ইউজার লগইন

ছবি ব্লগ: পদ্মার বুকে

আহমাদ মোস্তফা কামাল ভাইয়ের কথায় ছবির গল্প নিয়া পোস্ট দেয়ার আইডিয়া মাথায় আসল। গত ফেব্রুয়ারিতে আমার প্রাক্তন অফিসের ডাচ মালিক কেইস নেইবার বাংলাদেশে আসলে তাকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার কথা হয়। আমার প্রস্তাবে ঠিক হয় পদ্মায় যাওয়া। এর কয়দিন আগে সাঈদদের সাথে গিয়ে প্রেমে পরে গেছি এযায়গার।
case
কেইস নেইবার। যার জন্যই এই ভ্রমন।
s
মানিকগঞ্জের ভিতর দিয়া যাওয়া, পথে পরে একটা ফেরি। নদীর নাম সম্ভবত বংশী।
dc
সকাল বেলা নদীর ঘাটে গায়ের বধুঁ।
d
চরের উপর দিয়ে হেটে নদীর দিকে যাওয়া।
d
ঘাটে বাধাঁ ছিল তরণী।
d
একটা ট্রলারে করে পদ্মার বুকে ভেসে যাওয়া।
d
নদীতে ঘের দিয়ে মাছ ধরার ফাঁদ।
b
নৌকাতে থাকা নৌকাতেই রান্নাবান্না।
s
ট্রলারের মাঝির পরামর্শে, খোঁজ নেয়া তাজা মাছ পাওয়া যায় কীনা । পরে অবশ্য আমরা নদীর মাঝে ইলিশ ধরা জেলেদের কাছ থেকে দুইটা বড় ও দুইটা ছোট ইলিশ কিনি। পরে গঞ্জের এক হোটেলের রাধুনিকে দিয়ে সেগুলো ভাজা করে খাই। Smile
s
তারপর চরে নৌকা ভিরিয়ে পানিতে হাটা। হঠাৎ দেখি কেইস পানিতে কী যেন করে। মাছ ধরে নাকি? না, মোবাইল পরে গেছিল।
ss
সে এক অদ্ভূত সুন্দর নির্জন স্থান। দুই পাশে নদী মাঝখানে ধুধু চর। নেই কোনো মানুষ। কিন্তু বসে আছে দুই একটা ভুবন চিল। আমরা হাটতে থাকি অপার আনন্দে।
s
পদ্মায় গোসল না করলে কি হয়! মাঝির থেকে লুঙ্গি ধার করে দেয়া হয় বিদেশিকে।
h
মাল বহনের জন্য ঘোড়ার গাড়ি ব্যাবহার হয় এই এলাকায়।
b
খেজুড়ের রসের প্রতি আমাট ফেসিনেসন আছে। কিন্তু বছরের পর বছর শীতকাল চলে যায় রস খাওয়া হয়না আমার! ফেরার পথে পেয়ে গেলাম হাড়ি সহ খেজুড় গাছ। আর তখনই যেন ছবির জন্য পোজ দিতে উড়ে এসে বসল শালিক দুটি।
d
হাতে বইখাতা নিয়ে পড়ন্ত বিকালে ওরা হয়ত ফিরছে ক্লাস করে।
s
সর্ষে ফুলের মৌসুম ছিল তখন শেষের দিকে।
h
গঞ্জের স্কুলের মাঠে কাঠের আসবাবপত্রের হাট।
s
সূর্য তখন অস্তাচলে যাওয়ার অপেক্ষায় আর তারপর আমরা ফিরি আমাদের ডেরায়।

পোস্টটি ৮ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

অতিথি's picture


ইস কবে যে আপনার মতন ছবি তুলতে পারবো ওস্তাদ।

জ্যোতি's picture


কি দারুণ জায়গা! কি অসাধারণ সব ছবি। জট্টিল।
আমাদের নেন নাই, তাই মাইনাস।

বিষাক্ত মানুষ's picture


জোশ জায়গা মনে হৈতাছে ।

চলেন আম্রা আম্রা যাই একবার

জ্যোতি's picture


প্রস্তাবে ভোট দিলাম।

মাহবুব সুমন's picture


টিপ সই আম্মো দিলাম

রাসেল আশরাফ's picture


যাইতে পারুম না তাই বলে ভোট দেয়া যাবে না এমনতো না।

দিলাম ভোট। টিপ সই

টুটুল's picture


টিপ সই

রাসেল আশরাফ's picture


১১ নং ছবি দেখে মনটা হু হু করে উঠলো। Sad Sad

টুটুল's picture


একমত

১০

উচ্ছল's picture


টিপ সই

১১

লিজা's picture


সুন্দর দৃশ্যপট !!

১২

লীনা ফেরদৌস's picture


হিিব্ব হইছে Steve

১৩

সামছা আকিদা জাহান's picture


পদ্মার ঢেউরে------- রাজশাহীর পদ্মা নদীতে অনেক গেছি । খুবই সুন্দর ছবিগুলি।

১৪

চাটিকিয়াং রুমান's picture


দারুণ হয়েছে ছবিগুলো।

১৫

বাফড়া's picture


কিছুদিন আগে যমুনা নদীর চরে গেছলাম.। টাংগাইলের ঐদিকে Smile.। রাটের বেলা.। চাদ ছিলনা.। চাদ থাকলে আরো জমত... লাংগলবন্দের ঐদিকে নদীর উপর ছিলাম রাতের বেলা.. চাদ ছিল.। সেইরকম পরিবেশ Smile..।

স্কুল শেষে সাইকেলে করে বাড়ী ফেরা.। তাও আাবার এইরকম রাস্তা দিয়া... পুরা মাস্ত..

১৬

নাজমুল হুদা's picture


পদ্মায় এমন জলযানেও যাত্রী বহন করা হয়, আপনার চোখে পড়েনি ? সবুজ চর নদীকে খণ্ড-বিখণ্ড করে ফেলেছে । নৌকাটা যাচ্ছে ঘোলা পানির উপর দিয়ে, নদীর যে অংশ দূরে দেখা যাচ্ছে সেখানকার পানি স্বচ্ছ, উপর থেকে দেখলে নিচে অনেকদূর পর্যন্ত নজরে আসে ।

DSC02757a.jpg

আপনার এত সুন্দর ছবির মাঝে আমার আনাড়ি হাতের ছবি লজ্জ্বা পাবে, তবুও কেন যেন পদ্মা নামটি আমাকে এই দুঃসাহসিক কাজে টেনে নিয়ে এলো ।

১৭

টুটুল's picture


চমৎকার হইসে হুদা ভাই...

১৮

নাজমুল হুদা's picture


THNX

১৯

লীনা দিলরুবা's picture


দারুণ ছবি!

২০

মাহবুব সুমন's picture


লুঙি পড়া সাহেব দেখতে মজা

২১

মীর's picture


ভাইএর এই পোস্টটায় কি যে করতে ইচ্ছা করতেসে সেটা লিখে বোঝাতে পারছি না। শুধু একটা কথা বলতে পারি। রায়হান ভাইএর যে কাজটি সবচে' ভালো পাই- তাকে পোস্টাতে দেখা। Smile

২২

তানবীরা's picture


হাতে বইখাতা নিয়ে পড়ন্ত বিকালে ওরা হয়ত ফিরছে ক্লাস করে

এই ছবিটা মন কাড়া। অতীব সৌন্দর্য মেজর

২৩

মেসবাহ য়াযাদ's picture


আফসুস

২৪

রুধীন's picture


অনেক সুন্দর!!

২৫

অতিথি's picture


আমি ছবি গুলো দেখতে পারছি না। বরফের ভিতর একটা ব্যাঙ! নীচে লিখা ডোমেইন আন রেজিস্টার্ড! কাকে রেজিঃ করতে হবে!

ছবি গুলো দেখতে চাই।

২৬

মীর's picture


আপনি কে?

বরফের ভিতর একটা ব্যাঙ! নীচে লিখা ডোমেইন আন রেজিস্টার্ড!

Big smile Big smile

২৭

মীর's picture


রায়হান ভাই লাস্টে এসে সবার মন্তব্যের একটা গণউত্তর দিয়ে যাবে Stare Stare
মানি না মানি না

২৮

হাসান রায়হান's picture


হা হা । ইজি কাজে বিজি ছিলাম। Smile

২৯

আহমাদ মোস্তফা কামাল's picture


এটা কি মানিকগঞ্জের হরিরামপুর এলাকা? দেখে সেরকমই মনে হচ্ছে, যদিও ওদিকটায় যাওয়া হয় না বহুদিন! যদি হরিরামপুর হয়ে থাকে তাহলে... ওখানে আমার বাড়ি ছিল, পদ্মার গ্রাসে বিলীন হয়ে গেছে, তারপর আবার চর জেগেছে! আপনারা হয়তো আমার পূর্বপুরুষের ভিটে থেকে বেড়িয়ে এসেছেন! এরপর ওদিকটায় কখনো গেলে আমার জন্য একমুঠো একমুঠো মাটি নিয়ে আসবেন রায়হান ভাই।... আমার তো যাওয়া হয় না, গেলে বড়ো মন খারাপ লাগে...

৩০

আহমাদ মোস্তফা কামাল's picture


ও হ্যাঁ, বলা হয়নি - ছবিগুলো দুর্দান্ত! পোস্টের জন্য ধন্যবাদ...

৩১

জুলিয়ান সিদ্দিকী's picture


ধইন্যা পাতা

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

হাসান রায়হান's picture

নিজের সম্পর্কে

অথচ নির্দিষ্ট কোনো দুঃখ নেই
উল্লেখযোগ্য কোনো স্মৃতি নেই
শুধু মনে পড়ে
চিলেকোঠায় একটি পায়রা রোজ দুপুরে
উড়ে এসে বসতো হাতে মাথায়
চুলে গুজে দিতো ঠোঁট
বুক-পকেটে আমার তার একটি পালক
- সুনীল সাইফুল্লাহs