ইউজার লগইন

শখৎ মামার চোখে কেন শসা দেয় না

bedeni

যদ্যপি আমার গুরু
শুঁড়ি বাড়ি যায়
তথাপি আমার গুরু
শ্রী নিত্যানন্দ রায়।

তারপরেও গুরুর ইদানিং কালের কার্যকলাপ আমাদের কেমন যেন এক চিন্তায় ফেলে দেয়। কিছুদিন আগেও যে কাজে তাকে নিয়ে চিন্তাও করা যেতনা বর্তমানে একটার পর একটা সেসব কাজ করে আমাদের ভাবনায় ফেলে দিচ্ছেন।

মাসুম ভাইয়ের এহেন পরিবর্তন নিয়া আমরা টাস্কিত। যারা গত বছর উনার পিকনিকের পারফরমেন্স সম্পর্কে সম্যক অবগত আছেন, এবছর অনুরূপ পারমেন্স না দেখে হতাশ হয়েছেন। কিন্তু কারণ কী এ হেন পরিবর্তনের?

উনি আগে কখনো কোনো ছেলের সাথে কোলাকুলির ধারে কাছে যেতেননা। রাসেলরা দুই একবার ট্রাই করলে বলতেন, দূরে গিয়া মর। কিন্তু কি আশ্চর্য্য! সেদিন দেখলাম মীরকে বুকে নিতে চাচ্ছেন।

তারপর ঐদিন বসুন্ধরায় দাদাভাই আইসা উনারে পিছনথিকা জড়ায় ধরল। অনেকক্ষণ ধরে রাখার পর ছেড়ে দিয়ে হাত পা ঝাড়া দিয়া বলে, এইবার চাঙ্গা লাগতাছে! মসুম ভাইরেও দেখলাম বেশ পরিতৃপ্ত চেহারা নিয়ে হাসছেন।

এদিকে পিকনিকের দিন তো আরেক ল্যাঠা। উনি আমাকে বললেন আসেন ঐদিকে যাই। আমি অনেক কষ্টে , ছেলেদের সাথে চিপায় যাই না এরম কী একটা বলে নিস্তার নিলাম।

তখনই মনে কিরাম একটা সন্দেহ দানা পাকায়া উঠতে লাগল। সেইটা পুরাপুরি ক্লিয়ার হইল পিকনিকের শেষে আইসা। পিকনিকে আসা এক যুবক উনাকে ধইরা প্রেমময় ডায়লগ দিতেছিল, আপনার জন্য, শুধুমাত্র আপনার জন্যই আমি পিকনিকে আসলাম। Oups

কী সর্বনেশে কথা!

এইবার একটা গল্প শুনেন। শফিক কাকার কাছ থেকে কেউ কেউ আগেও শুনে থাকবেন। না শুনলে ভালো শুনলে স্কিপ করে যাইয়েন।

এই গল্পের উনিও অর্থনৈতিক সাংবাদিক। নিয়ম হইছে নাকি এরম লোকদের শখৎ মামা ডাকার। ঠিকাছে, শখৎ মামাই বলি।

তো আমাদের শখৎ মামা একদিন প্রত্যুষে পার্কে গিয়েছেন হাটা, ব্যায়াম করে শরীর ঠিক রাখার জন্য। উইথ মামী। মামা বেঞ্চে বসে বিশ্রাম নিতেছেন। মামী অল্প দূরে হাটাহাটি করছেন। হঠাৎ এক ছিনতাইকারী এসে মামীকে চাকু ধরছে, সোনাদানা যা আছে বাইর করেন। মামী একটুও ঘাবড়ায় না গিয়ে বেঞ্চে বসা শখৎ মামাকে দেখিয়ে বললেন, 'আমার কাছে তো ওসব কিছু নাই, ঐযে ওনার কাছে ওসব আছে, সেগুলান নিয়ে যেতে পারেন। এখন আর সেসব কোনো কাজে আসছে না'।

পোস্টটি ৫ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

সাহাদাত উদরাজী's picture


প্রথম মন্তব্য করে গেলাম।
ছবিটা দারুন হয়েছে।
(হা হা হা হা)

নাজমুল হুদা's picture


মজারু পোস্ট । হাহাপগে । সুন্দর ছবি দিয়ে কিচ্ছার শুরু । ছবির সাথে কিচ্ছার সম্পর্ক বুঝতে ব্যার্থ হলাম । 'মাসুম' ছেলেটাকে উৎত্যাক্ত করার পিছনে রহস্য কি ?

হাসান রায়হান's picture


ছবির সাথে পোস্টের মিল নাই। আবার মিল করাও যায়। যেমন শুঁড়ি বাড়ি। Wink
মসুম ছেলেটা আমার ওস্তাদ। ওস্তাদ আমাকে নিয়া পোস্ট দিয়েছিল। তাই আমিও ওস্তাদকে নিয়া Smile

জ্যোতি's picture


মসুম নাকি মাসুম?

উলটচন্ডাল's picture


Rolling On The Floor Rolling On The Floor Rolling On The Floor Rolling On The Floor Rolling On The Floor Rolling On The Floor

জটিল

শাতিল's picture


তারপর ঐদিন বসুন্ধরায় দাদাভাই আইসা উনারে পিছনথিকা জড়ায় ধরল। অনেকক্ষণ ধরে রাখার পর ছেড়ে দিয়ে হাত পা ঝাড়া দিয়া বলে, এইবার চাঙ্গা লাগতাছে! মসুম ভাইরেও দেখলাম বেশ পরিতৃপ্ত চেহারা নিয়ে হাসছেন।

শাতিল's picture


গড়াগড়ি দিয়া হাসির ইমো হবে

হাসান রায়হান's picture


ঘটনা সত্য। এক চুলও বানায় বলি নাই।

শাতিল's picture


এই পোস্ট কি শখৎ মামার চোখে পড়ে নাই Wink

১০

শওকত মাসুম's picture


চুপচাপ পড়ে গেলাম, অসংখ্যবার Smile

১১

মীর's picture


পোস্ট-কমেন্ট এডিট কৈরে কিছুই আর রাখলো না।
মডুমামার ব্যঞ্চাই Crying
সিরিয়াসরকম ব্যঞ্চাই

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

হাসান রায়হান's picture

নিজের সম্পর্কে

অথচ নির্দিষ্ট কোনো দুঃখ নেই
উল্লেখযোগ্য কোনো স্মৃতি নেই
শুধু মনে পড়ে
চিলেকোঠায় একটি পায়রা রোজ দুপুরে
উড়ে এসে বসতো হাতে মাথায়
চুলে গুজে দিতো ঠোঁট
বুক-পকেটে আমার তার একটি পালক
- সুনীল সাইফুল্লাহs