ইউজার লগইন

আমাদের সামান্য জীবনে আছেই বা কি হারানোর?

আপনাকে 'তুমি' বলে ডাকতে পারি আমার লেখায়? সামনাসামনি অনেক চেষ্টা করেছি কিন্তু পারি নি। সম্ভবত আমার অনুভূতিগুলো যেখানে গিয়ে ফিরে আসে, সেখানটার পর থেকে ওৎ পেঁতে বসে থাকে অনিশ্চয়তার চিন্তাগুলো। যেগুলোকে আমি চাইলেও উপেক্ষা করতে পারি না। তাই কখনও আপনাকে আমি তুমি সম্বোধন করতে পারি নি। কখনও পারবো কি না, তাও জানি না।

তবে আমার অনুভূতিগুলো যে খুব দুর্বল- এমনও কিন্তু না। আমি এই ৩৩ বছর বয়সে এসেও মস্তিষ্কের প্রতিটি রন্ধ্রের অনুরণন আলাদা করে চিহ্নিত করতে পারি। প্রতিটি অনুভূতিকে অনুভব করতে পারি, বলতে চাইছি আর কি। অনেক সময় আমরা সময়ের স্বল্পতায় প্রত্যেকটা অনুভূতিকে গ্রহণ করতে পারি না। আপনার ক্ষেত্রে আমার কখনও তা হয় না।

এই যেমন গতকাল আপনি যখন কাজের পর বাসায় গাড়িতে করে নামিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দিলেন, তখন মুহূর্তের জন্য আমার মনে হচ্ছিল আমি বুঝি হঠাৎ করেই ভরশূন্য হয়ে গিয়েছি। প্রিয় কাল্পনিক ম্যাজিক কার্পেটে চড়ে আগ্রাবাহ্ শহরের আকাশে প্রবল বেগে ভেসে যাচ্ছি। বানরবেশী বুদ্ধিমান বন্ধু আবুও আছে সাথে। আমরা দু'জনে উড়ে যাচ্ছি রাজপ্রাসাদের উদ্দেশ্যে, রাজকন্যা ইয়াসমিনের সাথে দেখা করতে।

সবই অবশ্য সেকেন্ডের ভগ্নাংশের মধ্যেই ঘটে গেল। তারপর মনে পড়লো আজ কাজ শেষে বাস পাওয়া সম্ভব। সাধারণত সপ্তাহের কর্মদিবসগুলোতে শেষ বাসটা শহর ছেড়ে চলে যায় সন্ধ্যা সাতটায়। আর সপ্তাহান্তের দুইদিনসহ সরকারী ছুটির দিনগুলোতে একটা বিশেষ বাস থাকে রাত পৌনে নয়টায়। আসলেই 'প্রতিকূল' একটা ব্যবস্থা যেমনটি আপনি বলেছেন। অথচ আমার নিয়তিটাও দেখুন। যখন আমার আসলেই লিফট্ প্রয়োজন ছিল, তখন মহাকাল সেটির ব্যবস্থা করতে চায় নি। আজ যখন প্রয়োজন নেই, তখন ঠিকই ব্যবস্থাটা হয়ে যেতে চাচ্ছে।

আমি আপনার প্রস্তাব গ্রহণ করি নি মানে কিন্তু এই না যে আমি আপনাকে কোনোকিছুতে 'না' বলেছি। শুধু চেয়েছি কাজ শেষ করে যে আপনাকে প্রতিদিন প্রায় ৩০ কিলোমিটার গাড়ি চালিয়ে যেতে হয়- তার ওপর আরও পাঁচ কিলোমিটার বাড়তি যোগ না করতে। আমি তো চলে যেতেই পারবো। বাস থাকুক আর না থাকুক।

অনুভূতিগুলো মাঝে মাঝে আমাকে বোকাও বানিয়ে দেয় খানিকটা। যেমন গতকালেরই আরেকটা ঘটনা ধরি না কেন? ওই যে যখন আপনি জানতে চাইলেন আমি কি আপনার পাশে বসতে চাই কাজের জন্য নাকি অন্য আরেকজনের পাশে, তখন সাথে সাথে মস্তিষ্কের নিউরণগুলোতে ঝড় শুরু হয়ে গেল! এই রে, এখন তো আমাকে বলতেই হবে আমি আপনার সাথে বসতে চাই। আপনাকেই শুধু আমার কাজের ভুলগুলো দেখাতে চাই, যদি কোনো ভুল হয় আরকি! অন্যদের সাথেও আমি স্বাচ্ছন্দ্য, কিন্তু আমি যে শুধু আপনার পাশেই বসতে চাই- এটাও সত্য। এখন এই কথাগুলো আমাকে বলতে হবে এমনভাবে যাতে এটাও মনে না হয় যে আমি আপনার প্রতি মনের ভেতর পড়ন্ত বেলায় নদীতে আসা ভাটার মতো অনুভূতির টান লালন করি। সত্যই বলছি, সে সময় খুব অসহায় অনুভব করছিলাম। শেষ পর্যন্ত যে অন্তত বোকা বোকা সুরে হলেও বলে ফেলতে পেরেছি 'আমি আপনার পাশে বসতে চাই', তাতেই আমি খুশি। অন্তত চূড়ান্ত বোকামী করে উল্টো কথাটা বলে দিই নি। আমার মস্তিষ্ক যখন খুব বিভ্রান্ত হয়ে যায় তখন মাঝে মাঝে আমি উল্টো কথা বলে ফেলি। যেটা চাই সেটা নিই না, উল্টোটা নিয়ে নিই।

আরেক দিন যখন বলেছিলাম, আপনাকে দেখেই মনটা ভাল হয়ে গেছে কথাটা কিন্তু স্বতঃস্ফূর্তভাবেই বের হয়ে এসেছিল আমার ভেতর থেকে। আপনি যখন বললেন, আপনারও একই অবস্থা- তখন মনে হচ্ছিল আমি বুঝি আতশবাজির মতো উড়ে গেছি ঊর্ধ্বগগনের পানে। আকাশ আমার প্রিয় বিষয়গুলোর একটি। ওখানে উড়ে যাওয়া নিয়ে আমার অনেক অনেক খেয়ালি ভাবনা রয়েছে। সেই দিনটাতে সারাদিন আমার শুধু ওই দু'টো বাক্যই কানে বেজেছে। আমি বলছি, আপনাকে দেখে আমার মনটা ভাল হয়ে গেছে। আর আপনি বলছেন, আমারও একই অবস্থা।

আপনার সাথে কাটানো সময়টা ছিল স্বপ্নের মতো। বাস্তব জগত তার সবধরনের সংকীর্ণতা দিয়ে চেষ্টা করেছে আমাকে স্বপ্নালু ভবঘুরেদের মতো না দেখাতে কিন্তু পারে নি। শুধু আপনার চিন্তাই আমাকে প্রতিটি ভোরে ঘুম থেকে উঠে বিছানা ছাড়তে শক্তি জুগিয়েছে। আগ্রহ জুগিয়েছে এক কাপ কফি হাতে নিয়ে বারান্দায় দাঁড়িয়ে সারাদিনের পরিকল্পনাগুলো সাজিয়ে নিতে। জীবনটা কতোটা সুন্দর সেটা কল্পনায় অন্তত একবার দেখে আসার সাহস দিয়েছে। শুধু আপনার চিন্তা আমাকে নিজের লক্ষ্যের পথে অবিচল থাকার জন্য অনুপ্রেরণা দিয়েছে। আমাদের একসাথে কাজ করার পুরোটা সময় আমি এটা অনুভব করেছি। এমনকি যখন আমি অন্য কারও সাথে ছিলাম তখনও। খুব বেশি সময় অবশ্য অন্য কারও সাথে ছিলামও না।

যেটা বলতে চাচ্ছি সেটা হচ্ছে, আপনার প্রতি আমার সম্মান, শ্রদ্ধা আর ভালবাসার অনুভূতিগুলো সবই গড়ে উঠেছে যথাযথ সময় নিয়ে। মাঝে মাঝে অনুঘটকের কাজ করেছে আমাদের ছোট ছোট অসাধারণ মুহূর্তগুলি। মনে আছে যেবার আমি প্রথম আপনাকে পছন্দ করি বলে স্বীকার করেছিলাম। আমি কিন্তু সেদিন অন্য একটা কথা বলতে গিয়েছিলাম, অথচ কথা একদিক থেকে চলে গেল পুরো অন্য আরেকদিকে। সত্যিই সেদিন আপনাকে যখন বলছিলাম যে আমি আপনাকে পছন্দ করি, তখন মনে মনে আমি বসে ছিলাম এক মহাকাশযানে। ঠিক ওই মুহূর্তটিতে মহাকাশযানটি পৃথিবীর ভূমি ছেড়ে তীরগতিতে বের হয়ে যাচ্ছিল ভূ-মণ্ডল ফুঁড়ে মহাশূন্যের উদ্দেশ্যে। আমি পৃথিবীর মহাকর্ষ থেকে বের হওয়ার জন্য মহাকাশযানের প্রবল গতির সাথে তাল মিলিয়ে নেয়ার ব্যর্থ প্রচেষ্টার মাঝেই ধীরে ধীরে ঢলে পড়ছিলাম ভাললাগার এক অদ্ভুত বুঁদ হয়ে যাওয়া আবেশে।

আপনার সাথে যখনই আমার দেখা হয় তখনই আমি কিছু না কিছু অনুভব করি। প্রত্যেকটা সময়। জীবনটা অন্যরকম যখন আমি আপনার সামনে থাকি। আপনার দিকে তাকাই। যখন আপনাকে হাসতে দেখি। কাল বিকেলে যখন কথা হচ্ছিল আগামী বছরের সম্ভাব্য ছুটির ব্যাপারে তখনও ঠিক তেমনই অনুভূতির ভেতরে ছিলাম। তারপর যখন আপনাকে বললাম "আমার ছুটির ব্যাপারে আপনিই সিদ্ধান্ত নিন", তখন মুহূর্তের জন্য মনে হয়েছিল কোথায় যেন একটা তারার জন্মান্ত ঘটলো। আপনি যখন বললেন "আমি তোমার সিদ্ধান্ত নেবো না", তখন চোখের সামনে আমি সেই তারাটির খসে পড়া দেখতে পাচ্ছিলাম। আমার নিজেকে এক মুহূর্তের জন্য অন্ধ মনে হচ্ছিল।

অবশ্যই আমিও চাই না আমার কোনো সিদ্ধান্ত অন্য কেউ নিয়ে দিক। আমি শুধু চেয়েছিলাম আপনাকে বলতে যে, আজ বহুদিন ধরেই আপনি অনেকভাবে আমাকে সাহায্য করে আসছেন, আমার দেয়ার মতো কিছু নেই, যদি আমার ছুটির তালিকাটুকু দিয়ে আপনার সামান্য কোনো কাজে নিজেকে লাগাতে পারি, তাহলে নিজেকে ধন্য মনে করবো। শুধুমাত্র এই কারণেই বলেছিলাম যে, আপনি আমার ছুটির সিদ্ধান্তটি নিয়ে দিন। এর পেছনে যে আকাঙ্ক্ষাটা ছিল সেটা হল- সবার ছুটির তালিকা নিয়ে যখন আপনি সামনের বছরের পরিকল্পনাটা করতে বসবেন, তখন আমার খোলা তালিকাটা আপনাকে একটুও যদি সাহায্য করে।

খসে পড়া তারাটাও আমি তুলে রেখেছি। আর উড়ে যাওয়ার অনুভূতিগুলোতো আছেই, আমার স্মৃতির আলমিরায়। জীবনটা তখনই সুন্দর যখন আমরা পাওয়া আর না-পাওয়ার মধ্যকার ভারসাম্যকে মেনে নিতে শিখে যাই। আপনার সাথে পাওয়া কাজের সুযোগ, আপনাকে দেখে দেখে শেখার সুযোগ এবং মাঝে মাঝে মিথ্যে বলবো না আপনাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখার সুযোগগুলো যদি পাওয়ার খাতায় যোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তাহলে আমি শুধু একটা তারার খসে যাওয়া দেখা কেন- প্রবল উল্কা বৃষ্টির মাঝেও হেঁটে হেঁটে পাড়ি দিতে রাজি আছি তেপান্তর।

আমাদের সামান্য জীবনে আছেই বা কি হারানোর?

---

পোস্টটি ২ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

উচ্ছল's picture


মীর ব্রো আপনার লেখাগুলো দিন দিন কঠিন হতে কঠিনতর হচ্ছে Smile ......... ভালো থাকবেন..... শুভ কামনা।

মীর's picture


উচ্ছল ব্রো থ্যাংক ইউ সো মাচ্! শুভকামনা আপনার জন্যও। ভাল থাকবেন Smile

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

মীর's picture

নিজের সম্পর্কে

স্বাগতম, আমার নাম মীর রাকীব-উন-নবী। এটি একটি মৌলিক ব্লগ। দিনলিপি, ছোটগল্প, বড়গল্প, কবিতা, আত্মোপলব্ধিমূলক লেখা এবং আরও কয়েক ধরনের লেখা এখানে পাওয়া সম্ভব। এই ব্লগের সব লেখা আমার নিজের মস্তিষ্কপ্রসূত, এবং সূত্র উল্লেখ ছাড়া এই ব্লগের কোথাও অন্য কারো লেখা ব্যবহার করা হয় নি। আপনাকে এখানে আগ্রহী হতে দেখে ভাল লাগলো। যেকোন প্রশ্নের ক্ষেত্রে ই-মেইল করতে পারেন: bd.mir13@gmail.com.

ও, আরেকটি কথা। আপনার যদি লেখাটি শেয়ার করতে ইচ্ছে করে কিংবা অংশবিশেষ, কোনো অসুবিধা নেই। শুধুমাত্র সূত্র হিসেবে আমার নাম, এবং সংশ্লিষ্ট পোস্টের লিংকটি ব্যবহার করুন। অন্য কোনো উপায়ে আমার লেখার অংশবিশেষ কিংবা পুরোটা কোথায় শেয়ার কিংবা ব্যবহার করা হলে, তা
চুরি হিসেবে দেখা হবে। যা কপিরাইট আইনে একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। যদিও যারা অন্যের লেখার অংশবিশেষ বা পুরোটা নিজের বলে ফেসবুক এবং অন্যান্য মাধ্যমে চালিয়ে অভ্যস্ত, তাদের কাছে এই কথাগুলো হাস্যকর লাগতে পারে। তারপরও তাদেরকে বলছি, সময় ও সুযোগ হলে অবশ্যই আপনাদেরকে এই অপরাধের জন্য জবাবদিহিতার আওতায় আনার ব্যবস্থা নেয়া হবে। ততোদিন পর্যন্ত খান চুরি করে, যেহেতু পারবেন না নিজে মাথা খাটিয়ে কিছু বের করতে।

ধন্যবাদ। আপনার সময় আনন্দময় হোক।