ইউজার লগইন

ভ্রমন: বান্দরবন-থানচী-েমাদক

গত বছরের জুলাই মাস বর্ষাকাল,মাথার িভতর বিিভন্ন আইডিয়া িকলবিল করছে। আর তাতেই শুরু হয়ে গেল ইমেইল-ফেসবুক এ কথা চালাচালি। অবশেষে িঠক হলো বান্দরবন এর থানচী হয়ে েমাদক যাওয়া হবে । পরিকল্পনা অনুযায়ী ঢাকা থেকে বাসে বান্দরবন, বান্দরবন হতে চাদের গাড়ী েযাগে থানচি। রাতে থানিচ েরস্ট হাউজে থাকা অত:পর সকালে ইঞ্জিন বোটে েমাদকের পথে যাত্রা শুরু, অবশ্য বিডিআর যেতে দিতে চাচ্ছিল না এবং আরোও বললো যে ৪/৫ দিন আগে নৌকা ডুবে ।২ জন মারা গেছে। পথে তিন্দুর বড় পাথর দেখলাম অবশ্য ভালো মতো দেখা গেল না কারন পানি অনেক বেশী িছল, এছাড়া সবাইকে মাঝে মাঝে নৌকা থেকে নেমে হেটে যেতে হচ্ছিল ও কয়েক জায়গায় রশি বেধেঁ নৌকাকে টেনে নিয়ে যেতে হয়েছে। যাহোক েস্রাতের বিপরীতে চলতে চলতে সন্ধ্যার পরপর আমরা রেমাক্রী পৌছালাম। অত:পর রেমাক্রি বাজারে রাতের খাওয়া এবং রেস্ট হাউজে রাত্রী যাপন। পরদিন সকালে নৌকায় ছোট মোদক হয়ে দুপুর নাগাদ বড় মোদক পৌঁছালাম। দুপুরের সামান্য খাওয়া-দাওয়ার পর স্রোতের অনুকূলে বিদ্যু্ৎ বেগে থানচির দিকে যাত্রা শুরু করলাম, অবশ্য বড় েমাদকের পরে আন্ধার মািনক নামক স্থােন যাবার ইচ্ছা থাকা স্বত্বেও আর্মির িবশাল বাধা।র কারনে তা এবার সম্ভব হলো না ফেরার পথে তিন্দুর কাছাকাছি এসে নৌকার মাঝি আমাদের নিয়ে পাথরের উপর দিয়ে নিয়ে যেতে চাইলো না,কারন নৌকা ভারী হয়ে যাবে আর তাছাড়া কোন কারনে যদি নৌকার তলা পাথরে লেগে ফেটে যায় তবে মারাত্নক দুর্ঘটনা ঘটবে। ফলে আমরা নৌকাথেকে নেমে প্রায় ১ ঘন্টা ট্রাকিং করে, একগাদা জোকের কামড় খেয়ে, সর্প দর্শন করে পুনরায় নৌকায় উঠলাম। এভাবে যে পথে ২ দিন ধরে গেলাম সে পথে ফিরে আসলাম মাত্র ৩ ঘণ্টায়।

১।পাহাড়-পর্বত, তারপর পাহাড়-পর্বত, আবার পাহাড়-পর্বত এবং পাহাড়-পর্বত, যতদুর দৃষ্টি যায় শুধুই পাহাড়-পর্বত P7140101_49.JPG
২। পাহাড়ের উপর পাহাড়ীদের বসত-বাড়ী, সহজ-সরল জীবন যাত্রা, কঠিন বেচেঁ থাকার সংগ্রাম P7140102_42.JPG
৩।চিম্বুক পাহাড়, বাংলাদেশ আর্মির ক্যাম্প এবং টাওয়ার P7140105_22.JPG
৪।থানচি নৌকা ঘাট P7140122_73.JPG
৫।২০০৮ সালে নির্মিত রেমাক্রী বাজার রেস্টহাউজ, আমাদের রাতের আশ্রয় P7150145_45.JPG
৬।রেমাক্রী বাজার এবং বসতি, রেস্টহাউজ এর পাশে আর একটি পাহাড় এর উপর P7150150_50.JPG
৭।রেমাক্রীতে এক পাহাড়ীর বাসার সামনের বারান্দায় টাইলস্্ এর বিকণ্প হিসাবে ব্যবহৃত পাথর-ঝিনুক P7150161_46.JPG
৮।রেমাক্রীর কাছে পাহাড়ের উপর জনবসতি তার উপর মেঘের ভেলা P7150172_34.JPG
৯।নৌকায় মোদকের পথে P7150178_122.JPG
১০।মোদক থেকে এক পাহাড়ী কলাগাছ এর সাহায্যে ভেসে যাচ্ছে খরস্রোতা নদী পথে, মুখে চুরুট নিয়ে নির্বাক-নির্ভয়, চিন্তা করা যায় না P7150196_34.JPG
১১।বড় মোদক আর্মি ক্যাম্প P7150222_30.JPG
১২।মোদক জনবসতি P7150229_24.JPG
১৩।মোদক জনবসতি এবং গির্জা P7150242_91.JPG
১৪।বান্দরবন এর কাছে এক পুলিশ চেক পোষ্ট থেকে P7160249_32.JPG

পোস্টটি ১০ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

তানবীরা's picture


দারুন সব ছবি। হয়তো একদিন আমিও .।.।.।.।.।.।.।.।.।।। Sad

উচ্ছল's picture


ধন্যবাদ। অবশ্যই যাবেন।

বিষাক্ত মানুষ's picture


ভেবেছিলাম এই বছর নাফাতুন যাবো ... পারলাম না , সামনের বার যাবো।

ছবিগুলো দারুন হয়েছে।

উচ্ছল's picture


আমরা যখন যাই তখন নাফাখুম এর তথ্য ছিল না। আগে জানা থাকলে মিস করতাম না। Smile

টুটুল's picture


হামহাম জলপ্রপাত দেকছেন?

ছবি পছন্দ হইছে... নিয়মিত থাইকেন...

উচ্ছল's picture


অপেক্ষায় থাকেন বস। Smile

সামছা আকিদা জাহান's picture


দারুন এমন একটা জায়গা বার বার গেলেও প্রান ভরে না। দারুন সব ছবি আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

উচ্ছল's picture


আপনাকেও ধন্যবাদ। Smile

মীর's picture


আপনের ভ্রমণকাহিনীগুলো চমৎকার হচ্ছে। চালিয়ে যান ব্রাদার। একটা লম্বা সিরিজ হোক। Smile

১০

উচ্ছল's picture


Smile

১১

শাশ্বত স্বপন's picture


চমৎকার ছবি!!!!!!!!!!!!!
এবার যাবেন আমাদের সাথে নাফাকুম, তাজিংডং?

১২

উচ্ছল's picture


কবে যাবেন? Smile

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

উচ্ছল's picture

নিজের সম্পর্কে

একজন সাধারন মানুষ, সবর্দাই শান্তি খুজে ফিরি। কখনো পাই কখনো পাই না। মাঝে মাঝে নিজেকে অচেনা লাগে। বিষন্ন-বিবর্ণ মনে হয় ।। অল্পেই খুশি। অল্পেই আনন্দ।। প্রকৃতি ভালো লাগে। পাহাড় প্রচন্ড টানে। সমুদ্র খারাপ লাগে না।।