ইউজার লগইন

--------------------

এই রাস্তাটা সোজা চলে গেছে এক সরলরেখার মত, দৃষ্টিসীমা যতদূর প্রসারিত, ততদূর রাস্তাটি কোনরকম বাঁক খায়নি। যেতে যেতে একসময় সরু হয়েছে, সরু হতে হতে একটা সুতোvর মত হয়ে ও মিশে গেছে অরণ্যের সবুজের সাথে। তারপর অরণ্য না রাস্তা- রাস্তা না অরণ্য আর কিছু বোঝা যায় না। দূরের নীল আকাশ, ঘন সবুজ আর স্লেটরঙা রাস্তাটা যেখানে মিলেছে দীর্ঘ সময় নিষ্পলক সেদিকে তাকিয়ে থাকলে ঘোরভাব আসে। সমস্ত অনুভূতিকে স্থবির করে দিয়ে সে ঘোরভাব শরীরে ক্রমে ঝিম্‌ভাব নিয়ে আসে। ঝিম্‌ঝিম্‌ ভাব যত বাড়তে থাকে আকাশ তত প্রকাণ্ড হতে থাকে নীল-সবুজাভ আর স্লেটরঙা এক প্যাস্টেল আকাশ।

দূরে কোথাও বাঁশী বাজছে। এ সেই সুর- যে সুরে মাতাল হতে হতে আমি একদিন একা একা বেরিয়ে পড়েছিলাম অনেক রাত্তিরে। পায়ের নূপুর খুলে রেখে সুরের উৎস সন্ধানে নিঃশব্দে আমি ঘর ছেড়েছিলাম। মায়াবী সে সুর আমাকে নিয়ে গিয়েছিল ততদূরে যেখান থেকে ফিরে আসা দুঃসাধ্য। কিন্তু তারপরও উৎসে পৌঁছুতে পারিনি,পাইনি সেই ঐন্দ্রজালিক সুরের সন্ধান। সেই যে বেরিয়ে আসা, তারপর ফিরবার জন্য কত পথে আমি ঘুরেছি, সেই বাঁশীর সুর আবার আমার কানে এসেছে আরও দূর থেকে। একসময় আমি হারিয়ে গেছি সেই অরণ্যে যার গহিন সবুজ হিমশীতলতা আমার পূর্ববৎ চলমান শরীরকে স্থির করে দিয়েছে। এখন আমি অর্ধেক মানবী আর অর্ধেক গাছ।

মাটির সাথে সেঁটে আছে আমার নিম্নাঙ্গ, পা দুটি ক্রমে একটি পা হতে হতে সেটি বৃক্ষের মূলে পরিণত হয়েছে। তারপর গভীরে আরও গভীরে প্রোথিত হয়েছে সেই মূল আর বৃক্ষের কান্ডের মতো আমার শরীর স্থির দাঁড়িয়ে আছে শুধু এক নারী অবয়ব নিয়ে।

আমি দেখি একটা সোজা স্লেটরঙা রাস্তা সোজাসুজি কোথাও বাঁক না খেয়ে মিশে গেছে অরণ্যের সবুজের সাথে। আমি দেখি সবুজ মিশেছে আকাশের উজ্জ্বল নীলের সাথে। তিনটি রঙ মিলে মিশে কেমন রঙের বন্যা বইয়ে দিচ্ছে দেখতে দেখতে আকাশ আমার কাছে আসে, মস্ত বড় আকাশ আমাকে হাঁ করে গিলে ফেলতে আসে। আমি পিছোতে চাই পারি না, আমি এগুতে চাই পারি না। আমি চিৎকার করে বলতে চাই, আমাকে অন্তত নিজের মত করে বাঁচতে দাও..........

আমার ভিতর থেকে উঠে আসা শব্দরা ঘুরপাক খেতে খেতে একসময় তলিয়ে যায় আরও গভীরে।

পোস্টটি ৪ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

শওকত মাসুম's picture


হুমমম

মেঘ's picture


---- হুম।

শাওন৩৫০৪'s picture


সোজা এক রাস্তা---------------------------------------

মেঘ's picture


-------------------- সোজা-----
শাওন কেমন আছেন?

মীর's picture


যেই না আমি ঠোঁট নেড়েছি
সেই কথাটা তলিয়ে গেলো
এ সময়ের সপ্ততলায়

মেঘ's picture


বাহ্!! দারুণ!

মীর's picture


আসলেই। মৌসুমী ভৌমিক সবসময়ই দারুণ।

মেঘ's picture


একদম ঠিক।

নজরুল ইসলাম's picture


অদ্ভুত সুন্দর লিখেছেন।
দারুণ লাগলো

১০

মেঘ's picture


ধন্যবাদ নজরুল।
এখানে খুব কম আসা হয় যে কারণে আমি নতুন। হয়ত আমার লেখা লোকে কম পড়বে চেনে না বলে। তবে খুব ভালো কিছু আমি লিখিও না। নিজে যখন পড়ি কেবলই মনে হয় ঘুরে ফিরে কেমন যেন এক ধরণের লেখা হয়ে যাচ্ছে।

ভালো থাকবেন।

১১

সাঈদ's picture


ভালো লাগলো ।

১২

মেঘ's picture


ধন্যবাদ সাঈদ। ভালো থাকুন।

১৩

নাহীদ Hossain's picture


বাহ্‌ দারুন ......

১৪

মেঘ's picture


নাহিদ, ভালো থাকবেন। পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

১৫

তানবীরা's picture


লেখাটা ভালো লেগেছে

১৬

মেঘ's picture


ধন্যবাদ তানবীরা।

১৭

হামিদা's picture


অদ্ভুত সুন্দর মেঘ

ভালো থাকুন

১৮

মেঘ's picture


আরে! পড়া লেখায় আপনি আবার কমেন্ট করেছেন দেখছি।
ভালো থাকবেন আপনিও। Smile

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.