ইউজার লগইন

সেই রঙিলাজনের জন্য

১.
সেদিন ক্যাপ্টেন ববি আর মেজর অনন্তের ঝগড়া হয়ে গেছে। সামনা-সামনি ক্রসফায়ারে দু'জনেই গুরুতর আহত হয়েছেন। অবশ্য যৎসামান্য ঘটনা থেকে এ গুলিকাণ্ডের উৎপত্তি। ছুটির দিন দুপুরে ক্যাপ্টেন বড় বড় গলদা চিংড়ির দোপেয়াজা রেধেঁছেন। ঝাল ঝাল করে। তাই খেতে খেতে মেজর বললেন, এরপরে ইয়েমেন।
সঙ্গে সঙ্গে প্রবল দ্বিমত আসলো ক্যাপ্টেনের দিক থেকে। মোটেও না, এরপরে সুদান। মেজর বললেন, আলী আব্দুল্লাহ সালেহ্ ৩২ বছর ধরে দেশটায় একনায়ক হয়ে আছেন। ক্যাপ্টেন প্রতিবাদ করলেন, তাতে কি? ওমর হাসান আল বশিরও ২১ বছর ধরে দেশটায় দুঃশাসন চালিয়ে যাচ্ছেন।
এমনিতে গলদা চিংড়ি মুখে ফেললেই মেজর সাহেবের বেড়ে যায় প্রেশার। তাও প্রিয় খাদ্যবস্তুটি টেবিলে ওঠানো হলে নিজেকে সামলাতে পারেন না। আর ক্যাপ্টেনও রাঁধেন এত চমৎকার করে যে, সামলানো সহজ না। একইসাথে রক্তে কোলেস্টেরল বাড়ানো চিংড়ি, এবং হরমোন নিঃসৃত উত্তেজনা। ফলাফল, লাঞ্চ টেবিলেই গুলি বিনিময়, চৌকস দুই অফিসারের মধ্যে।
সন্ধ্যেয় যখন ওয়েস্টার্ন ফ্রন্ট আ লিটল বিট কোয়াইট, তখন কিভাবে কিভাবে জানি মেজরের সঙ্গে দেখা হয়ে গেল এই অধমের। তিনি মন খারাপ করে নির্জনে বসে আছেন। বসে শুনছেন ম্যাচবক্স টোয়েন্টি'র আনওয়েল প্যানেল। জানতে চাইলাম, আপনি না বলে লালন আর ফোক ছাড়া অন্যকিছু প্রায় শোনেনই না?
-হ, কিন্তু দিলে দাগা পাইসি। তাই এখন এইটা শুনতেসি। খ্রাপ না। তুমার কি খবর?
আছি কুনুরকম। মিলায়-ঝিলায়ে।
এরপরে আমরা দুইজন বসে অনেকক্ষণ আলাপ-আলু-চনা-বুট চাবালাম। একসময় মেজর ঠান্ডা হলেন। তাকে বাড়ি পৌছে দিয়ে আসলাম।
২.
উনারা দুই ভাই। দু'জনেই সামান্য লুল প্রকৃতির। তাদের এক টুকটুকে ভাতিজার আম্মু বলে থাকেন, চাচারা সবাই লুল, তাই ভাতিজাও ফেলে লুল। বাংলা ব্লগের এক মালকিনের সঙ্গে দু'জনের ছবি দেখে ভাতিজার আম্মুর কথা সত্য মনে হলো। প্রসঙ্গতঃ আমি নিজেও লুল কম না। তাদের দু'জনের জন্য, এই নশ্বর জীবনের মানে শুধু তোমাকেই চাওয়া
৩.
বুকটুশ-বুকটুশি মারপিট লাগসে। তারা এই মারপিট করে তো, এই আবার সব ঠিক-ঠাক। আবার শুরু হাসা-হাসি, হৈ হৈ। জানতে চেয়েছিলাম, আপনারা খালি মারপিট করেন কেন? বুকটুশি বলে, নাইলে ঠিক জুৎ পাই না। আরেকজন বলে, সে না পাইলে আমিও পাই না। বাহ্ দুই বন্ধুর মধ্যে কত্তো মিল!
দুইজনকে নিয়ে শাহবাগে বসে বসে একদিন চানাচুর মাখা খাচ্ছি। মাখাটা জিভে জল আসা টাইপ ভালো হয়েছে। দ্বিতীয় রাউন্ডের অর্ডার করার মুখে মুখেই নান্নু পাগলা হাজির। আমাকে দেখেই; ঐ চানাচুর খাওয়া। আমি চানাচুরওয়ালাকে বললাম, ওরে চানাচুর দেও। দেয়ার আগে ভালোমতো ওর দাবি-দাওয়া শুইনা নাও। যদিও লাভ নাই। যত ভালোই মাখো না ক্যান, সরকট্ একটা ঠিকই বাজাবে।
সঙ্গের দুইজনের কাছে আগে নান্নুর পাগলামির গল্প করসি। তাই ওরা দুইজন দেখার জন্য ওয়েট করতেসে, শেষ পর্যন্ত পাগলটা কি করে। আশ্চর্যের বিষয়, চানাচুর মাখার মতো মোক্ষম একটা পাগলামির উপাদান হাতে নিয়ে নান্নু কোনো খেলই দেখালো না। নিরসবদনে জিনিসটা শেষ করে হাত পাতলো, টাকা দে।
নান্নুকে কখনো বেশি টাকা দিতে নেই। তাহলে সে মহাযন্ত্রণা শুরু করে। সেদিন এ কথাটা ভুলে যাওয়ার কারণে বিশ টাকার একটা নোট যেই না ওর দিকে বাড়িয়ে দিয়েছি সঙ্গে সঙ্গে; বন্ধুদেরকে দেখায় দেখায় ফুটানি করস, অ্যাঁ? আমি জানি না, তোর পকেট থিকা কোনোদিন দুই টাকার বেশি বাইরয় না। আজকে বিশ টাকা দেখাস আমারে, নিলাম না তোর টাকা যা।
বলে টাকাটা মুচড়ে আমার হাতে গুঁজে দিয়ে হনহন করে হেঁটে চলে গেল। পেছন থেকে ওর শাপ-শাপান্ত বেশ টের পেলাম। মাঝে মাঝে চিন্তা করি, সাধে কি আর মানুষ ওকে পাগল বলে?
রাত ১০ টা পেরোনোর সঙ্গে সঙ্গে বুকটুশি বাসায় যাওয়ার জন্য খুনখুন শুরু করলো। অগত্যা কি আর করা, ওদরেকে ছেড়ে দিতে হলো। যদিও ইচ্ছে হচ্ছিলো আরো অনেকক্ষণ বসে বসে গল্প করার। সেদিনের আড্ডার কথা মনে থাকবে অনেকদিন। দু'জনকেই সেই ভুলে ভরা গল্প, মনে করিয়ে দিলাম আরেকবার।
৪.
আমরা তিনজন বোজম ফ্রেন্ড। দুইজন চেইন স্মোকার, একজন চেইন টলারেটর। সঙ্গে এমন অমায়িক টলারেটর থাকার জন্যই মনে হয় একসাথে থাকাকালীন সময়গুলোয় স্মোক করতে ভালো লাগে বেশি। আমি গোল্ড লীফ আর আরেকজন বেনসন, সমানে টানতে থাকি দুইপাশ থেকে।
সেদিন তিনজনে গেলাম নন্দনে। আমরা দুই আবিয়াইত্যা উদাস মুখে বসে আছি। এক্সট্রা কাপড় নাই। পানিতে নামলে বিপদ। আরেকজন যে বিবাহিতা এবং ফুটফুটে একটি কন্যা আছে, ধুম-ধাম পুলে নেমে, আমাদের দিকে পানি-টানি ছিটিয়ে একাকার করা শুরু করলো। এইটা দেখে সঙ্গের জন, ধুরো কি আছে দুনিয়ায় -বলে বসা অবস্থা থেকে পুলে লাফ দিলো। এরপরে আমি আর বসে থাকি কেমনে?
ফেরার সময় অবশ্য ইচ্ছে করে সাইকেল জোরে জোরে টেনেছিলাম, যাতে ঠান্ডা টের পেতে কারো কোনো সমস্যা না হয়। শকুনের মুখে ছাই দিয়ে তারা উভয়েই চুল উড়াতে উড়াতে ফিরে আসলেন। আমি ঠান্ডায় কাবু হয়ে পড়লাম।
মাঝে মাঝে ভাবি, রং বেশি থাকার কথা আমাদের দুইজনের মনে। কারণ হিসেব অনুযায়ী আমরা দুইজন এখনো জীবিত। কিন্তু বাস্তব এরকম উল্টো কেন? যাক্, উল্টো বলেই; যে যেটা বোঝে না, তাকে সেটাই আরেকবার, কিভাবে বলি কেন তোমাকে চাই
আর সবশেষে যে কথাটি না বললেই নয়; আমরা তিনজন যে সুযোগ পেলেই দিক-বিদিকে ছুট দিই, সেটা মোটেও খারাপ লাগে না কিন্তু। প্রিয় সেই রঙিলাজনের জন্য, খুবই প্রিয় একটি গান, আমারে ছাড়িয়া রে বন্ধু...
---

পোস্টটি ৮ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

জ্যোতি's picture


Big smile Big smile
দারুণ সব কুটকুট গল্প। গল্পের লুকজনরে চিনপরিচিত লাগে। Big smile
পছন্দের সব গান দিলেন। তোমাকেই বলে দিবো শুনতেছি। আহা।আপনাকে ৫ কেজি ধইন্যা। মন্টা ফুরফুরা হয়ে গেলো।

মীর's picture


কুটকুট শব্দটা চমৎকার হইসে। Smile
মিস্ কুটকুট, ভিডিওটায় বস্ নিজে আছেন।

জ্যোতি's picture


এগেইন ধইন্যাপাতা। ধইন্যা পাতা
গান শুনে মন উদাস।
গল্প কইলেন আপনি কুটকুট করে। নাম দিলেন আমার! ভালু।

রাসেল আশরাফ's picture


কি কোড দিয়া গল্প লিখো বুঝি না কিছু আরেকজন দাতঁ কেলায়তেছে।

ঙ্খ্রামি আর ভালো লাগে না।এই জন্য দিলাম মাইর মাইর মাইর

জ্যোতি's picture


আজ মাজেন নাই?এইজন্য দাঁত কেলান না?নাহ্ এই চুং বুং এর দেশে থেকে আপনার যে কি হবে!

মীর's picture


রাসেল ভাইরে তো সবসময় চুম্মা

জ্যোতি's picture


ছি ছি। এসব কি?নাউজুবিল্লাহ মিন................

রাসেল আশরাফ's picture


আস্তাগফিরুল্লাহ ইমো ক্যান এখানে?? মাইর মাইর মাইর মাইর

জ্যোতি's picture


আপনেরেই তো দিছে। Big smile Tongue
নিজের মাথায় নিজেই বাড়ি দিতাছেন কেন?আজব তো!

১০

মীর's picture


ওইটা লজ্জা পাইসে তাই Big smile @ জয়িতা'পু

১১

জ্যোতি's picture


Big smile Tongue

১২

লীনা দিলরুবা's picture


আগে গান টা শুনি তারপর এই পোস্ট এ সোয়াশো কমেন্ট করুম। কি- কেন- কিভাবে Wink

১৩

জ্যোতি's picture


আমারে ছাড়িয়া বন্ধু কই রইলারে। Crying Crying গান মনে পড়ছে। এখন আর মন বসবে না ব্লগে।

১৪

মীর's picture


গানটা রিমিক্স। শচীনকর্তার অরিজিনাল ভার্সনটা পাচ্ছি না।
সৈয়দ মুজতবা আলীর বই আছে দেশে-বিদেশে, পড়সেন?

১৫

জ্যোতি's picture


দেশে-বিদেশে আছে আমার কাছে। পড়ছি তো। Smile
এই ব্লগে একজন বুকটুসরে আমি চিনি। আপনি কি তার কথা কইছেন।?থাক জিগামু না আপনেরে । তাইলে আবার কইবো নখ্রামি। Big smile

১৬

লীনা দিলরুবা's picture


পড়ছি। খুব প্রিয় বই।

গানগুলাতো জটিল দিছেন মীর। আপ্নে আগামী কয়েকটা পোস্ট শুধু গান নিয়া দিবেন। আপনার গানের চয়েস ইর্ষাজাগানিয়া ভালো্। 'তু জানে না' গানটা মাথাটা পরিস্কার করে দিচ্ছে
: )

আমরা বাংলাদেশের পরের ম্যাচের রাতে রাতভর ঘুরবো পরিকল্পনা করতাছি Laughing out loud

১৭

মীর's picture


উত্তম। ঘুরাঘুরি মনের জন্য খুবই ভালু। Big smile
কৈলাশ খের সবসময় রক্স।

১৮

কিছু বলার নাই's picture


ওই, আমিও ঘুরতে চাই রাতভর! আমারে নিও!

১৯

লীনা দিলরুবা's picture


"নিলাম নিলাম নিলাম, আমি তোমার বুকের ভেতর চমকে উঠেছিলাম!"

'নিলাম' লিখতে গিয়ে লাইনটা মনে পড়ে গেল।
তুমিও যাইতেছ তাইলে Smile

২০

কেউ's picture


ধইন্যা পাতা ধইন্যা পাতা ধইন্যা পাতা নেও, কয়টা তেতুল কিন্না ভর্তা বানাইয়া খাইয়ো Laughing out loud

২১

কিছু বলার নাই's picture


ধইন্যা পাতা ধইন্যা পাতা ধইন্যা পাতা নেও কয়টা তেতুল কিন্না ভর্তা বানাইয়া খাইও। (একটু আগে একি কমেন্ট দিছি, দেখি লগইন করা নাই, অতিথি হিসাবে গিয়া মডারেশন কিউতে জমা হইছে!)

২২

লীনা দিলরুবা's picture


অতিথি কমেন্ট কালকা আসবে Smile

ধইন্যা পছন্দ হৈছে। তেঁতুল নাই, খালিই খাইয়া নিলাম (চমকে উঠেছিলাম Smile )

২৩

কিছু বলার নাই's picture


তোমার চমকাবার কথা শুইনা তো আমি চমকাইয়া গেলাম! চমকাইছো ক্যান!

২৪

লীনা দিলরুবা's picture


আরে 'নিলাম' শব্দটা লিখলেই 'চমকে উঠেছিলাম' লিখতে ইচ্ছা করতেছে। নিলাম এর ছন্দোবদ্ধ রূপ।

২৫

কিছু বলার নাই's picture


ওহোহোহো, ছরি! Drunk

২৬

নজরুল ইসলাম's picture


দিলেন তো আমারেও মনে করায়ে... আহা, দারুণ কবিতা-

দুপুর বেলায় নিলাম
নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী

অকস্মাৎ কে চেঁচিয়ে উঠল রক্তে ঝাঁকি দিয়ে
"নিলাম নিলাম নিলাম!"
আমি তোমার বুকের মধ্যে উঁকি মারতে গিয়ে
চমকে উঠেছিলাম।

অথচ কেউ কোথায় নেই তো, খাঁ খাঁ করছে বাড়ি।
পিছন দিকে ঘুরে
দেখেছিলাম, রেলিং থেকে ঝাঁপ দিয়েছে শাড়ি
এক গলা রোদ্দুরে।

বারান্দাটা পিছন দিকে, ডাইনে বাঁয়ে ঘর,
সামনে গাছের সারি।
দৃশ্যটা খুব পরিচিত, এখনো পর-পর
সাজিয়ে নিতে পারি।

এবং স্পষ্ট বুঝতে পারি, বুকের মধ্যে কার
বুকের শব্দ বাজে
হায়, তবু সেই দ্বিপ্রাহরিক নিলাম ঘোষণার
অর্থ বুঝি না যে।

"নিলাম নিলাম!" কিসের নিলাম? দুপুরে দুঃসহ
সকাল বেলার ভুলের?
এক বেণীতে ক্ষুদ্ধ নারীর বুকের গন্ধবহ
বাসী বকুল ফুলের?

"নিলাম নিলাম!" ঘন্টা বাজে বুকের মধ্যে, আর
ঘন্টা বাজে দুরে।
"নিলাম নিলাম!" ঘন্টা বাজে সমস্ত সংসার
সারা জীবন জুড়ে।

২৭

লীনা দিলরুবা's picture


অকস্মাৎ কে চেঁচিয়ে উঠল রক্তে ঝাঁকি দিয়ে
"নিলাম নিলাম নিলাম!"
আমি তোমার বুকের মধ্যে উঁকি মারতে গিয়ে
চমকে উঠেছিলাম।

উফ! মাথা খারাপ করে দেয়া লাইন Smile

নজরুল ভাই আপনার বইর লিস্টি দেন। কি কি বই কিনলেন, কেন বইটা কিনলেন সেই গল্প বলেন। আপনার উমদা লেখাগুলা মিস করি। নিয়মিত হোন ব্রাদার।

২৮

জ্যোতি's picture


আমি তোমার বুকের মধ্যে উঁকি মারতে গিয়ে
চমকে উঠেছিলাম।

নাউজুবিল্লাহ। কি নাফরমানি কথা!

২৯

লীনা দিলরুবা's picture


হাহাপেফা

৩০

কিছু বলার নাই's picture


মাইর

৩১

মীর's picture


এই লুকটার কোনো ভয়-ডর নাই নাকি?

৩২

কিছু বলার নাই's picture


কার!

৩৩

মীর's picture


কার আবার? আপনার At Wits End

৩৪

কিছু বলার নাই's picture


ভয়ের কি হইল!

৩৫

মীর's picture


ওহ্ আপনে একটা জিনিস Nail Biting Timeout

৩৬

কিছু বলার নাই's picture


একটা উপকার করলাম, আর আপনে কি সব ভয়ডরের প্যাচাল শুরু করলেন। যত্তসব।

৩৭

মীর's picture


অবশ্য সেইটা ঠিক Big smile ধইন্যাপাতা আপ্নারে। ধইন্যা পাতা

৩৮

কিছু বলার নাই's picture


আমিতো একবারেই পাইয়া গেলাম। মাইরটা এই কারনে দেয়া হইছে।

৩৯

মীর's picture


আয় হায়। আপনার সঙ্গে এক বন্ধুর তীব্র মিল পেলুম। অত্যধিক বিস্মিত হবার ইমো হবে। প্লীজ হ্যাভ আ কোকা-কোলা ম্যা'ম। কোক

৪০

কিছু বলার নাই's picture


কোন বন্ধু! কি মিল! আর ডেভু আমাদের কোকের নাম দিয়া বিয়ার খাওয়ানোর ষড়যন্ত্র করতেছে অনেকদিন ধইরা...এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়ানো দরকার।

৪১

মীর's picture


আরে না বিয়ার না, বড়জোর সেভেনাপ হবে। তবে ইমোটা জটিল। সেকেন্ডটার কীর্তি-কলাপ দেখলে হাসি আটকানো মুশকিল। আর ডেভু এত বোকা না যে, দুইশ-আড়াইশ' টাকার জিনিস বিশ টাকায় দিয়ে দেবে।
সেই বন্ধুর নাম নাই। কেমনে যে আপনেরে চিনাই।

৪২

কিছু বলার নাই's picture


সেভেনাপ খাইয়া সেকেন্ডের এই হাল? Shock শেষের দুই লাইন কি ছড়া লেখছেন?

৪৩

মীর's picture


সেদিন কে জানি কৈসিলো, সিগারেটেই নাকি হাই হয়ে যায় Big smile

৪৪

কিছু বলার নাই's picture


কে কইছিল? হ, সিগারেটের একটা ছোট হাই তো আছেই। ছোট একটা কিক, আমার ভাল্লাগে ঐটা।

৪৫

মীর's picture


ঐটা ভালো লাগাই ভালো। Big smile

৪৬

কিছু বলার নাই's picture


হাহা, স্মোকিং বিরোধী আন্দোলনকারীরা পিটাইব আপনেরে এই কথা শুনলে।

৪৭

উলটচন্ডাল's picture


মীর ভাই, কত্তার ভার্সনটা এখানে পাবেন -

http://www.youtube.com/watch?v=oxAFTPqA-2M

৪৮

বাতিঘর's picture


মীর, আন্তরিকভাবে দুঃখিত ভাইটি!!! একটু মজাই করতে চেয়েছিলাম শুধু...আপনার অনুভূতিতে আঘাত করবার কোনো ইচ্ছাই আমার ছিলোনা ভাই! নীড়ুদা'কে আমি অনুরোধ করেছি ঐ পোষ্টে করা আমার মন্তব্যটা ডিলিট করতে, কিন্তু এখানে মনে হয় ডিলিটের অপশনটা নেই রে! যাইহোক, আমি আবারও ক্ষমা চাইছি আপনার অনুভূতিতে আঘাত করবার জন্য.....একজন সাধারণ সদস্য আর বন্ধুর মধ্যে যে ফারাক থাকে সেটা আমি খুব মনে রাখবো ভবিষ্যতে......আপনার মঙ্গলময় ভবিষ্যৎ কামনা করছি। শুভেচ্ছা নিরন্তর...........

৪৯

মীর's picture


রিলাক্স ব্রাদার। আমরা আমরাই তো। যে কারণে ভালো-মন্দ অসংকোচে জানাই। টেক ইট ইজি।
আপনার জন্য ধইন্যা পাতা

৫০

তানবীরা's picture


গানগুলো অসাধারণ। কোন গল্পের কাউরে চিনলাম না আফসুস Sad(

৫১

মীর's picture


আমিও তো কাউকে চিনি না। মানুষ খালি সবাইকে চিনে ফেলে। Big smile Big smile

৫২

নজরুল ইসলাম's picture


গল্পগুলা ভালো লাগলো, গানগুলা শুনি নাই

৫৩

উলটচন্ডাল's picture


গানগুলো অসাধারণ। ধইন্যা পাতা

৫৪

উলটচন্ডাল's picture


উপরে মন্তব্য করেছি - লগ আউট হয়ে গেলাম Sad

যাই হোক শচীন কত্তার ভার্সনটা পাবেন এইখানে

http://www.youtube.com/watch?v=oxAFTPqA-2M

৫৫

জ্যোতি's picture


Smile THNX
শুনলাম।আবারো শুনি।

৫৬

সাহাদাত উদরাজী's picture


ভাল লাগল। ইউটিউবের গান শুনতে ও দেখতে পারি না। আফসোস। অফিসে সাইট টা বন্ধ আছে!

৫৭

সাহাদাত উদরাজী's picture


ভাল লাগল। ইউটিউবের গান শুনতে ও দেখতে পারি না। আফসোস। অফিসে সাইট টা বন্ধ আছে!

৫৮

শওকত মাসুম's picture


সব কিছু ধরদে পারি নাই। ভোতা হইয়া গেছিলাম আগেই, এইবার কনফার্ম হইলাম।
আমারেও কিছু কইছেন নাকি মীর?

৫৯

নুশেরা's picture


কোডফোড ধরতে পারিনি। শুধু গদ্যগল্প হিসেবে পড়তেও ভালো লাগলো।

৬০

নাজ's picture


লুল লুল Big smile

৬১

নাজ's picture


আপনারে কৈলাম কিন্তুক Tongue

৬২

বিষণ্ণ বাউন্ডুলে's picture


চমৎকার তো!

আপ্নে আবার এমুন পোস্ট দেওন উচিৎ!

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

মীর's picture

নিজের সম্পর্কে

স্বাগতম, আমার নাম মীর রাকীব-উন-নবী। এটি একটি মৌলিক ব্লগ। দিনলিপি, ছোটগল্প, বড়গল্প, কবিতা, আত্মোপলব্ধিমূলক লেখা এবং আরও কয়েক ধরনের লেখা এখানে পাওয়া সম্ভব। এই ব্লগের সব লেখা আমার নিজের মস্তিষ্কপ্রসূত, এবং সূত্র উল্লেখ ছাড়া এই ব্লগের কোথাও অন্য কারো লেখা ব্যবহার করা হয় নি। আপনাকে এখানে আগ্রহী হতে দেখে ভাল লাগলো। যেকোন প্রশ্নের ক্ষেত্রে ই-মেইল করতে পারেন: bd.mir13@gmail.com.

ও, আরেকটি কথা। আপনার যদি লেখাটি শেয়ার করতে ইচ্ছে করে কিংবা অংশবিশেষ, কোনো অসুবিধা নেই। শুধুমাত্র সূত্র হিসেবে আমার নাম, এবং সংশ্লিষ্ট পোস্টের লিংকটি ব্যবহার করুন। অন্য কোনো উপায়ে আমার লেখার অংশবিশেষ কিংবা পুরোটা কোথায় শেয়ার কিংবা ব্যবহার করা হলে, তা
চুরি হিসেবে দেখা হবে। যা কপিরাইট আইনে একটি দণ্ডনীয় অপরাধ। যদিও যারা অন্যের লেখার অংশবিশেষ বা পুরোটা নিজের বলে ফেসবুক এবং অন্যান্য মাধ্যমে চালিয়ে অভ্যস্ত, তাদের কাছে এই কথাগুলো হাস্যকর লাগতে পারে। তারপরও তাদেরকে বলছি, সময় ও সুযোগ হলে অবশ্যই আপনাদেরকে এই অপরাধের জন্য জবাবদিহিতার আওতায় আনার ব্যবস্থা নেয়া হবে। ততোদিন পর্যন্ত খান চুরি করে, যেহেতু পারবেন না নিজে মাথা খাটিয়ে কিছু বের করতে।

ধন্যবাদ। আপনার সময় আনন্দময় হোক।