ইউজার লগইন

ফেসবুক পেইজ চালান

১.

আপনারা প্রায় সবাই ফেসবুক পেইজ চালান। ফেসবুক বর্তমানে ব্যাবসার অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে। বিশেষত শপিং সেন্টার কিংবা তথাকথিত 'ফিজিক্যাল' বিক্রয়কেন্দ্রবিহীন ব্যাবসাগুলোর কাছে, খরিদ্দারের কাছে খবর পৌঁছানোর অন্যতম মাধ্যম হিসেবে বর্তমানে জনপ্রিয়তার তালিকায় প্রথম দিকেই অবস্থান করছে ফেসবুক।

এর অন্যতম কারণ হচ্ছে ফেসবুকের সুবিশাল তথ্য-ব্যাংক। বর্তমান বিশ্বের মোট জনসংখ্যার সাথে তুলনা করে বলতে গেলে-
পৃথিবীতে যতো মানুষ রয়েছে তার এক-তৃতীয়াংশ সমপরিমাণ ফেসবুক প্রোফাইল রয়েছে। যার অন্তত ৫০ শতাংশ নন-ফেক তথা প্রকৃত মানুষের প্রোফাইল। অর্থাৎ পৃথিবীর প্রতি ছয় থেকে সাত জন মানুষের জন্য রয়েছে একটি করে অরিজিনাল ফেসবুক প্রোফাইল!

ফেসবুকের অ্যালগরিদম প্রতিনিয়ত ফেক প্রোফাইল চিহ্নিত ও অচল করার কাজে নিয়োজিত বিধায় এটাও বলা যায়, ভবিষ্যতে ফেসবুকে প্রকৃত প্রোফাইলের সংখ্যা বাড়বে বই কমবে না। সেই সঙ্গে বাড়বে তৎসংলগ্ন প্রতিযোগিতাও।

তথ্য-ব্যাংক কি করে অনলাইনে কেনাকাটার মাধ্যম হিসেবে ফেসবুক-কে জনপ্রিয় করে তুলছে তার একটি ছোট্ট উদাহরণ এখানে লিপিবদ্ধ করতে চাই। তার আগে নিজের ছোট্ট পরিচয়। আমার নাম মীর রাকীব-উন-নবী। বন্ধুরা মীর বলে ডাকে। আমি জার্মানির ব্ল্যাক ফরেস্ট অঞ্চলে একটি জনসংযোগ এজেন্সিতে কাজ করি। এখানেই পড়াশোনা করেছি। আর বিশেষ কিছু নেই বলার মতো।

২.

সম্প্রতি আমি নিজের জন্য এক জোড়া জুতা কেনার উদ্দেশ্যে অ্যাডিডাস, নাইকি ইত্যাদি জনপ্রিয় কোম্পানির অনলাইন দোকানে খোঁজাখুজি করি। জানেনই তো, শপিংমল কিংবা শো-রুমে পণ্যের দাম তো দিতে হয়ই, তারপর দিতে হয় সেখানকার এসির ভাড়া! আর ভাল ভাল অফারগুলোও থাকে তো আজকাল অনলাইনে। কিন্তু সেদিনের খোঁজাখুজির পর থেকেই ফেসবুকে ঢুকলেই, আমায় তাদের জুতার বিজ্ঞাপন দেখানো হচ্ছে। যদিও আমি ফেসবুকে ওই কোম্পানিগুলোকে অনুসরণ করি না। তারচেয়েও মজার বিষয় হলো, আমি শুধু অ্যাডিডাস ও নাইকির জুতার খুঁজতে দু'টি অনলাইন দোকানে গুগলের ক্রোম ব্রাউজার দিয়ে ঢুকেছিলাম। এখন আমার ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম অ্যাপে অ্যাডিডাস, নাইকি, পুমা, গুচি ইত্যাদি পরিচিত ব্র্যান্ডগুলোর বিজ্ঞাপন তো আসছেই, আসছে নানাবিধ স্থানীয় ও কমপরিচিত জুতা প্রস্তুতকারকদের বিজ্ঞাপনও!

কি করে ঘটছে এ ঘটনা? তাও আবার উল্লিখিত প্রতিষ্ঠানগুলোর একটারও ফেসবুক পেইজ অনুসরণ না করেই?

খুব সহজ! অ্যাডিডাস, নাইকি ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের ফেসবুক পেইজ চালুর সময় একটি ছোট্ট কোড চেয়ে নিয়েছিল ফেসবুকের কাছ থেকে যার নাম 'পিক্সেল'। এই ছোট্ট কোডটিকে তারা তাদের ওয়েবসাইটের তথাকথিত ল্যান্ডিং পেইজের সাথে যোগ করে দিয়েছে। কিভাবে? তাতে আসছি একটু পরই। কোডটি কি করে? পৃথিবীর যে সকল ডিভাইস (যারা অনুমতি দিয়েছে) থেকে অ্যাডিডাস, নাইকি ইত্যাদি ব্র্যান্ডের জুতা খোঁজা হয়েছে সেই সব ডিভাইসকে ট্র্যাক করে। তারপর সেই ডিভাইসগুলোর খোঁজ গুগল, সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্যান্য বিজ্ঞাপনদাতাদের পাঠিয়ে দেয়।

এখন গুগল, ফেসবুক, ইন্সটাগ্রামসহ যতো প্ল্যাটফর্ম আছে, সব জায়গায় খবরটা চলে গেল, একটা পিক্সেল কোড জার্মানির ব্ল্যাক ফরেস্ট অঞ্চল থেকে একটা অনলাইন জুতার দোকানের খবর এনেছে। সেখানে ভাল জুতা বিশেষ ছাড়ে বিক্রি হচ্ছে। এর ফলে গুগল, ফেসবুক, ইন্সটাগ্রামের মতো প্ল্যাটফর্মগুলোর জন্য বিজ্ঞাপন ডেলিভারির কাজটা সহজ হয়ে গেল কিনা?

এখন ওদের অ্যালগরিদমকে আর ওয়েবসাইটের পর ওয়েবসাইটে কিংবা পেইজের পর পেইজে গিয়ে ভাল বিজ্ঞাপন আসলেই কোথায় আছে, "ক্লিক বেইট"-এ কোন বিজ্ঞাপনটি উপরের দিকে থাকলে ডিভাইস ব্যাবহারকারী ক্লিক করবে- ইত্যাদি কোনকিছুই বিশ্লেষণ করতে হচ্ছে না। (ক্লিক বেইট একটি বহুল ব্যাবহৃত টার্ম, আপনারাও হয়তো জেনে থাকবেন, অনলাইনে কিন্তু বিজ্ঞাপনদাতারা যা করেন তা একপ্রকার জুয়া খেলাই। শুধু ফ্যাক্টস্ আর ফিগারের ভিত্তিতে। এ নিয়ে ভবিষ্যতে আরেকটি পোস্ট লেখার ইচ্ছা আছে।)

যাহোক এভাবেই বিভিন্ন পেইজের পিক্সেল-রা সারা পৃথিবী থেকে প্রতিনিয়ত গুগল, ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, পিন্টারেস্ট, লিংকড্‌ইন, টুইটার ইত্যাদি প্ল্যাটফর্মের সাথে তথ্য আদান-প্রদান করছে। একেক প্ল্যাটফর্মে কোডগুলোর নাম একেক রকম। গুগলের কোডগুলোর নাম যেমন: গ্লোবাল সাইট ট্যাগ ও ইভেন্ট স্নিপেট। প্রথমটি ওয়েবসাইটের সবগুলো পেইজের 'হেড' সেকশনে এবং পরেরটি শুধু ল্যান্ডিং পেইজের 'হেড' সেকশনে কপি-পেস্ট করতে হয়। আপনার ওয়েবসাইট না থাকলে কিভাবে কি করতে হবে তাও বলছি একটু পরই।

কোডগুলো আপনারা যে কেউ নিজের যেকোন বার্তা/অফার সম্বলিত ল্যান্ডিং পেইজে যোগ করে অ্যাডিডাস, নাইকি-দের মতো ঠিক একই কাজটি করতে পারেন। এবং যারা আপনার পণ্যের মতো কোনকিছু এখন এই মুহূর্তে ইন্টারনেটে খুঁজছে (গুগলে কিংবা সোশ্যাল মিডিয়ায়) তাদের কাছে পাঠিয়ে দিতে পারেন আপনার বিশেষায়িত বার্তা। একদম তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী কাট-ছাঁট করেই। এবং সেখানেই আপনি দেখাবেন আপনার নিজস্ব ব্যাবসায়িক চিন্তার মুন্সীয়ানা। আপনার টার্গেট গ্রুপকে আপনি কতোটা ভাল বোঝেন, তাদের হাউসহোল্ড ইনকামের সাথে বিভিন্নরকম বয়সভিত্তিক গ্রুপ বা ক্যাটেগরির সম্পর্ক কি, কোন 'ইনকাম' ও 'এইজ' গ্রুপের মানুষের জন্য আপনার পণ্যটি পারফেক্ট- এই বিষয়গুলো যদি বিশ্লেষণ করতে পারেন তাহলেই চলবে। কোডটি আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ঠিকঠাকমতো যোগ করে দিতে পারলেই হল!

এরপর আপনার ওয়েবসাইটে যতো ভিজিটর আসবে, তাদের সবার জন্য একটি করে প্রোফাইল তৈরি হয়ে আপনার ফেসবুক পেইজের তথ্যভান্ডারে যুক্ত হতে থাকবে। আপনি কখনো তাদের নাম-ধাম কোনকিছু দেখতে পারবেন না (যুক্তিযুক্ত, নাহলে আর প্রাইভেসি বলে কি থাকলো!) কিন্তু তার ডেমোগ্রাফিক ডেটা-র প্রোফাইল পাবেন। তার কর্মকাণ্ডও একইভাবে ট্র্যাক হতে থাকবে ওই পিক্সেল কোডের দ্বারা। কেউ বেচাকেনা মাঝপথে ছেড়ে চলে গেলে, তাকে আলাদা করে বার্তা পাঠানোর কাজে ব্যাবহার করা যাবে সেই প্রোফাইল। যেমন ধরুন,

"আমাদের যে পণ্যটি আপনার পছন্দের তালিকায় ছিল, সেটিতে এখন বিশাল ছাড় চলছে!"

উপরোক্ত উদাহরণটি রি-মার্কেটিং এর একটি বহুলপ্রচলিত পন্থা। প্রচুর কোম্পানি এই লাইনটি ব্যাবহার করে। এই বার্তাটি এক দল উপযুক্ত ব্যাক্তিকে পাঠানোর জন্য আপনার প্রয়োজন শুধুমাত্র একটি ফেসবুক পেইজ এবং একটি ওয়েবসাইট। পাশাপাশি বিজ্ঞাপন চালানোর জন্য সামান্য অর্থ। যদি ওয়েবসাইট বানানো কষ্টসাধ্য হয়ে থাকে তাহলে অন্তত একটি ল্যান্ডিং পেইজ। আজকাল খুব স্বল্পদামে 'প্রস্তুতকৃত' ল্যান্ডিং পেইজ পাওয়া যায় ফাইভারসহ নানারকম ডিজিটাল সেবা কেনা-বেচার প্ল্যাটফর্মে। বাংলাদেশের অনেক ছেলেমেয়ে সে প্ল্যাটফর্মগুলোতে জায়গায় দারুণ সব কাজ করছে!

আবার ওয়েবসাইট ছাড়া শুধুমাত্র ফেসবুক পেইজ দিয়েও চালানো সম্ভব নানান মজার মজার বিজ্ঞাপন, এবং বিজ্ঞাপন ছাড়াও শুধুমাত্র পেইজ-সেটিংস্ এর উন্নয়ন ঘটানোর মাধ্যমে পৌছাঁনো সম্ভব আরও বেশি বেশি মানুষ তথা ভবিষ্যত কাস্টমারের কাছে। তবে এসব বিষয় লিখে বোঝানোর চেয়ে হাতে-কলমে দেখানো সহজ।

৩.

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় অনলাইন প্ল্যাটফর্ম হাবস্পট-এর প্রতিষ্ঠাতা ব্রায়ান হ্যালিগ্যান একবার বলেছিলেন, "What separates a good content from a great content is the willingness to take risk and push the envelope."

হাবস্পট-কে তর্কসাপেক্ষে বিশ্বের সবচেয়ে কন্টেন্টসমৃদ্ধ ব্লগগুলোর একটি হিসেবে ধরা হয়। এর প্রতিষ্ঠাতা ব্রায়ান হ্যালিগ্যানের কথাটা বাংলায় ভাবার্থ করা যায় অনেকটা এভাবে-

"একটি ভাল পোস্ট এবং একটি সফল পোস্টের ভেতর ফারাক কেবল ঝুঁকি নেয়ার এবং পরিশ্রম করার ইচ্ছার।"

অর্থাৎ, পণ্য/সেবা কিংবা সেটির পরিচিত পোস্ট ভাল হলেই যে সেটি ব্যাবসাসফল হবে এমন নাও হতে পারে। আপনার পণ্য/সেবাটির জন্য আপনি কতোটা পরিশ্রমের ইচ্ছে পোষণ করেন এবং কতোটা ঝুঁকি নিতে ইচ্ছুক- সেটির ওপরই মূলত নির্ভব করছে অনলাইন জগতের সফলতা।

আমার ব্যক্তিগত মতামত হলো, আজকালকার দিনে ভাল পণ্য রয়েছে প্রায় সবার কাছেই। ভাল ভাল পোস্টও তৈরি করতে পারি আমরা প্রায় সবাই-ই। হাতের কাছে ফ্রি বা স্বল্পমূল্যের ছবি ও ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার/টুল/অ্যাপ বলতে কানভা, ফটোশপ, আইমুভি, ইনশট কি নেই আমাদের? সবগুলো অ্যাপ-ই যেকোন স্মার্টফোনের ছবি বা ভিডিও ক্লিপকে পেশাদার বিজ্ঞাপনদাতাদের কন্টেন্ট-এর মতো বানিয়ে দেয়ার সামর্থ্য রাখে। তারপরও অধরা থেকে সোনার হরিণ কারো কারো কাছে।

হয়তো আপনার ফেসবুক পেইজের সেটিংস্-এ ছোট্ট কোনো একটি পরিবর্তন, ওয়েবসাইট থাকলে সেখানে একটি কোডের সংযোজন, কিংবা বিজ্ঞাপনের যেকোন একটি আইডিয়া- এ সমস্যার সমাধান করে দিতে পারে সহজেই। এক লেভেল এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে আপনার ফেসবুক গেইমকে!

আমার নিজস্ব একটি চিন্তা হলো, বাংলায় এমন একটি ইউটিউব চ্যানেল খোলা যেখানে বিষয়গুলো আমি নিজে যেভাবে বুঝি সেভাবে ব্যাখ্যা করা এবং সেই সাথে যেসব কাজ হাতে কলমে দেখানো সম্ভব- স্ক্রীন রেকর্ডিং এর মাধ্যমে দেখানো। এ ধরনের একটি চ্যানেলের সফলতা নির্ভর করে এর দর্শকদের আগ্রহ তথা ইন্টারঅ্যাকশনের ওপর। যদি চ্যানেলটিতে দর্শকরা নিয়মিত যান, ভিডিও দেখেন, এবং জরুরি যেটা সেটা হলো ভিডিওটি নিজের বন্ধুমহলে শেয়ার করতে তথা ভিডিওতে গঠনমূলক আলোচনা, নিজস্ব প্রজেক্টভিত্তিক প্রশ্ন কিংবা অভিজ্ঞতালব্ধ মতামত দিতে আগ্রহী থাকেন- তাহলে একটি ভলান্টিয়ার চ্যানেল খোলা সম্ভব। যেখান থেকে কোনো কোর্সে ভর্তি হতে বলা হবে না। কারণ কোর্স চালানোর মতো সময় আমার নেই। তবে মাসে একটি বা দুইটি বিশ্লেষণমূলক টিউটোরিয়াল প্রস্তুত করা সম্ভব। কেউ আগ্রহী হলে নিচে কমেন্টে জানিয়ে যান। আর নাহলেও সমস্যা নাই। পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ এবং সবার জন্য রইলো সফলতার শুভকামনা।

---

অফেনবুর্গ
৫.৯.২০২১

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

মীর's picture

নিজের সম্পর্কে

স্বাগতম। আমার নাম মীর রাকীব-উন-নবী। জীবিকার তাগিদে পরবাসী। মাঝে মাঝে টুকটাক গল্প-কবিতা-আত্মজীবনী ইত্যাদি লিখি। সেসব প্রধানত এই ব্লগেই প্রকাশ করে থাকি। এই ব্লগে আমার সব লেখার কপিরাইট আমার নিজেরই। অনুগ্রহ করে সূ্ত্র উল্লেখ না করে লেখাগুলো কেউ ব্যবহার করবেন না। যেকোন যোগাযোগের জন্য ই-মেইল করুন: bd.mir13@gmail.com.
ধন্যবাদ। হ্যাপি রিডিং!