ইউজার লগইন

হাসান আদনান'এর ব্লগ

দ্বিজ

দ্বিজ

হাসান সাহেবের ভুরু সামান্য কুঁচকে আছে - সচরাচর এমন হয়না - তিনি আদ্যন্ত সংযত মানুষ - বিরক্তি বা রাগ সহজে প্রকাশ করেন না - কিন্তু আজকের বিকেলটা ভিন্ন - সামনের সোফায় আসীন যুবক তাকে অস্বস্তিকর বিরক্তিতে ফেলে দিয়েছে - যদিও যুবককে তিনি নিজেই আসতে বলেছিলেন.

ঘটনার সুত্রপাত তার কনিষ্ঠা কন্যাকে নিয়ে - এই মেয়েটি তার বড় আদরের - পুরো নাম তানিয়া ইসলাম - পিতৃস্নেহে সেই নাম তার কাছে কখন যেন তানি হয়ে গেছে - ভার্সিটি পড়ুয়া মেয়ে - মেধা জেদ আর সৌন্দর্য তিনটি জিনিসই মেয়েটির মধ্যে প্রবলভাবে আছে - যদিও কখনো প্রকাশ করেন না - তবু বোঝা যায় - এই মেয়েকে নিয়ে হাসান সাহেবের মনের গভীরে গোপন এক ধরনের অহংকার আছে.

মাননীয়া - শুধু স্তাবকদের জন্য নয় - আপনার মূল্যবান কর্মঘন্টার কিছু অংশ অনুগ্রহপূর্বক সমালোচকদের জন্য ও বরাদ্দ রাখুন

মাননীয়া - শুধু স্তাবকদের জন্য নয় - আপনার মূল্যবান কর্মঘন্টার কিছু অংশ অনুগ্রহপূর্বক সমালোচকদের জন্য ও বরাদ্দ রাখুন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,

জাতি হিসেবে নিশ্চয় আমরা বিস্মৃতিপ্রিয় - আমাদের জ্ঞান গম্যি আর সাধারণ বোধ (কমন সেন্স) নিয়েও হয়ত কথা থাকতে পারে - কিন্তু একখানা জায়গায় আমরা হিমালয়ের মতই অটল - মহাসাগরের মত অতল - সে এক মহার্ঘ্য অনুভূতি - সে আমাদের মানবতাবোধ - প্রাণ যায় যাক - তবু এই প্রশ্নে কোনো আপোষ নাই - সেই আপোষহীনতার জায়গা থেকেই লিখছি আপনাকে.

আমি দুর্মুখ - সুশীলের শ্লীলতাহানিতেই আমার সুখ

জানি না কোন সে মহামন্ত্র - কোন সে দৈবজ্ঞান - যাহার বলে তাহারা বিশিষ্ট হন - জন্মাবধি তিন দশকে যাহা বলিতে পারি নাই - এক দিবসেই তাহারা তা বলিয়া ফেলেন - কী বোর্ডে শত ঠোকাঠুকি করিয়া ও যাহা লিখিতে পারি নাই - কলমের এক খোঁচাতেই তাহারা তা বিধৃত করিয়া ফেলেন - সমাজ জাতি ধর্ম সবই যেন নগণ্য - যুগলব্ধ তাপসেরা যেন কীটানুকিট - সত্য শুধু তাহারাই - শির শুধু তাহাদেরই উচ্চে - তাহারা বলিবেনই - তাহাদের কলম লিখিবেই - তাহাতে যদি আম জনতার হৃদয়ে পদাঘাত হয় - বিতর্ক আর বিভেদে জাতি যদি উত্তাল হয় - ক্ষতি নাই - কর্ম করিতে তাহারা পৃথিবীতে আসেন নাই - তাহারা আসিয়াছেন অতিশয় বৃহৎ উদ্দেশ্য সমাধার জন্য - সে উদ্দেশ্যের পরিধি বোঝার সাধ্য আবাল জনতার হইবে তাহা আশা করাও স্পর্ধার শামিল - অতিকথন আর অতিলেখনের লাইসেন্স ভূমিষ্ঠ হইবা মাত্রই তাহাদের হস্তগত হইয়াছে - সুশীল বলিয়া এক আর্য শ্রেণীতে তাহারা নিবন্ধিত হইয়াছেন - এখন আর তাহাদিগকে জনতার কাতারে দেখিলে চলিবে না - তাহারা আরাধ্য - তাহাদের বক্তব্য শিরোধার্য্য - তাহারা বলিবেন - আমরা শুনিব - তাহারা লিখিবেন - আমরা পড়িব - ভুলিলে চলিবে না - তাহারা কুলীন - তাহারা সুশীল - আমরা ব্রাত্যজন - অজ

আমার দেশের জন্য আমি তাই খবরটি শেয়ার দিলাম - আপনি কি না দিয়ে থাকতে পারবেন ?

দেশ অনেক দিয়েছে - দিয়েছে আমাকে - দিয়েছে আপনাকে - প্রতিদানে কখনো কিছু চায়নি সে - আজ চাচ্ছে দেশ - চাচ্ছে আমার আপনার নিরাসক্ত আঙ্গুলগুলোতে একটু সাড়া পড়ুক - চাচ্ছে আমরা যেন মাউসের আদুরে পিঠে আলতো একখানা ক্লিক করি - এক খানা জাতীয় দাবীতে যোগ করি আন্তর্জাতিক মাত্রা - ক্ষুদ্র এই দেশের প্রাণের দাবীটি হোক বিবিসির ইতিহাসে সর্বকালের সেরা দাবী - ভেঙ্গে দিক পূর্বাপর সকল রেকর্ড - আমার দেশের জন্য আমি তাই খবরটি শেয়ার দিলাম - আপনি কি না দিয়ে থাকতে পারবেন ?

Click on the following link and share.
BBC News - Huge Bangladesh rally seeks death penalty for war crimes
http://www.bbc.co.uk/news/world-asia-21383632
Hundreds of thousands rally in Bangladesh to demand the death penalty for a political leader convicted of war crimes from the 1971 independence war.

ওয়ানস আপন আ টাইম দেয়ার লিভড আ কিং কলড আপ্পু রাজা

ওয়ানস আপন আ টাইম দেয়ার লিভড আ কিং কলড আপ্পু রাজা

দু:খিত শিশির - ভালবাসার বিনিময় মূল্য নিশ্চিত জেন পৃথিবীতে নয় - আশা যদি করতেই চাও - তবে প্রার্থনা কর প্রাপ্তি যেন পরকালে হয়.

দু:খিত শিশির - ভালবাসার বিনিময় মূল্য নিশ্চিত জেন পৃথিবীতে নয় - আশা যদি করতেই চাও - তবে প্রার্থনা কর প্রাপ্তি যেন পরকালে হয়.

প্রিয় ল্যাপটপটা বেকায়দা ভঙ্গিতে ফ্লোরে পড়ে আছে - ডালাটা প্রায় বিচ্ছিন্ন - বোঝা যায় - অক্ষম আক্রোশের প্রথম ঝড়টা তার উপর দিয়েই গেছে - দেয়াল জোড়া ডেকোরেশন গ্লাসে চির ধরেছে - ভারী কিছুর আঘাতের চিহ্ন স্পষ্ট - বুকশেলফের সমস্ত বই মেঝেতে লুটাচ্ছে - দামী গীটারটাকে ভেঙ্গে দু' টুকরো করা হয়েছে - দরজায় দাঁড়িয়ে ক্ষতির পরিমাণ মাপছি - ব্যাকুল চোখ খুঁজছে পছন্দের মানুষটিকে - ওই তো আছে - প্রমাণ সদৃশ খাটের এক কোনায় বাঁকাচোরা ভঙ্গিতে পড়ে আছে ছেলেটি - আমার একসময়কার ভীষণ স্নেহের পাত্র - শিশির - আমার প্রাক্তন ছাত্র
.
বিত্তবান মানুষদের প্রতি আমার এক ধরনের অকারণ ঘৃণা আছে - এই শ্রেণী থেকে নিরাপদ দুরত্বে থাকতেই আমার ভালো লাগে - শিশিরদের পরিবারটি এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম ছিল - মফস্বল ছেড়ে তখন মাত্র রাজধানীতে পা রেখেছি - ন্যুনতম বেতনে একখানা চাকরি করি - আর্থিক টানা পোড়নে ভীষণ বিব্রত - কাজেই সহায়ক উপার্জনের পথ হিসেবে বেছে নিলাম গৃহশিক্ষকের দায়িত্ব.

সুশীলরা আছেন সেই আগের মতই

পত্রিকার নাম প্রথম আলো - পৃষ্ঠা নাম্বার ১০ - তারিখ ১৯ শে জানুয়ারী, ২০১৩ - একখানা প্রবন্ধ ছাপা হয়েছে - রূপকারের পরিচয় নতুন করে দেবার কিছু নেই - একজন পরীক্ষিত কবি - প্রথিতযশা প্রাবন্ধিক - ক্ষুরধার সাংবাদিক - আবুল মোমেন.

ভদ্রলোক এবার ইভ টিজিং ও ধর্ষণ নিয়ে লিখেছেন - ধ্রুপদী শব্দ চয়ন - নিঁখুত যুক্তি প্রক্ষেপন - সুস্পষ্ট দিক নির্দেশনা - এবারও সব কিছুই আছে - দা গুড ওল্ড 'আবুল মোমেন' স্টাইল - প্রবন্ধ যে কত শক্তিশালী হতে পারে - আবুল মোমেন সাহেব আবারও তা প্রমাণ করলেন - কিন্তু একটা খটকা এবারও থেকে গেল স্যার - চার কলাম ব্যাপী প্রায় অর্ধ পৃষ্ঠার দুর্ধর্ষ লিখাটিতে নারী নির্যাতনের কারণ ও প্রতিকারের প্রায় সবগুলো দিক আপনি নিঁখুতভাবে তুলে ধরলেন - অথচ 'ধর্ম' নামক অতি পরাক্রম শব্দটি এবারও আপনার লিখায় অচ্ছুৎ থেকে গেল - এই ধর্ম বিমুখতার কারণটা কি সবিনয়ে জিজ্ঞেস করতে পারি স্যার ?

অনারেবল প্রাইম মিনিস্টার - ইউ টুক থার্টি মিনিটস - ইউ ডেলিভার্ড নিয়ারলি থ্রী থাউজেন্ডস অব ওয়ার্ডস

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী - আপনার ভাষণখানা শুনেছি - প্রায় হাজার তিনেক শব্দের লিখিত বিবরণী - ত্রিশ মিনিট ব্যাপী আপনার সপ্রতিভ উপস্থাপনা - গণমাধ্যমের বদৌলতে আমাদের শ্রুতিগোচর হয়েছে - চারটি বছর ধরে আপনার সরকারের সাফল্যের কাহিনী আপনি বিধৃত করেছেন - অর্থনীতি - বিদ্যুত - কৃষি - স্বাস্থ্য - শিক্ষা - কর্মসংস্থান - যোগাযোগ - তথ্যপ্রযুক্তি খাতে অগ্রগতির বিবরণ দিয়েছেন - নিজের সরকারকে ক্ষুধা দারিদ্রের ঊর্ধ্বে - ন্যায়ভিত্তিক ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার হিসেবে দাবি করেছেন - অসাম্প্রদায়িকতা আর যুদ্ধাপরাধ প্রসঙ্গে নিজের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন - বিরোধী দল ও বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারকেও এক হাত নিয়েছেন - কথা প্রসঙ্গে নিজের মেয়ের সাফল্য তুলে ধরতেও পিছপা হননি - এত গোছানো এক খানা ভাষণের পর জোরালো করতালি বক্তার প্রাপ্য হয়ে যায় - আপনারও হয়ত প্রাপ্য হয়েছিল - কিন্তু ক্ষমা করবেন মাননীয়া - আপনার প্রাপ্য খানা আমরা দিতে পারিনি - চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়াতে পারিনি - দু হাতের তালু ও এক করতে পারিনি - তাতে অবশ্য আপনার কিছু যাবে আসবে না - আপনার চতুর্পার্শ্বে তালু বাজিকরদের (তোষনকারী) অবস্থান এখন অপ্রতুল নয়.

সিরাজী - দা দাবাং

সিরাজী - দা দাবাং

সুঠামদেহী মানুষটা শুন্যে ঝাঁপিয়ে পড়েছে - টাইট জিন্স আর বডি কাটিং শার্টের আড়ালে পেশল শরীরটা অসামান্য ক্ষিপ্রতায় মোচড় দিচ্ছে - কোমরে গোঁজা সিক্স শুটার কখন যে হাতে উঠে এসেছে কেউ বলতে পারে না - শরীর এখনো শুন্যে - মাটি ছোঁয়নি পা - এর মাঝেই হাতের আগ্নেয়াস্ত্র উগরে দিচ্ছে প্রাণভেদী বজ্র - অর্জুনের মতই নির্ভুল তার লক্ষ্য - প্রতিপক্ষের তাই রেহাই নেই - মানুষটা যখন মাটিতে অবতরণ করলেন - রূপালী পর্দা জুড়ে তখন ডজনখানেক পরাভূত শায়িত দেহ আর হল জুড়ে করতালি - লোকটা এভাবেই দুই দশক ধরে পর্দা কাঁপাচ্ছে - ফ্যাশনেবল চুল আর ঈর্ষনীয় শরীরের অধিকারী এই চিত্রনায়ক শুধু ভারতের নয় - এই অভাগা বঙ্গভূমির হৃদয়ে ও জায়গা করে নিয়েছেন - তরুণীদের হার্ট থ্রব তিনি - তরুণদের রীতিমত আরাধ্য পুরুষ - কেউ তাকে বডিগার্ড বলে- কেউ টাইগার - আর কেউ বা তাকে বলে সালমান খান - দা কমিটেড হিরো - দা দাবাং - কমিটেড হিরো একারণেই যে 'এক বার জো উসনে কমিটমেন্ট কোর দিয়া, ফির উসনে খুদ কি ভি নেহি সুনতা'.

শী ডাইড - শী ব্রেথেড হার লাস্ট ইন মাউন্ট এলিজাবেথ

শী ডাইড - শী ব্রেথেড হার লাস্ট ইন মাউন্ট এলিজাবেথ.

সীমাহীন ব্যথা - অসহনীয় অপমান - পৈশাচিক নির্যাতন - বিধ্বস্ত মানব সদৃশ কাঠামোটি তবু লড়াই করছিল - বেঁচে থাকার লড়াই - বেঁচে ফিরে আসার লড়াই - ক্ষতবিক্ষত আহত দেহখানি হয়ত চূড়ান্ত লড়াইয়ের ক্ষীণ স্বপ্নও দেখতে শুরু করেছিল - না - স্বপ্ন পূরণ হয়নি - বিদেশী হাসপাতালের প্রায় অবিশ্বাস্য মেডিকেল ফ্যাসিলিটিজ - নতজানু একটি সরকারের আত্মসমর্পণ - হতবিহবল একটি জাতির প্রার্থনা - কাজ হলো না কিছুতেই - মেয়েটি চলেই গেল - শী ডাইড - শী ব্রেথেড হার লাস্ট ইন মাউন্ট এলিজাবেথ.

আঁধার বীজতলা

স্বচ্ছল একটি পরবার - তিনটি সন্তান তাদের - দুটি পুত্র - একটি কন্যা - বড় দুটি বেশ মেধাবী - ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার হবার সম্ভাবনা প্রবল - তাদের কথা ভাবলেই কর্তার বুক চওড়া হয়ে যায় - সমস্যা কনিষ্ঠ পুত্রকে নিয়ে - একটু যেন হাবাগোবা - ওকে দিয়ে কিছু হবার সম্ভাবনা ক্ষীণ - তাই সিদ্ধান্ত হয় - মাদ্রাসাই তার উপযুক্ত স্থান - যতটুকু পারে পড়ুক বেচারা - আর তালেগোলে যদি কোরআনের হাফেজ হয়ে যায় - তবে তো সোনায় সোহাগা - নিজে তো বেহেশতি হবেই - সাথে টেনে নেবে পুরো পরিবারটাকেই - দুনিয়া - আখিরাত – দু’খানেই সফলতা - নিশ্চিদ্র বাস্তববাদী পরিকল্পনার রূপকার কর্তা একধরনের আত্মতুষ্টিতেই যেন ভোগেন.

চুপি চুপি যাদের আসার কথা

জানালাটা অনেকদিন থেকেই খুলে রাখা - ঘরখানিতে আলো নেই - শুধুই আঁধারের সম্ভাষণ - মন ভাঙানিয়া গান নেই - আছে আতর গোলাপের আয়োজন - তবু তারা আসেনা - চুপি চুপি যাদের আসার কথা ছিল - কেন যেন তারা আসেনা.
ফুলের স্তবকে চারদিক ভরে গেছে - নন্দন কাব্যে ঝংকার উঠেছে - তবু তারা আসে না - বাতাসে শুধু সুরেলা আহ্বান - চাতক চোখগুলিতে অধীর প্রতীক্ষা - তবু তাদের দেখা নেই.

একটি প্রার্থনা

শুনতে কি পাও তুমি - দাসানুদাস ডাকছে তোমায় - শুনতে কি পাও - মলিন জায়নামাজে দেখো - স্থিত এই দেহ - ভালবাসা বিনয় - আকাংখা আর ভয় - কাঁদছে হৃদয় - শুনতে কি পাও - উদ্ধত শির - আজ সিজদায় নত - শরীর কেঁপে ওঠে - অনির্বচনীয় আবেগ যত - কিছুই কি তোমার হয়না গোচর ?

কঠোর দৃষ্টি কখন যে কোমল হলো - আমারও হয়নি ঠার - কন্ঠে বাস্প -অশ্রু অজস্র - কোথায় অহংকার? সর্বদ্রষ্টা প্রভু আমার - কিছুই কি দেখো না তুমি - এই যে দেখো কাঁপছে হাত - হাতের রেখায় তাই পুরনো মোনাজাত - সব কাজ ঠেলছি দুরে - ভুলছি দেখো আজ সব অজুহাত.

দেখা দাও প্রভু - আজ দেখা দাও আগের মত - জানালায় নড়ে ওঠা পর্দার ভাঁজে - যেভাবে অলৌকিক চাঁদের আলো সাজে - সেভাবেই নাহয় দেখা দাও - অবুঝ বান্দা তোমার - করজোড়ে তোমায় দিচ্ছে দাওয়াত - দীনহীন গৃহ তার - মিম্বর নেই - আতর গোলাপ সুগন্ধির বালাই নেই - আছে এক জীর্ণ জায়নামাজ - যুক্তি বোঝে না বান্দা তোমার - আঁধার ঘরে তাই আজ অভিমানী মোনাজাত তার.

সরি বিশ্বজিত - উই ওয়ার ইট ইনসাইড

সরি বিশ্বজিত - উই ওয়ার ইট ইনসাইড

লোকটা আকাশ পথে আসে - উড়ুক্কু মানব - নির্ভীক - অমিত শক্তিধর - মানব কল্যাণ তার ব্রত - দুষ্টের যম - বিপন্নের রক্ষক - তাকে চেনা বড় সহজ - অন্তর্বাসটা যে সে পোশাকের ওপরে পড়ে - বিচিত্র কস্টিউমের এই লোকটিকে আমরা বড় ভালবাসি - আদর করে 'সুপারম্যান' ডাকি.

রোববার দিনটা ভালো ছিল না - আকাশ বুঝি মেঘাছন্ন ছিল - কিংবা কে জানে - হয়ত মেঘাচ্ছন্ন ছিল দুর্ভাগার ভাগ্যাকাশ - তাই সুপারম্যানের আসা হলো না - দূর দেশের নায়ক তিনি - বিশ্ব মানচিত্রের কোণে পড়ে থাকা অখ্যাত এই দেশে তার পা পড়ল না - এমনও হতে পারে - এস ও এস (সেভ আওয়ার সোল্ ) পৌঁছায়নি তার কাছে - কিংবা প্রায়োরিটি সিডিউলের আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় হতভাগার আর্তনাদ তেমন গুরুত্ব পায়নি - তাই তার আসা হলো না - আর কল্পকথার নায়ক এলেন না বলেই দুর্ভাগার বাঁচা হলো না - বুঝতে হবে দেশটা বাংলাদেশ - এখানে মানুষ অন্তর্বাস পরে ঠিকই - কিন্তু পরে পোশাকের ভেতরে - কাজেই অতিমানবীয় (?) সাহসিকতা তাদের থেকে প্রত্যাশা করা নির্বুদ্ধিতার নামান্তর.

একজন গ্ল্যাডিয়েটর

একজন গ্ল্যাডিয়েটর

বিরক্তিকর অথচ অবশ্য প্রয়োজনীয় অ্যালার্মটা বাজতে শুরু করেছে - অনাকাঙ্খিত শব্দ তরঙ্গ চিরে দিচ্ছে ঘরের নিস্তব্ধ আবহ - মানুষটার সুপ্ত স্নায়ুতে সাড়া পড়তে থাকে - মস্তিস্ক শরীরকে জানান দেয় - এবার জাগতে হবে - ধীরে ধীরে মানুষটা চোখ মেলে - এ যেন প্রাণান্ত আয়াস - শরীরের প্রতিটি কণিকা যেন অতিরিক্ত পাঁচটি মিনিট সুখনিদ্রার জন্য আকুল হয়ে থাকে - কিন্তু না - সেটা সম্ভব নয় - যদিও ঘর এখনো অন্ধকার - জানালার শার্সিতে লালচে আভাস দিনের আগমনী বার্তা ঘোষণা করছে.

পাশে শুয়ে থাকা সঙ্গিনীর ঘুম এখনো ভাঙ্গেনি - ঘুমে অচেতন প্রাণপ্রিয় শিশুপুত্র ও - মানুষটা এক মুহূর্ত যেন থমকে যায় - কি এক নির্মোঘ মোহে তাকিয়ে রয় ভালবাসার মানুষগুলোর দিকে - বুক চিরে বেরোয় অকারণ দীর্ঘ নি:শ্বাস - অত:পর গা ঝাড়া দিয়ে আলস্য কাটায় - স্নায়ু এখন তার পূর্ণ সজাগ এবং প্রস্তুত - প্রস্তুত লড়াইমুখর একটি নতুন দিনের জন্য - রাতে বিছানায় ঘুমিয়েছিল একজন বাবা - একজন স্বামী - জেগে উঠেছে একজন লড়াকু যোদ্ধা - একজন গ্ল্যাডিয়েটর.

hasan_adnan'র সাম্প্রতিক লেখা