আমরা পারিনি আমাদের সন্তানেরা তাইই পারবে, সেটাইতো আমাদের সুখ।

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

মেসবাহ য়াযাদ's picture

নিজের সম্পর্কে

মানুষকে বিশ্বাস করে ঠকার সম্ভাবনা আছে জেনেও
আমি মানুষকে বিশ্বাস করি এবং ঠকি। গড় অনুপাতে
আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি।
কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।
কন্যা রাশির জাতক। আমার ভুমিষ্ঠ দিন হচ্ছে
১৬ সেপ্টেম্বর। নারীদের সাথে আমার সখ্যতা
বেশি। এতে অনেকেই হিংসায় জ্বলে পুড়ে মরে।
মরুকগে। আমার কিসস্যু যায় আসে না।
দেশটাকে ভালবাসি আমি। ভালবাসি, স্ত্রী
আর দুই রাজপুত্রকে। আর সবচেয়ে বেশি
ভালবাসি নিজেকে।