ইউজার লগইন

ও নদীরে - - - -

091a.jpgএখন মনে হয়, আমার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে যে গ্রামে ও যে নদীর তীরে তা ভারী সুন্দর! বাংলাদেশের আর দশটি গ্রামের মতই বৈচিত্রহীন একটা গ্রাম। আর সে গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া তারও চেয়ে বৈচিত্রহীন একটা নদী। বাংলাদেশে নদীর কত সুন্দর সুন্দর নাম, মেঘনা, যমুনা, সুরমা, করতোয়া, রূপসা, তিস্তা, চিত্রা, শীতলক্ষ্যা, কুশিয়ারা, আরও কত কি! এমন সুন্দর একটা নামের নদীর পাশের কোন একটা গ্রামে আমার জন্ম হয়নি। যে গ্রামে জন্মেছি, তার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া নদীটির নাম শুনলে সবাই নাক কুঁচকায় – সেটার নাম মাথাভাঙ্গা। আমরা ছোট বেলায় লিখতাম মাথাভাঙা, উচ্চারণও করতাম তাই-ই, এখনও। কিন্তু কালে কালে আর সব কিছুর মতই মাথাভাঙা এখন হয়ে গেছে মাথাভাঙ্গা।
সেকালে মাথাভাঙায় কুমীর ছিল, বড় বড় জাহাজ চলতো। আমি দেখিনি, নানীর কাছে, মায়ের কাছে গল্প শুনেছি। তবে আমি দেখেছি অনেক বড় আকারের নৌকায় মালামাল আনা-নেওয়া হতে। কোলকাতা অন্য দেশের অন্তর্ভূক্ত হবার পরে জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়, নদীর পানি কমে যাওয়ায় কুমীরের আনাগোনা থেমে যায়। বর্ষায় তার প্রমত্ত রূপ দেখে আমরা শিউরে উঠতাম। শুশুকের আনাগোনা দেখা যেত বর্ষার ভরা নদীতে। অন্য সময়ে তার কাকচক্ষু জল আমাদের আকৃষ্ট করতো। ঘন্টার পর ঘন্টা সাঁতার, ডুবসাঁতার, ঝাপুড় খেলা, হৈল খেলা ছিল আমাদের নিত্যদিনের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড।
ফারাক্কা বাঁধ তাকে কাবু করে ফেলেছে, মানুষের খামখেয়ালিতে সে আজ মৃত্যুর প্রহর গুনছে। এইতো মাত্র ক’দিন আগে তাকে দেখে এলাম, ফিরে এলাম এক বুক কষ্ট নিয়ে। নদীতো নয়, যেন দেখে এলাম তার কঙ্কাল। সেই কৈশোরের স্মৃতিরাই শুধু আছে, সেই নদী আর নেই।
এখনকার মাথাভাঙ্গা
AB092.jpg

ঢাকা থেকে আসা-যাওয়ার পথে পদ্মা পাড়ি দিতে হয়। এখন শুধু পাড়ি দিলেই হয়, একটা সময় ছিল যখন পদ্মার বুকের উপর দিয়ে স্টীমারে যাওয়া আসা করতে হতো। গোয়ালন্দ থেকে নারায়ণগঞ্জ বা নারায়ণগঞ্জ থেকে গোয়ালন্দ আসা-যাওয়ার পথে দীর্ঘ সময় কাটাতে হতো পদ্মার বুকে। তখন দেখেছি পদ্মা কী? সেই ভয়ঙ্করী পদ্মার আজকের অবস্থা দেখলে চোখে পানি আসে। ধূধূ বালিচর, ছোট্ট খালের মত ক্ষীণ প্রবাহিনী পদ্মাকে কোন নদীই মনে হয়না। স্রোত আছে বলে মনেই হয়না, ফেরী বা লঞ্চের গতির সাথে তাল মিলিয়ে দেখা দেয় একটু ঢেউ। যেন শান্ত দীঘির বুকের উপর দিয়ে অশান্ত ও বিক্ষিপ্ত মন নিয়ে যাতায়াত করাই আমাদের নিয়তি।
AB055.jpg
কী সুন্দর নামের একটা নদী চিত্রা। এখনও দু’বেলা জোয়ার-ভাঁটার খেলা দেখা যায়। কিন্তু তার আগেকার সেই রূপ হারিয়ে বিগত যৌবণা শীর্ণ শরীর নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে কোন রকমে টিকে আছে, এখনও টিকে আছে আর কাল গণনা করছে হারিয়ে যাবার। AB136a.jpg
কচুরীপানা চিত্রাকে চিত্রিত করছে, লোভী মানবকূল তার কূলে গড়ে তুলছে তাদের আবাস, কেউবা প্রাসাদ। প্রকৃতি আমাদের অনেক দিয়েছিল, আমরা তা রক্ষা করিনি, করবার আগ্রহ কখনো কারো ছিল বলেও মনে হয়না। এখন চিত্রার বুকে লঞ্চও চলেনা, মাছ নেই – তাই মাছ ধরবার নৌকাও দেখা যায়না খুব একটা।
নড়াইলে যেয়ে সুলতানকে এক নজর দেখে না এলে নিজেকেই অবহেলা করা হয়। আর নড়াইল থেকে ফিরে এসে সুলতানের কথা বলতে না-পারলে, না-বলা পর্যন্ত প্রাণ আকুলি-বিকুলি করতে থাকে। AB148.jpg
শিল্পী সুলতানকে জীবদ্দশায় কেউই তেমন মূল্যায়ন করেনি, মৃত্যুর পরে অনেকে চিনেছে, কিন্তু তাঁর প্রাপ্য যোগ্য সম্মান আজও আমরা তাঁকে দিতে পারিনি। আমরা সত্যিই বড় অভাগা।

পোস্টটি ৭ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

টুটুল's picture


এতদিন কই ছিলেন? শরীর ঠিকাছেতো? বেশ কয়েক দিন আপনাকে দেখি নাই Sad

নাজমুল হুদা's picture


আপনাদের সাথেই তো আছি। শরীর ঠিক আছে। এদিক-সেদিক ঘুরলাম ক'দিন, এই আর কি!

লীনা দিলরুবা's picture


সুন্দর একটি লেখা।
নদীর ছবিগুলো মনোরম।

নাজমুল হুদা's picture


লীনার চোখে বোধহয় সমস্যা! Smile যা দেখে তা-ই ভালো লাগে ! নেন কোক খান আর :দোলনা:য় দোল খান!

লীনা দিলরুবা's picture


আমার চোখে সমস্যা নেই।
আমার চোখ সুন্দর।

নাজমুল হুদা's picture


চোখ সুন্দর মানুষের মনও সুন্দর! আর তাই সুন্দর চোখে সবই সুন্দর লাগে !

সাহাদাত উদরাজী's picture


এইতো আমাদের হুদা ভাই।
নড়াইলে কবে গেলেন! ছবিগুলো সুন্দর হয়েছে। ৩য় ছবিটার সাইজ ঠিক করে দেন! (বানান ভুল না পেয়ে ভিন্ন চেষ্টা!)

নাজমুল হুদা's picture


অসুন্দরের মধ্যেও সুন্দর খুঁজে পেয়েছেন এ জন্য ধন্যবাদ ! ছবির সাইজ ঠিক করতে যেয়ে আমারই সাইজ হয়ে যাবার মত অবস্থা ! চিত্রা নদীর একটা ছবিও দিলাম। আরও খুঁটিয়ে দেখলে বানান ভুল ছাড়াও ভাষার ভুল পাবেন। আপনার এই ভিন্ন চেষ্টা বিফলে যায়নি।
ধইন্যা পাতা

সাহাদাত উদরাজী's picture


মাথাভাঙ্গা নদীর নাম হল কি করে। মাথাভাঙ্গা নদীর ছবিটা এখন আমার কম্পিউটার এর ডেক্সটপ ওয়াল পেপার।

১০

নাজমুল হুদা's picture


নামকরণ নিয়ে কোন কাহিনী আছে কিনা তা আমার জানা নাই। মাথাভাঙ্গার তীর ঘেঁষে একটা গ্রাম আছে তার নাম হাঁটুভাঙ্গা। এখানে কারোর হাঁটু ভেঙেছিলো হয়তো, তাই নাম হয়েছে হাটুঁভাঙ্গা। এই নদীতে হয়তো কারোর মাথা ভাঙা হয়েছিল, তাই এর নাম হয়েছে মাথাভাঙ্গা। [১৯৭১-এ অনেককে এ নদীর তীরে দাঁড় করিয়ে গুলি করে মেরেছিলো পাক সেনারা।]

১১

নাজমুল হুদা's picture


মাথাভাঙ্গা নদী সৌভাগ্যবান, কম্পিউটারের ডেস্কটপ ওয়াল পেপার হতে পেরে।

১২

রাসেল আশরাফ's picture


ক্লাসের বন্ধুদের কাছে মাথাভাঙ্গা নদী নিয়ে অনেক গল্প শুনেছিলাম কিন্তু নিজের চোখে দেখে আমিও আশাহত হয়েছিলাম।

১৩

নাজমুল হুদা's picture


একই সাথে পিক- প্রোপিক বদলে ফেললে চিনতে কষ্ট হয়। দাদাবাড়ি ও নানাবাড়ি যার কুস্টিয়ায়, আর বাবা্র বাড়ি রাজশাহী, এ তো সেই রাসেল আশরাফ ? নাকি অন্য কেউ ? মাথাভাঙ্গা দেখে আশান্বিত হবার মত কিছুই নাই, বরং মাথা ব্যাথা হতে পারে।

১৪

আহমাদ মোস্তফা কামাল's picture


লেখাটা চমৎকার লাগলো।

১৫

নাজমুল হুদা's picture


গূণীজনের প্রশংসা পেয়ে ধন্য হলাম। কৃতজ্ঞ রইলাম।

১৬

তানবীরা's picture


মারাত্বক ছবি হয়েছে নাজমুল ভাই।

আপনাকে আমরা খুব মিস করেছি। আপনি না থাকলে ব্লগটা মুরুব্বীহীন হয়ে যায়। আশাকরি ঘোরাঘুরি এঞ্জয় করেছেন।

১৭

নাজমুল হুদা's picture


মারাত্মক ছবির অর্থ কী ? ভালো না মন্দ ? Smile
আমি আছি তো!
আর বয়স বেশী হলেই কেউ মুরুব্বী হয়না, আমিও কারো মুরুব্বী নই। আমি তোমাদের সবার সমান বয়েসী।
এখন আর ঘো্রাঘুরি এনজয় করতে পারিনা, Sad দায়িত্ব পালনার্থে ঘুরতে বাধ্য হই।

১৮

হাসান রায়হান's picture


ঠিকাছে বস, তানবীরা খালি মুরুব্বি মুরব্বা নবানাইতে চায়। Devil

১৯

জ্যোতি's picture


রায়হান ভাই, বানান ভুল করছেন। বানাইতে চায় হবে।জীবনে এক্টা বানান ভুল ধরলাম। Big smile

২০

নাজমুল হুদা's picture


এখন আর আমি তা'হলে একা নই !

২১

নাজমুল হুদা's picture


মোরব্বা কিন্তু খেতে মজা !

২২

তানবীরা's picture


ঠিকাছে মেজর মুরুব্বী আমিই Puzzled

২৩

হাসান রায়হান's picture


ছবি ও লেখা মিলিয়ে পোস্ট খুব ভালো লাগল হুদা ভাই।

২৪

নাজমুল হুদা's picture


THNX

২৫

নাজ's picture


ও নদীরে, দিন দিন তোদের এই কি হাল হচ্ছে রে Sad

২৬

নাজমুল হুদা's picture


আমরা শুধু শুনবো নদীর কান্না আর হা-হুতাশ করবো! Sad

২৭

লিজা's picture


অনেকদিন পর আপনাকে দেখে সত্যি খুব ভালো লাগছে ।
মরা নদীর কষ্টের কান্না যদি মানুষ শুনতে পেতো, Sad
ধলেশ্বরীর হাল দেখেছেন? শুকিয়ে কাহিল হয়ে গেছে । কিন্তু তারপরো দেখতে কি যে সুন্দর!!
বরিশাল যাবার পথে একটা নদী আছে । ব্রীজের উপর থেকে দেখা নদীটা অসাধারণ ছিল । আমার জীবনে এখন পর্যন্ত দেখা সবথেকে সুন্দর নদীদের একটা হল ওই নদী । নাম সম্ভবত গাবখান ।
পদ্মা দেখলে ভালো মন্দ উপলব্ধি করিনা । এর প্রবল রূপ তো আর দেখি নাই । তবে সাদা বালির চরগুলো দেখলে মনে হয়, নদীটা ধীরে ধীরে শেষ হয়ে যাচ্ছে ।

২৮

নাজমুল হুদা's picture


সেই ছোট্টবেলা থেকে শুনে এসেছি আমাদের দেশটা নদীমাতৃক দেশ। নদী হারিয়ে এখন আমরা মাতৃহীন, এতিম। পানির অপর নাম জীবন । নদী নেইতো পানি নেই, পানি নেই তো আমাদের জীবন নেই। আমরা এখন মৃত। আমরা এখন ভূত-প্রেতের দলভুক্ত ।

২৯

শর্মি's picture


ছবিগুলো ভালো লাগল।

৩০

নাজমুল হুদা's picture


ধন্যবাদ শর্মি । নতুন পোস্ট কবে দিচ্ছেন?

৩১

জ্যোতি's picture


দারুণ সব ছবি। শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ নাজমুল ভাই।

৩২

নাজমুল হুদা's picture


ছবি ভালো লেগেছে এতেই আমি খুশি! কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি ।

৩৩

শওকত মাসুম's picture


দারুণ নাজমুল ভাই। কেমন আছেন?
আমার খালার বাসা স্বরূপকাঠি। সেখানকার নদীর নাম সন্ধ্যা নদী। নামটাই দারুণ।

৩৪

নাজমুল হুদা's picture


আপনার মন্তব্যে খুশী হলাম। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। আসলেই, দারুন নাম সন্ধ্যা নদী !

৩৫

নরাধম's picture


দারুন লিখেছেন। নদী নিয়ে বাঙালিরা এত নস্টালজিক কেন অবশ্য বুঝিনা, আমারও অবশ্য নদী খুবই ভাল লাগে।

৩৬

নাজমুল হুদা's picture


অধিকাংশ বাঙালীর শৈশব ও কৈশোর কাটে নদীতে, নস্টালজিক না-হয়ে তাই উপায় নেইরে ভাই।

৩৭

মীর's picture


প্রিয় শিল্পী এস এম সুলতান-এর নাম নিয়েছেন দেখে ভালো লাগলো।

৩৮

নাজমুল হুদা's picture


প্রিয় শিল্পী এস এম সুলতানের সাথে নড়াইল আর চিত্রার নাড়ির সম্পর্ক। দেখুন আরও ছবিঃ

146a.jpg
এস এম সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালার প্রবেশ পথ

147a.jpg
শেষ শয্যা

150a.jpg
কাছে থেকে দেখা শেষ শয্যা

149a.jpg
স্মৃতি সংগ্রহশালার মূলভবন

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

নাজমুল হুদা's picture

নিজের সম্পর্কে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাণিবিদ্যায় এমএস.সি । বিভিন্ন কলেজে অধ্যাপনা এবং অবশেষে প্রশাসন ক্যাডারে যোগদান । উপসচিব পদ হতে অবসরে গমন । পড়তে ভাল লাগে, আর ভাল লাগে যারা লেখে তাদের । লিখবার জন্য নয়, লেখকদের সান্নিধ্য পাবার জন্য "আমরা বন্ধু"তে আসা।