ইউজার লগইন

শেষ দু'বছরের সবচে' ভাললাগা গান এবং তৎসম্পর্কীয় গল্পগুলো

যে গানগুলোতে গত দুই বছরে 'ক্রাশ' খেয়েছি সেগুলোর সময়ভিত্তিক একটা তালিকা আছে আমার কাছে। আজকের লেখার বিষয়বস্তু মূলত সেটাই। লিখে রাখার কারণ হচ্ছে, তাহলে আমি কখনোই ভুলবো না গানগুলোকে কখন এবং কি কারণে ভাল লেগেছিল। তালিকার প্রত্যেকটা গানই সহস্রাধিকবার শোনা হয়েছে। আমার পরিবারের সদস্যরা জানে যে যখন আমি একটা গানের ওপর ভর করি তখন সেটা একটানা শুনতে শুনতে কান-মাথা-নিউরণ সব ঝালাপালা করে না ফেলা পর্যন্ত ছাড়তে পারি না। একই গান এক নাগাড়ে ঘন্টা, দিন, সপ্তাহ এমনকি মাসাধিককাল সময় পর্যন্তও শোনা হয়েছে আমার। যাহোক দেশে থাকতে যখন এসব করতাম, তখন কোন গানটা কবে এবং কি কারণে মাথায় ঢুকেছিল বিশেষ মনে নেই। দেশের বাইরে আসার পরই আমি মূলত জীবনের ছোট ছোট বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিতে শিখেছি। সেজন্য আমি নিজেকে একটা ছোট্ট ধন্যবাদও দিতে চাই। দরকার ছিল শিক্ষাটা।

হুকড্ অন এ ফিলিং - ব্লু সোয়েড

'গার্ডিয়ানস্ অব দি গ্যালাক্সি' সিনেমার (প্রথম পর্ব) সাউন্ডট্র্যাক শুনতে গিয়ে একটা গান মাথায় ঢোকার চেষ্টা চালাচ্ছিল- হুকড্ অন এ ফিলিং। অনেক পুরোনো দিনের গান। ১৯৬৮ সালে লেখা। আমার প্রথম শোনা হয় ওই সিনেমাটি থেকেই। প্রথম শোনায় কিন্তু গানটাতে পুরোপুরি আটকা পড়ি নি। মাঝারি মানের পছন্দের গান হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়েছিল গানটি, কিন্তু ২০১৬-র উইন্টার সেমিস্টারে যখন ইলমিনাউ ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি-র মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিকেশন সায়েন্স বিভাগের মাস্টার্স পর্বের শিক্ষার্থীদের টিউটর হিসেবে দায়িত্ব পেলাম, সে সময় গানটার পদোন্নতি ঘটেছিল একটা বিশেষ উপলক্ষকে কেন্দ্র করে। টিউটর হিসেবে কাজ করার সময় এক নবাগতার সাথে আমার সম্পর্কটা একটু বেশিই গাঢ় হয়ে গিয়েছিল। তখন আমরা প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ওই গানটা চালিয়ে দিতাম, কারণ আমাদের দু'জনেরই কমন একটা পছন্দের গান ছিল সেটা। ঘুম ভাঙ্গতো কফি আর প্রিয় একটা গানের সাথে। গানের লিরিকের যে অংশটা আমাদের দুইজনকেই প্রায় 'গুজবাম্প' দিতো সেটা হল-

"I'm hooked on a feeling
I'm high on believing
That you're in love with me"

হুকড্ অন এ ফিলিং- এর নেশায় ডুবে থাকার সময়কাল হিসেবে ধরা যায় অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০১৬। তারপর কেটে গিয়েছিল নেশাটা। অন্য কিছু গান অল্প-স্বল্প উঁকি দেয়ার চেষ্টা করছিল যেমন, ফুল অ্যারাউন্ড অ্যান্ড ফল ইন লাভ। তবে বেশিদিনের স্থায়িত্ব ছিল না ওগুলোর।

কাট ইট - ও.টি. জেনেসিস

এই একটা গান দিয়েই আমি প্রেমে পড়ি পুরো হিপ-হপ, র‍্যাপ, ট্র্যাশ-র‍্যাপসহ সবগুলো কাছাকাছি গানের ঘরানার। সময়কাল মে, ২০১৭। সে সময়ের বান্ধবী তখন আমার চেয়েও দেখতে-শুনতে ভাল টাইপের একটা ছেলের জন্য আমাকে ছাড়ি-ছাড়ি করছে। আমি দেখছি-শুনছি, কিন্তু কিছু করতে পারছি না। সময়টা ছিল ভয়ংকর। যদিও এখন যখন ওই সময়টা নিয়ে ভাবি, তখন আমার কাছে পুরো ব্যাপারটাকে হাস্যকর মনে হয়। মানে আমি যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছিলাম সে সময়ের ঘটনাগুলোর প্রতি- সেগুলোকে হাস্যকর মনে হয়, কিন্তু ব্যাপারগুলো আমার সাথে ঘটা যে জরুরি ছিল তা সর্বৈব সত্য। ওই সময় মন খারাপ হতে ধরলেই স্পটিফাইয়ে চালিয়ে দিতাম- কাট ইট। প্রথম লাইন থেকেই আস্তে আস্তে মন খারাপ ভাবটা তীব্রতা হারাতে শুরু করতো।

"Cut it, cut it, cut it, cut it
Cut it, cut it, cut it, cut it
Them bricks is way too hot, you need to cut it
Your price is way too high, you need to cut it"

পরে একসময় আস্ত হিপ-হপ ঘরানাটাই হয়ে উঠলো আমার সবচেয়ে প্রিয় জনরা, গানের ক্ষেত্রে। যদিও আজকের তালিকায় আর কোনো হিপ-হপ গান নেই। তবে মোটের ওপর আমি সবচেয়ে বেশি পছন্দ করি হিপ-হপ শুনতে।

লেট হার গো- প্যাসেঞ্জার

আগের দুইবারের পর এইবারেরটা ছিল একটা 'রিবাউন্ডিং' ধরনের সম্পর্ক। প্রথম থেকেই জানতাম এইটাতে আমার মন খুব বেশি দিন টিকবে না। মস্তিষ্কও আমাকে সেভাবেই প্রস্তুত করে তুলছিল। ওই সময় টানা শুনতাম প্যাসেঞ্জারের 'লেট হার গো' গানটা। আর সে সময়ের সঙ্গিনী গানটা শুনতেই পারতো না। বিশেষ করে নিচের লাইনটা এলেই সে রীতিমতো তেলে-বেগুনে জ্বলে উঠতো-

"Only know you love her when you let her go."

তবে গানের প্রত্যেকটা লাইনই চমৎকার। বিশেষ করে পপ-গান প্রেমীদের কাছে এটা টাটকা মধুর মতো। আমার ক্ষেত্রে এই গানের প্রেমে হাবুডুবু খাওয়ার সময়কাল অগাস্ট-সেপ্টেম্বর, ২০১৭।

হেইলো- বিয়ন্সে

এই গানের সাথে জড়িয়ে আছে গেল বছরের ট্রিয়াস্টে-বুদাপেস্ট ভ্রমণের স্মৃতি। ট্রিয়াস্টে হচ্ছে ইতালির ছোট্ট একটা দ্বীপ-শহর, অ্যাডিয়াট্রিক সাগরের পাড়ে অবস্থিত। মূলত একটি বন্দর-নগরী। অ্যাড্রিয়াটিকের পাড়ে যুৎমতো একটা জায়গা খুঁজে নিয়ে, এই গানের সাথে মৌতাত করার মতো সুখ জগতের খুব কম বিষয়ের মাঝেই লুকিয়ে আছে। গানটা সাগরের নীল জল, টাটকা বাতাস আর দূরের ওই দিগন্তের গিয়ে আকাশের সাথে মিশে যাওয়ার প্রবণতার সাথে খুব ভাল যায়। বারবার শুনেও ক্লান্তি আসে না- এমন একটা গান। ওটায় খুব জোরেশোরে ক্রাশ খাওয়ার সময়কাল হিসেবে ডিসেম্বর-জানুয়ারী, ২০১৮- কে ধরা যায়। যদিও এখনও প্রায়ই শুনি গানটা। পুরো গানটাকেই আমার এক সুতোয় গাঁথা মনে হয়, এ কারণে আলাদা করে কোনো অংশ উল্লেখ করলাম না!

দিজ ডেইস্- রুডিমেন্টাল

আবার প্রেম। আবার ছ্যাঁকা। আমার জীবনটাকে আমি পছন্দ করি এইজন্যই বেশি। আমার প্রেমে পড়তে বেশি সময় লাগে না, প্রেম থেকে বের হতেও বেশি সময় লাগে না, আবার অনুভূতির তীব্রতাও কখনও কম হয় না। প্রত্যেকবার বরং আগের চেয়ে বেশি তীব্রভাবে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সবকিছু অনুভব করি। আমার নিজের ভিতরে যে এতোটা জীবন এখনও বাকি আছে- সেইটাই জানার সুযোগ হতো না যদি সহজে প্রেমে পড়তে পারার সুবিধাটা না থাকতো।

যাহোক এইবারের সম্পর্কটা ছিল ক্যাজুয়াল টাইপের ডেটিং শুধু, কিন্তু আমি প্রথম থেকেই ভেবে নিয়েছিলাম- কি না কি জানি হয়ে গেছে, খুঁজে পেয়েছি যাকে খুঁজি আমি আনমনে! ভুল ভাঙতে লেগেছিল দুই সপ্তাহ বা তারও কম সময়। মন ভাঙতে লেগেছিল মাত্র একদিন। এক সকালে তাকে ঘুমের মধ্যে রেখে বাসায় এসেছি চেঞ্জ নিয়ে আবার তার কাছে ফিরে যাবো বলে। সে তারই মধ্যে মেসেজে জানায় দিলো যে, আর দেখা করতে চায় না। সে মুহূর্তটাতে আমার মনে হয়েছিলো একটা বিশাল বুলডোজার নিমিষে যেন বুকটাকে ভেঙ্গে মাটির সাথে গুঁড়িয়ে দিয়ে চলে গেল। আমি হাতে সেই 'পাউডার' নিয়ে বসে থাকলাম!

সময়কালটা হচ্ছে মধ্য-মার্চ, ২০১৮। ওই সময়ে গানটা যে কি সাহায্য করছে বলে বোঝানো সম্ভব না। বিশেষ করে নিচের অংশটা যতোবার শুনতাম, ততোবার মনে সুতার মতো চিকন এক পরত করে সাহস জমা হতো। সেইভাবে জমাতে জমাতে এক সময় সাহসের দেয়াল গড়ে তুলেছিলাম। অংশটা হচ্ছে-

"Love is just a tool
To remind us who we are
And that we are not alone
When we're walking in the dark."

আজ যখন একটা সময় পার হয়ে এসে গানটা শুনি, ওই সময়গুলোর কথা ভাবি; তখন বুঝতে পারি অভিজ্ঞতাগুলো কি পরিমাণ দরকারি ছিল! ধন্যবাদ দিতে চাই সেই সবাইকে যারা আমাকে অভিজ্ঞতাগুলো দিয়ে সমৃদ্ধ করেছে। নাহলে আমার জীবনটা আমি যেভাবে সাজাতে চেয়েছিলাম সেভাবে সাজাতে পারতাম না, এবং আমরা যেটাকে বলি "জীবনটা পানসে হয়ে যাওয়া", নিশ্চিতভাবে সেটাই হতো।

লাইক আ'ম গনা লুজ ইউ- মেঘান ট্রেনর

এই গানটার লুপ-এ আটকা পড়েছি নভেম্বর, ২০১৮- তে। যে সুপারশপটায় আমি ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত দশ মাস কাজ করেছি- সে সুপারশপটার বস্-এর কথা ভাবতে ভাবতে একদিন এই গানটা শুনছিলাম। শোনা ও ভাবা দুইটাই চলছিল সমানতালে। আমাদের মস্তিষ্কে যখন একসাথে দুইটা জিনিস ঢুকতে নেয়, তখন সবসময় বাড়তি সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। নাহলে সহজেই ঝামেলা দাঁড়িয়ে যেতে পারে। সেদিন যেমন আমি দুইটা বিষয়ের মধ্যে এমন ডুবে গিয়েছিলাম যে, মুহূর্তের ভেতরে মস্তিষ্কের নিউরণগুলোতে আলোড়ন উঠে গিয়েছিল তুমুলহারে। গানে তো ক্রাশ খেলামই, বস্-এও ক্রাশ খেয়ে গেলাম! কি যে বিড়ম্বনা! তবে আমি বিষয়টাকে সন্তপর্ণে নিজের ভেতর লুকিয়ে রেখেছি, কেননা বস্-এর ওপর ক্রাশ খাওয়া কখনোই পেশাদার মনোভাব বহন করে না।

যাহোক মেঘান ট্রেনরের ওই গানটা মূলত পারিবারিক-ভালবাসাকে কেন্দ্র করে লেখা। সেটাও যায় আমার সাথে। পরিবারের সদস্যদের সাথে সামনাসামনি দেখা হয় না আজ চার বছর এক মাস ২৭ দিন। এর মধ্যে পরিবারের সদস্য সংখ্যা একটা বেড়েছে। ছোট্ট ভাগনীটার সাথে আমার কেবল প্রযুক্তির কল্যাণেই দেখা-সাক্ষাৎ ঘটছে। এখনও তাকে কোলে নেয়ার সুযোগ হয় নি। একটা গানের লুপ-এ আটকা পড়তে এত বড় কারণ আমার লাগেও না। আর বলেছি তো আগেই, আমার যখনই খারাপ লাগে, অথবা কঠিন সময় যাচ্ছে বলে মনে হয়, কিংবা কাউকে মিস্ করি- তখন আমাকে গান, সিনেমা, বই, শরীরচর্চা ইত্যাদি অনেক রকমের থেরাপির আশ্রয় নিতেই হয়। মেঘানের গানটির যে অংশটা আমার সবচেয়ে ভাল লাগে সেটা দিয়েই আজকের লেখাটি শেষ করবো। তার আগে আরও একটু প্রাসঙ্গিক কথা বলে নিই।

আমি আসলেই খুব সহজে প্রেমে পড়তে পারি। আমাকে 'ইমপ্রেস্‌' করতে প্রায় কিছুই করা লাগে না। সত্যি বলতে কি, নিজের এই দিকটাকে আমি একটু বেশিই পছন্দ করি। এটা আমাকে জানান দেয় যে, ক্রমাগত কংক্রীটে রূপান্তরিত হতে থাকা এই সমাজের একজন সদস্য হওয়া সত্বেও নিজের ভেতরে একটা 'সফট্' আর 'ইজি-গোয়িং' অংশ আমি এখনও ধরে রাখতে পেরেছি। প্রত্যেকটা অভিজ্ঞতা যদিও আমাকে ধীরে ধীরে শক্ত তুলছে। তাই ইদানীং প্রেমে পড়ার বিষয়টা আগের মতো 'স্পন্টেনিয়াসলি' ঘটে না, কিন্তু তাতেও আমি কোনো সমস্যা দেখি না। এমনকি নিজেকে এখন আমি ব্রেকও করতে পারি প্রয়োজনমতো। ব্যাপারটা দারুণ! তাই না?

'লাইক আ'ম গনা লুজ ইউ' গানের একটা ছোট্ট অংশ নিচে উদ্ধৃত করেছি, আমার কাছে গানটাকে মনে হয় একটা আস্ত কবিতা। আপনার কাছে কি মনে হয় জানায়েন। ধন্যবাদ, শুভকামনা;

"So I'm gonna love you like I'm gonna lose you
And I'm gonna hold you like I'm saying goodbye
Wherever we're standing
I won't take you for granted
'Cause we'll never know when, when we'll run out of time."

---

পোস্টটি ৪ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

বিষণ্ণ বাউন্ডুলে's picture


চমৎকার আইডিয়া, ভাল্লাগছে।

শেষেরটা কমন পড়ছে, টু গুড।

মীর's picture


তাহলে অন্যগুলাও খারাপ লাগবে না, গ্যারান্টি দিতে পারি। অবশ্য হিপ-হপ গানটার কথা বলা যায় না, কারণ জানোই তো, হিপ-হপের কথা-গায়কী-সঙ্গীতায়োজন সবই ভিন্ন। বাকিগুলো কিন্তু সব পপ জনরার গান। সবগুলোই লিরিকে, কম্পোজিশনে, রেটিংয়ে, র‍্যাংকিংয়ে দূর্দান্ত!

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

মীর's picture

নিজের সম্পর্কে

স্বাগতম, আমার নাম মীর রাকীব-উন-নবী। এটি একটি মৌলিক ব্লগ। দিনলিপি, ছোটগল্প, বড়গল্প, কবিতা, আত্মোপলব্ধিমূলক লেখা এবং আরও কয়েক ধরনের লেখা এখানে পাওয়া সম্ভব। এই ব্লগের সব লেখা আমার নিজের মস্তিষ্কপ্রসূত, এবং সূত্র উল্লেখ ছাড়া এই ব্লগের কোথাও অন্য কারো লেখা ব্যবহার করা হয় নি। আপনাকে এখানে আগ্রহী হতে দেখে ভাল লাগলো। যেকোন প্রশ্নের ক্ষেত্রে ই-মেইল করতে পারেন: bd.mir13@gmail.com.

ও, আরেকটি কথা। আপনার যদি লেখাটি শেয়ার করতে ইচ্ছে করে কিংবা অংশবিশেষ, কোনো অসুবিধা নেই। শুধুমাত্র সূত্র হিসেবে আমার নাম, এবং সংশ্লিষ্ট পোস্টের লিংকটি ব্যবহার করুন। অন্য কোনো উপায়ে আমার লেখার অংশবিশেষ কিংবা পুরোটা কোথায় শেয়ার কিংবা ব্যবহার করা হলে, তা
চুরি হিসেবে দেখা হবে। যা কপিরাইট আইনে একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। যদিও যারা অন্যের লেখার অংশবিশেষ বা পুরোটা নিজের বলে ফেসবুক এবং অন্যান্য মাধ্যমে চালিয়ে অভ্যস্ত, তাদের কাছে এই কথাগুলো হাস্যকর লাগতে পারে। তারপরও তাদেরকে বলছি, সময় ও সুযোগ হলে অবশ্যই আপনাদেরকে এই অপরাধের জন্য জবাবদিহিতার আওতায় আনার ব্যবস্থা নেয়া হবে। ততোদিন পর্যন্ত খান চুরি করে, যেহেতু পারবেন না নিজে মাথা খাটিয়ে কিছু বের করতে।

ধন্যবাদ। আপনার সময় আনন্দময় হোক।