ইউজার লগইন

সম্রাটের মৃত্যু; তারপরের ভাংচুর; তারপরের আখসানুলের পোস্ট

বুয়েটের ছাত্র সম্রাটের মৃত্যু নিয়ে আখসানুলের পোস্ট পড়ে মনে হলো এব্যাপারে আরেকটু বলা যেতে পারে আমার তরফ থেকে... যদিও বলাটা আমার কাছে মোটেও বুদ্বিমানের কাজ বলে মনে হচ্ছেনা... বাংগালী বেশ আবেগী জাতি ... এই চরম আবেগের সময় উল্টা কথা কওয়া পাগল ছাড়া আর কারো করা উচিত না...

আখসানুলের পোস্ট টা পইড়া বিরক্তি ছাড়া আর কোন ভাবের উদ্রেক য়নি আমার মনে... পুরো পোস্টেই ইনডিরেক্টলি ভাংচুররে সমর্থন করার একটা প্রবণতা দেখলাম... হতে পারে আখসানুলের মাথাটা খানিক গরম আছে এই মুহুর্তে, তাই তার এই সুর...

সম্রাট এক দুর্ঘটনায় মারা গেছে... তার আত্মা শান্তি পাক... কিন্তু ভাংচুরের প্রতি ছাত্রদের উতসাহ দেখে মনে হচ্ছে সম্রাট কে হত্যা করা হয়েছে ইচ্ছাকৃত ভাবে...!!!!

বুয়েটের ছাত্ররা যেভাবে ''বুয়েটের ছাত্র মারা গেছে'' বলে ভাংচুরে ব্যাস্ত হল তাতে মনে সম্রাট ''বুয়েটের ছাত্র বলেই'' বাসচাপায় মারা গেছে... এই দুর্ঘটনা কে এইরকম ''বুয়েটাইঝ'' করার মর্মটা বুঝতেই পারলাম না... এইখানে বুয়েটের ছাত্র মারা গেছে বলে ভাংচুরে ব্যাস্ত হওয়ার মাজেজা টা বুঝলাম না.. ভাবেসাবে মনে হচ্ছে বুয়েটে না পড়লে মনে হয় সম্রাট কে মারা চাপা দেয়ার মত ঘৃণ্য কাজটা রত না বাসওলা।

আমরা প্রায়ই বলি যে বাংলাদেশে সবকিছু পলিটিক্যালাইঝ কইরা ফেলা হয়... এইটা নিয়া প্রচুর গলাবাজি করি, গালিগালাজ করি রাজনীতিবিদদের..। একটা রাফ প্যারালাল টাইনা উদাহরণ দেই কারণ সঠিক উদাহরণ খুজে পাচ্ছিনা - ধরা যাক ঢাকা ইউনির সাধারণ ছাত্রদের স্বার্থসংশ্লিষ্ঠ ছাত্রদের কোন এক আন্দোলনে সাধারণ ছাত্র মারা গেল... ঐ ছাত্ররে লীগ তাদের দাবি করে, দল তাদের দাবি করে..। আমরা তখন বলি কেনো একটা মৃত্যুরে পলিটিক্যালাইঝ করা হচ্ছে আমাদের কত ক্ষোভ... তাহলে একবার ঘুইরা দেখেন সম্রাটের মৃত্যুতে আমরা কি করতাছি???!!!! মৃত্যুটারে অনর্থক বুয়েটিসাইঝ করতাছি.. ছেলেটা একটা দুর্ঘটনার শিকার.. এইখানে বুয়েট আসে কই থিকা???

... আমি বলছিনা যে তার মৃত্যুতে বুয়েটের ফ্রেন্ড বা বড়ভাইয়েরা কষ্টা পাওয়া নাজায়েঝ, বা শোকাভিভূত হওয়া যাবেনা... কিন্তু সম্রাট কেন গাড়িচাপা পড়ল এইটা নিয়া ''বুয়েটি. জোশ'' নিয়া লাফাইয়া পড়াটা ফিউটাইল... পয়েন্টলেস...; নাকি আক্রোশ টা বুয়েটের ছাত্র কেন বাসচাপা পড়ল এইটা নিয়া???

দুঃখজনকাভাবে বলতে হচ্ছে এই প্রবণতা বুয়েট বা ঢাকা ইউনি কারোরই একচেটিয়া নয়... বাংলাদেশের ছাত্রসমাজ মাত্রেই ভাংচুরে দক্ষ... আর ছাত্রসমাজ কেন পুরা দেশবাসীই ভাংচুরের উস্তাদ..।

আখসানুল বলছিলেন তাদের বুয়েটিয়ানদের মধ্যকার সম্প্রিতীর কথা... ধরা যাক মোহাম্মদপুরের মানুষদের মধ্যে খুবই সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক... একে অপরের জন্য জানপ্রাণ... এই এলাকার একজন কমলাপুরে বাসচাপায় নিহত হল.. মোহাম্মদপুর বাসীরা কি দলবেধে ভাংচুরে নামবে? মোহাম্মদপুরের মানুষের এই আন্তরিকতাপূর্ণ সম্পর্কের মানে কি নিজেদের স্বাভাবিক বিচারবোধ হারায়ে ফেলা???? বিশেষ কইরা যখন এইটা একটা অ্যাক্সিডেন্ট??

আমাদের ভাংচুরগুলা বেশীরভাগই এক জেহাদী সেন্স অব ব্রাদারহুদ থিকা আসে... পথচারী চাপা পড়ছে... বাকি পথচারী ভাইয়েরা লাগাও ভাংচুর... কবি নজরুলের ছাত্র চাপা পড়ছে .. ডাইকা নিয়া আসো কবি নজরুলের ছাত্রদের.. পথে নাইমা তারা ভাংচুর করুক... এইটা আসলে ভ্রাতৃত্ববোধ না; এইটা একটা fucked up ভ্রাতৃত্ববোধ...

বাংলাদেশের সাইজ টা আমার জানা আছে... দেশ টা বেশী বড় না... আর এইরকমের ফাক্ট আপ ভ্রাতৃত্ববোধ নিয়া ঘোরাঘুরি করার জন্য দেশটা বেশীই ছোট... কারণ আমরা ভাংচুর এই রেইটে চালাইলে এই ছোটদেশে অচিরেই ভাংচুর করার জন্য তেমন বেশী কিছু বাকি থাকবে না... একমাত্র নিজেদের মাথাটা ছাড়া

আসেন অন্য আলাপে... বাংলা সিনেমার নায়ক ইলিয়াস কান্চনের কথা বলি..। তার ওয়াইফ সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার পর কান্চন নিরাপদ সড়ক চাই নামের এক প্রচারণায় নামেন... অনেকবছর ইলিয়াস এই ক্যম্পেইন চালান (এখনো কন্টিন্যু করছেন কি না জানিন?) .. বাংলা সিনেমার নাম শুনলে নাক সিটকান অনেকেই, আমি নিজেও... কিন্তু এই ঢালিউডের ইলিয়াস আসলেই নায়ক.। সত্যিকারের নায়ক... যে জিনিসটা তিনি ফিল করতেন ভালোবাসতেন তা হারিয়েছেন... এবং তারপর একজন সুষ্থ মানুষের যা করা উচিত তাই করেছেন- আর যাতে এরকম কারো প্রিয়জন না হারায় তার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন... কে জানে ইলিয়াসের পড়াশোনা কদ্দুর... তবে আমি বলতে পারি বুয়েট, ঢাকা ইউনি, কবি নজরুল এইসবের ছাত্রদের উচ্চশিক্ষা থাকতে পারে; কিন্তু এদের সবার সাথে বিচারে একমাত্র আমাদের ইলিয়াসের শিক্ষাটাই উচ্চ...

বুয়েটে অনেক ইন্জিনিয়ার রা পড়ে, পড়ায়... তারা কি কেউ একটা বেটার ট্রাফিক সিস্টেম ডিঝাইন করতে পারে না...? যদি অলরেডি একটা সিস্টেম থাকে তাইলে বুয়েটের ছাত্ররা সড়ক বিভাগ বা সিটি কপোরেশান বা এইরকমের রিলেভেন্ট অথরিটির সাথে আলাপ করে একটা এলাকা আলাদা করে নিতে পারেনা যেখানে একটা মডেল ট্রাফিক সিস্টেম অনুসরণ করা হবে.. যেইখানে ট্রাফিক সিস্টেম মানা হবে..। ধরা যাক তারা মোহাম্মদপুর এলাকাটা বেছে নিল... আপনি ঢাকার অন্য জায়গায় যেইভাবেই চালান না কেন মোহাম্মদপুরে আপনাকে ঐ মডেল ট্রাফিক সিস্টেম টা মেনে নিয়মতান্ত্রিক ওয়েতে চলতে হবে... সফল হলে পরে অন্যন্য এলাকা এইভাবে মডেলের আওতাভূক্ত করা হবে...

.... আর যদি সবকিছু ঠিকমত চলে তাহলে আমি নিশ্চিত পাবলিক একবার নিয়মের মইধ্যে ড্রাইভ করার আনন্দ পাইলে আর কখনো নিয়ম ভাংবো না... আশা করা যায় এতে অনেক বুয়েটছাত্রে প্রাণ রক্ষা হবে...

কিন্তু সম্রাটের প্রতি ভালোবাসা থেকে বুয়েটের ছাত্ররা কি এই পরিশ্রমের ভেতর দিয়ে যেতে রাজি হবে? নাকি ভাংচুরের সহজ পথটাই বেছে নেবে? আজ ভাংচুর করলাম, কালকে সকালে উইঠা চোথাবাজি... বিঝনেস এঝ ইউঝ্যুয়াল? নাকি এই ভালোবাসা থিকা বুয়েটের ব্যাচের পর ব্যাচ স্টুডেন্টরা আর টিচাররা তাদের কোর্সের একটা টাইম ব্যায় করব একটা ভালো ট্টাফিক সিস্টেম মডেল দাড় করানোর জন্য.। একটা ভালো ট্রাসন্সপোরটেশন রুট বাইর করার জন্য?

মানুষের প্রতি মানুষের কমপ্যাশন থাকবেই... এইটাই স্বাভাবিক... এইটাই কাম্য... এই কমপ্যাশন যেন আমাদের খারাপের দিকে নিয়ে ন যায়.। এই কমপ্যাশন যেন আমাদেরে ভালো কিছু করার শক্তি দেয়... প্রেরণা দেয়...

=========বাই দ্য ওয়ে ... পোস্টের কারণে বুয়েটের নাম বেশী আসছে.। কিন্তু এইখানে বুয়েট বদলায়া আর যে কোন ইউনির নাম নির্দ্বিধায় বসায়া দেওন যায়, বা বাংলাদেশের যেকোন সাধারণ নাগরিকের নাম নির্দিধায় বসায়া দেওন যায়...=========

== আপাতত আমার কোন কম্পু নেই তাই মোবাইলেই ব্রাউঝ করি... পোস্ট টা লিকহলাম এক ফ্রেন্ডের অফিসের কম্পু থেকে.. নতুন হাউঝমেটের কম্পুতে আমার ফোন টা মডেম হিসেবে রিকগনাইজহ করবে কিনা চেক করা হয়নি। কেউ কমেন্ট করলে কবে কখন রিপ্লাই দেব তার ঠিক নেই... দেরি হলে অগ্রীম সরি=======

রখস - এ - বিসমিল

পোস্টটি ৬ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

টুটুল's picture


সহপাঠী অথবা বন্ধু... যাই হোক না কেন ... যে কোন মৃত্যুই আমাকে পীড়িত করে... কষ্ট পাই ... তার সহপাঠীরা তার বন্ধুরা তো পাবেই। এই যুথবদ্ধতাকে আমরা ভালো কোন কাজের দিকে নিয়ে যাই... যার মাধ্যমে সম্রাটের আত্মার শান্তি হবে।

তবে বাফড়ার এই প্রস্তাবনাটা ভালো লাগলো... সম্রাটের স্মৃতীকে ধরে রাখতে বুয়েট থেকে ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থা উন্নয়নে কোন গবেষণা প্রকল্প হাতে নিতে পারে। পাইলট প্রকল্প হিসেবে কোন একটা এলাকাকে প্রাথমিক ভাবে বেছে নিয়ে কাজ করা যেতে পারে। যেটা সম্রাটের জন্য উৎসর্গ করা হবে। সম্রাট বেচে থাকলে দেশের জন্য কিছু করার চেষ্টা করতো নি:সন্দেহে... সেটাই হোক মূল বিবেচ্য। কিন্তু নগর ব্যবস্থাপনার নিয়ে এই পর্যন্ত বুয়েটের কোন প্রস্তাবনা সরকার মানছে কি?

আবারো সম্রাটের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। তার শোকে বিহ্বল বন্ধুদের ... সহপাঠীদের এই শোক কাটিয়ে উঠুক .. এই কামনা রইলো।

তানবীরা's picture


প্রস্তাবটা ভালো। সহমত।

বাফড়ার কি জ আর ঝ এর সমস্যা আছে নাকি? Laughing out loud

বাফড়া's picture


নাহ..। জ ঝ নিয়া সমস্যা নাই.। দউইটা ডিফারেন্শিয়েট করতাম পারি.। মাগার বাংলায় বলতে গেলে বলার সময় গুলায়া ফেলি..

তবে আপনি মনে হয় লেখার সময় জ আর ঝ এর ব্যারাম নিয়া আস্কাইছেন.. হইছে কি যে মাঝে মাঝে মনে হয় কোন জায়গা জ বা ঝ কোনটা দিয়াই ঠিক উচ্চারণ আনা যায় না.। তবে ঝ টা দিলে কাছাকাছি যায়.। তাই ঝ ব্যাভার করি.. যেমন ব্রাজিল/ব্রাঝিল...

মীর's picture


ভাই প্রত্যেকদিন দেশে একশ'র বেশি মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাচ্ছে। এর মধ্যে সামান্য একটা ছেলে মারা গেছে তার জন্যে আবার এমন কি হইলো যে পোস্ট-মোস্ট দিয়া ভাসায় ফেলতে হবে? বিষয়টা কি তাই? যদি তা হয় তাহলে আপনার দৃষ্টিকোণ থেকে এই পোস্ট দিয়ে ব্লগের অমূল্য জায়গা নষ্ট করা ঠিক হয়নি। যে কারণে পোস্টটা বিরক্তি ছাড়া আর কিছুই উদ্রেক করেনি। আপনার জন্য খুবই দুঃখ লাগছে।

আসেন আবেগ বিবর্জিত কথা বলি। একটা ছেলে মারা গেছে একটা বাসচালকের ভুলের কারণে। কোথায়? একটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেতরে। খেয়াল করুন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিন্তু বাস চলার জায়গা না। সেখানে ছোট-খাটো গাড়ি চালানোর সময়েও 'হর্ণ দেয়া নিষেধ' জাতীয় সতর্কবাণী ফলো করতে হয়। সেখানে দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে বাস চালিয়ে বুয়েটে সদ্য ভর্তি হওয়া একটা ছেলে, তার স্বপ্ন, তার পরিবার এবং তাদের সবার মনকে পিষে মেরে ফেলার শাস্তি কি? ওই পরিবারটির বেঁচে থাকা সদস্যরা জীবনে আর কখনো এই দুঃখটি পুরোপুরি ভুলে গিয়ে মন খুলে হাসতে পারবে? সম্রাটের সরকারী কর্মকর্তা বাবা (আমি জানি সরকারী কর্মকর্তারা তাদের সন্তানদের বিশেষতঃ ছেলে সন্তানদের প্রতি শুধু ভালবাসাই নয়, নির্ভরতাও অনুভন করেন। এটা হয়তো আবহমানকালের এক রীতি, আজ-কাল আধুনিক সমাজে হয়তো কমেছে, তবে একেবারে বিলুপ্ত হয়ে যায় নি নিশ্চিত) তার ছেলে হারানোর বিনিময়ে কি পাবেন? তাকে কি আপনি টাকা দেবেন? ঠিক কত টাকা দিয়ে তার মন থেকে দুঃখটা পুরোপুরি মুছে দেবেন? সেটা কি সম্ভব?

ফিরে আসি পূর্বের কথায়। পিষে মেরে ফেলার শাস্তি কি? আপনি কি জানেন, এই কয়েকদিন আগে উইলস্ লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের সামনে এক বাচ্চা বাসের ধাক্কায় তার মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে পিষে গিয়েছে। দলিত মাংসপিন্ড হয়ে গিয়েছিলো তার শরীর। মানুষ বলে চেনার উপায় ছিলো না আর। আমাকে বলুন কেন এবং কি কারণে একজন মানুষের এ পরিণতি। ওই বাসচালক তাড়াতাড়ি বাস চালিয়ে কি কোন এটম বোমা নিষ্ক্রিয় করতে যাচ্ছিলেন, যা না হলে পুরো ঢাকা শহর ধ্বংস হয়ে যেতো? যদি তা না হয়, কোন এটম বোমা যদি নিষ্ক্রিয় করতে না হয়, তাহলে কি কারণে সে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে সেভাবে বাস চালাচ্ছিলো? তার সে কারণ কি গ্রহণযোগ্য? সম্রাটকে যেভাবে বাস ব্যাক ড্রাইভ করানোর সময় প্রথমে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দেয় এবং পরে সামনের দিকে ড্রাইভ করে মাথা থেতলে দেয়, তা কেন? বাসচালকের তখন কি এমন জরুরত পড়েছিলো ওভাবে চালানোর বা যেকোন কিছু করার? একটা ছেলেকে একেবারে পিষে দেয়ার কারণ হিসেবে সত্যিকারের গ্রহণযোগ্য কোন কারণ কি থাকতে পারে? থাকলে জানান।

এখন আসলেই পিষে মেরে ফেলার শাস্তি কি বলি। উইলস্ লিটল ফ্লাওয়ারের পিচ্চিকে হামিম শেখ হত্যাকারী শামসুর রহমানকে সেদিনই গ্রেফতার করে পুলিশ। এবং চালান দেয় হাইকোর্টে। সেখান থেকে বাসমালিক তাকে জামিনে বের করে আনেন। মামলা চলছে। হামিমের ব্যবসায়ী বাবা, গৃহিণী মা মাঝে মাঝে শুনানির তারিখ পড়লে আদালতে যান। তখন তাদের স্বাভাবিক জীবনের সবচেয়ে বড় অস্বাভাবিকতাটা মনে পড়ে যায়। চোখভরে পানি চলে আসে। জানি না রাতে ওরা দু'জন হারিয়ে যাওয়া কলিজার টুকরাটুকুর জন্য হাউ-মাউ করে কাঁদেন কি না। তখন কি কফিল ভাইয়ের সেই গানটা প্রযোজ্য হবে , ‌'কাঁদলে কি রে ধুলার পাহাড়ে, গঙ্গা বুড়িগঙ্গা বয়ে যাবে?' যাক শেষতক যদি কফিল ভাইয়ের গানে সান্তনা না খুঁজে প্রতিবাদী হয়ে ওঠে তবে তাকে কিন্তু রাস্তায় নামতেই হবে। কারণ বাসমালিক তাঁর ড্রাইভার আর গাড়ি জামিনে বের করে নিতে পারে। এরপরে দুই-চার বছর ধরে মামলা চলে। মামলা শেষে শাস্তি সর্বোচ্চ দুই বছর সশ্রম কারাদণ্ড। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এই শাস্তিকে আমি অপ্রতুল বলে উল্লেখ করছি। আর যে মালিকের বাস পোড়াোন হয়েছে বা ভাঙা হয়েছে, তার রয়েছে মোটা অংকের ইন্স্যুরেন্স। ওই টাকা দিয়ে একই জিনিস আবার তিনি কিনবেন। আগের বাসটি থেকে প্রাপ্ত লাভের টাকার একটা অংশ মামলা চালাতে ব্যয় হবে, ঘাতক ড্রাইভারও তাতে শেয়ার করবে। ব্যস্ চলছে গাড়ি যাত্রাবাড়ী। খালি ডুকরে ডুকরে কাঁদে সম্রাট আর হামিমদের বাবা-মায়েরা।

তো এই শাস্তিই প্রয়োজনের তুলনায় যদি বেশি মনে করেন তাহলে আপনার জন্য আরেকটু দুঃখ পাই। আর যদি না মনে করেন তো আপনি সম্রাটের জন্য আরেকটু দুঃখ পান। যতটুকু পেলে ব্যবসায়ীর ওই বাসকে দেশের সম্পদ ভেবে ভুল করবেন না (কেননা ওই ব্যবসায়ী আপনার দেশের সরকারকে অতিঅবশ্যই কর ফাঁকি দিয়ে বাস কেনার টাকা করেছে এবং সেই টাকা দিয়ে বিদেশ থেকে বাসটা কিনে এনে অযোগ্য একটা লোকের হাতে দুর্নীতির মাধ্যমে ভুয়া ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে তুলে দিয়েছে) বরং মেট্টিক-ইন্টারে ভালো রেজাল্ট করা বুয়েটে ভর্তি হওয়ার যোগ্যতাধারী সম্রাটকে আরেকটু দামী ভাববেন ততটুকু দুঃখ অন্ততঃ পান।

ভাই বাংলাদেশের সাইজটা জানার জন্য আপনাকে অভিনন্দন। আসলেই এই পোলা-পানগুলা বুঝে না। ভাঙতে ভাঙতে এক সময় তো নিজের মাথা ছাড়া আর কিছু থাকবে না। তবে ভাই টেনশিত না হওয়ার অনুরোধ করছি, কেননা দেশে প্রায় সাড়ে ষোল কোটি মাথা আছে, প্রতিদিনই হাজারখানেক ছোট মাথা জন্মাচ্ছে। তাই মাথা শেষ হয়ে যাবার সম্ভাবনা খুবই কম।

শেষে নায়ক ইলিয়াসের বিষয়ে আসি। তিনি যতই নিরাপদ সড়ক চান না কেন নিরাপদ সড়ক তাকে কেউ দেয়নি। কেউ দেবে এমনও বলছে না। তবে মাঝ থেকে তার কর্মসূচিগুলো প্রায়ই ছোট-খাটো পত্রিকায় ছবি সহকারে যাচ্ছে। এতে পথচারীদের কি উপকার হচ্ছে আমার ক্ষুদ্র মস্তিষ্ক হয়তো বুঝতে পারছে না। জানি না কখনো বুঝতে পারবে কি না।

ভাই কঠিন পরিশ্রম কি তা আমি জানি না। জানি সরকারের শত-সহস্র টাকা খরচ করে সড়ক উন্নয়ন পরিকল্পনা, পরিকল্পিত সড়ক নির্মাণ পরিকল্পনা, যানজট নিরসনে মহাপরিকল্পনা, উড়ালপথ-পাতালপথ, ড্রাইভার'স ট্রেনিং এরকম অসংখ্য প্রজেক্ট-পাইলট প্রজেক্ট প্রতি বছরই হচ্ছে। এবং তাতে বুয়েটের শিক্ষক, আহসানউল্লাহ'র শিক্ষক, বিশেষজ্ঞ, সত্যিকারের দক্ষ ট্রেনার, মন্ত্রী-মিনিস্টার সব্বাই আছেন। তারা কি করছেন জানি না। হয়তো পরিশ্রম, হয়তো পরিশ্রম না। তবে এটুকু জানি তাতে কোন উন্নতি হচ্ছে না। 'বিঝনেস এঝ ইউঝ্যুয়াল'।

ভাই ভালো থাকবেন।

বাফড়া's picture


জ্বি, আপনার কথায় প্রবল, প্রখর যুক্তি আছে...

মাথামোটা's picture


পোস্ট না পইরা কমেন্ট করার মজাই আলাদা। কি কন?

ভাই প্রত্যেকদিন দেশে একশ'র বেশি মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাচ্ছে। এর মধ্যে সামান্য একটা ছেলে মারা গেছে তার জন্যে আবার এমন কি হইলো যে পোস্ট-মোস্ট দিয়া ভাসায় ফেলতে হবে? বিষয়টা কি তাই?

পোস্ট পইরা এইটা আবিস্কার করনে আপনারে নুবেল দেওয়াই উচিত।

আমি যতদুর বুজলাম বাফড়া যেইটা বলছে, সেইটা হইলো এক্সিডেন্টারে বুয়েটিয়ান করনের কথা। হইতে পারে মাথার সাইজ ছুটু হবার কারনে আমি যথারিতি বুজতে অক্ষম হইছি।

সংশপ্তক তো ইলিয়াস কান্চনরেই বলা যায়। ব্যর্থ হবার চিন্তায় সে অফ যায়নাই। কেউ সাথে না থাকলেও লিগাল পথে সে একলাই আন্দোলন কর্তাছে।

আপনে সম্রাটের লিগা ভাংচুর কর্বেন। কেউ ভাংচুর কর্তে মানা কর্লেই তারে বিপক্ষ ভাববেন। ব্রাদার হুড জোশে তারেও পিডাবেন।

মাহবুব সুমন's picture


গাড়ী ভাঙচুর করা একটা মানসিক সমস্যার মতো। কিছুটা শ্রেনীবিদ্বেষ, অনেকটুকুই সাময়িক উত্তেজনাবসুত আবেগ, অনেকটুকুই বুদ্ধিহীনতা। একটা গাড়ি ভাঙার পর দেশের কতগুলো টাকা যে দেশের বাহিরে চলে যায় সেটা অনেকেই মনে হয় জানে না। আর যে মালিকের গাড়ি ভাঙা হয় তার কত ক্ষতি হয় সেইটা মনে হয় কেউ খবর রাখে না।

অদ্রোহ's picture


একটু তাড়ার ওপর আছি ,তাই খানিকটা দ্রুত পোস্ট পড়তে হল,তবে সত্যি কথা,বাফড়াদার সাথে আমি বেশ ভালভাবেই দ্বিমত প্রকাশ করছি।

ঢাকা ভার্সিটির একটা ছাত্রের মৃত্যুর রাজিনৈতিক ফায়দা লোটার চেষ্টা আর বুয়েটের একটা ছাত্রের মৃত্যুতে সাধারণ ছাত্রদের প্রতিবাদকে এক করে ফেলা!!!!কতটা মোটাদাগের চিন্তা হলে মানূষ এসব কথা লিখতে পারে!মানুষ কতটা আবেগের বর্শবর্তী হলে অচেনা ছোটা ভাইয়ের মৃত্যুতে রাস্তায় ছুটে নামতে পারে সেটা হয়তো আপনি কোনদিনই বুঝতে পারবেননা।

সম্ভব হলে এই পোস্টে মাইনাস দিতাম।বাকি আলাপ পরে হবে।

বাফড়া's picture


অদ্রোহ, দ্বিমত হয়েছে প্রকাশ করেছ তাই থ্যংস

রাজনৈতিক ফায়দা লোটা আড় সহপাঠীর প্রতিবাদ দুটোকে এক করে দেখিনি... উদাহরণ টা দেয়ার আগেই বলেছিলাম যে উদাহরণ টা একটা রাফ প্যারালাল টেনে করা... আশা করেছিলাম উদাহরণের এই ঘটতিটুকু মেনে নিয়ে মমূল কথাটা পাঠকরা বের করতে পারবে... যাহোক পুরোটাই আমার অক্ষমতা...

আমি আসলে বলতে চেয়েছিলাম ভার্সিটির আনদোলনে মারা যাওয়া ছেলেটা যেমন লীগ বিএনপি এমন কোন কনটেক্সটে মারা যায়নি তাই এইটা নিয়া লীগ বা দলের টানাটানি যেমন পলিটিক্যালাইজ করা, তেমনি সম্রাট বুয়েটের কোন কনটেক্সটে মারা যায়নি তাই এইটারে অনর্থক বুয়েটের ছাত্র মারা গেছে এইরকম কইরা দেখা টা সমস্যার ই জন্ম দেবে..। শুধু চিন্তা কর এইখানে একটা মেয়ে মারা গেল.। হয়তবা গার্মেন্টসের... এখনকি ঐ গার্মেন্টসের কর্মীরা গার্মেনটস কর্মী মারা গেছে এইবলে ভাংচুর করবে? তারপর ঐ মেয়ের বস্তির লোকেরা এসে বস্তির অধিবাসীরে মারছে এইবলে আরেকদফা হামলা করবে?

তাই বলছিলাম এইটারে একটা মানুষের মৃত্যু হিসেবেই দেখি ... অনর্থক বুয়েট টেনে আনার প্রয়োজন ছিলনা... এটুকুই বোঝাতে চেয়েছিলাম..

==

কতটা আবেগের বশবর্তী হলে রাস্তায়া নামা যায় তা হয়ত বুঝবো না... কিন্তু কেউ যদি রাস্তায় নামতে চায় তবে তাকে বাধাও দেবনা.। শুধু এটুকুই বলব যে ভাংচুর বা এইরকম কিছু যেন না হয়..

১০

বোহেমিয়ান's picture


পুরো পোস্টেই ইনডিরেক্টলি ভাংচুররে সমর্থন করার একটা প্রবণতা দেখলাম... হতে পারে আখসানুলের মাথাটা খানিক গরম আছে এই মুহুর্তে, তাই তার এই সুর...
গুগলের ক্যাশ থেকে লেখাটা পড়ে নেন ।

একজন কুব্লগার অমানবিক ভাবে বুয়েটের ছাত্রদের মানসিকভাবে আঘাত করে লিখছে, আখসানুল ভাই তখন তার একটা জবাব দিছেন । এই তো ।
উনি কোনভাবেই ভাংচুরকে জাস্টিফাই করার জন্য লিখেন নাই, লেখাটা একটা লেখার উত্তর/জবাব ছিলো ।

কিন্তু সম্রাটের প্রতি ভালোবাসা থেকে বুয়েটের ছাত্ররা কি এই পরিশ্রমের ভেতর দিয়ে যেতে রাজি হবে? নাকি ভাংচুরের সহজ পথটাই বেছে নেবে? আজ ভাংচুর করলাম, কালকে সকালে উইঠা চোথাবাজি... বিঝনেস এঝ ইউঝ্যুয়াল?
বেশ আক্রমণাত্মক লাগল এই লাইঙ্গুলা । কোথাকার বিষয় কোথায় নিয়ে যেতে চাচ্ছেন বুঝলাম না!!! এই প্যারা দেখে মনে হচ্ছে ব্যাক্তিগত আক্রোশ আছে !!! বিঝনেস এঝ ইউঝ্যুয়াল । বড্ড বেশি নোংরা লাগল শব্দগুলোকে!

অনেক কিছুই বলার ছিলো , নিজের ভাই হারালে যদি দেখতাম কেউ বলত চলেন, ভাই সিটি কর্পোরেশন এ যাই গিয়ে ঢাকার ট্রাফিক সিস্টেমের উন্নতির চেষ্টা করি তাহলে হয়ত গিয়ে ঐ ছেলেগুলাকে গিয়ে থাপড়াতাম ।

আর সম্রাট ঠিক কীভাবে মারা গেছে আপনি জানেন? না জেনে না বুঝে পোস্ট দেয়ার সংস্কৃতিটাও তো খুব ইতিবাচক কিছু মনে হইল না!! ট্রাফিক ডিজাইন নিয়ে যে খুব সহজ করে একটা লাইন লিখে ফেললেন আপনি কি ট্রাফিক নিয়ে গুগলিং করার পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে নিজেকে নিয়ে যেতে পারলেন না?!! একটু পড়ে/জেনে নিন ঠিক কীভাবে সেই অসহায় ছেলেটি অনেক স্বপ্নের সমাপ্তি ঘটাতে বাধ্য হলো । এই মৃত্যুর সাথে ট্রাফিক ডিজাইনের সম্পর্ক ছিলো কি না ছিলো না জেনেই পোস্ট দিলেন!!

হায়! আপনে ভাই কোন জোশে পোস্টটা লিখলেন?!!! একটু বইলেন! কারণ বাসায় বইসা ঠান্ডা মাথায় তো লিখেন নাই! লিখছেন আরেকজনের পিসিতে!! এত তাড়াহুড়া কইরা পোস্ট দেওনের কী দরকার ছিলো?

আমি কমেণ্টটা তাড়াহুড়া কইরা দিছি । সম্রাট আমার না দেখা না চেনা ছোট ভাই । এইটা চিৎকার কইরা বলতে কোন সমস্যা নাই । তিন বোনের পর যেই ভাইয়ের জন্ম , স্বপ্নের ভার্সিটিতে পড়ার জন্য ৫/৬ মাস যে ছেলে বসে ছিল , মাত্র ৫ দিন ক্লাস করার পর একজন চালকের অসাবধানতার জন্য তাকে প্রাণ দিতে হলো ।

আমি গাড়ি ভাংচুর কে কেউ সাপোর্ট করি না । এইটা খুব খারাপ। করা কোনভাবেই উচিত না । কিন্তু না জেনে না বুঝে পোস্ট না দেওয়াটাও খুব খারাপ , নিন্দনীয় । সেই নিন্দা জানানোর জন্য কমেন্টটা তাড়াহুড়া কইরা দিলাম ।

১২

বাফড়া's picture


বোহেমিয়ান, আখসানুলের পোস্ট ট যে জবাব হিসেবে লিখা তা আমার জানা ছিলনা.. সরি ..।

==
বেশ আক্রমণাত্মক লাগল এই লাইঙ্গুলা । কোথাকার বিষয় কোথায় নিয়ে যেতে চাচ্ছেন বুঝলাম না!!! এই প্যারা দেখে মনে হচ্ছে ব্যাক্তিগত আক্রোশ আছে !!! বিঝনেস এঝ ইউঝ্যুয়াল । বড্ড বেশি নোংরা লাগল শব্দগুলোকে!
==

কোন জায়গার বিষয় কোন জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করিনি আমি. ... আমি বলতে চেয়েছি যে আজ প্রতিবাদ করলাম.. কাল থেকে আবার সে নরমাল লাইফে চলে যাওয়া ক্লাস করা.। ফাকে যে ছেলেটা মরে গেলো তার কথা ভুলে যাওয়া দু-দশমাস পর... এই অর্থেই বিজনেস এঝ ইউঝুয়াল লিখহেছিলাম... এবং ক্ষিপ্ত করার জন্্যই লিখেছিলাম... যেন ক্ষিপ্ত হলে বুঝতে পারো যে আসলেই সেইটাই ঘটবে এক্ষেত্রে... তুমি আমি আমরা দুই সপ্তাহ পর ভুলে যাব যে সম্রাট বলে কেউ ছিল....

হয়ত কিছুদিন পর আবার আরেকজন মারাযাবে... আমরা আবার ক্ষিপ্ত হব.. তারপর শান্ত.... আরেকটা মৃত্যু... আবার ক্ষোভ... চলতেই থাকবে... তুমি হয়ত প্রত্যেকবারই ক্ষিপ্ত হবে... কিন্তু তোমার ছেলেপেলেরা এইসব দেখে দেখে এই মৃত্যুটারেই স্বাভাবিক বলে ধরে নেবে... শেষ গল্প...

বাই দ্য ওয়ে চোথাবাজি কথাটা তোমাকে আহত করে থাকলে বলি... মার এক কাঝিন বুয়েটে পড়ে.। সে প্রায়ই বলে তার পড়াশোনা নাকি চোথাবাজি.। নিজেরে কিটিসাইঝ কইরা বলে.. বুয়েটের আরো কয়েকজনরে ব্লগে এইরকম কইতে দেখছিলাম... তাই আজকে প্রতিবাদ কইরা কালকেই আবার ক্লাসে যাওয়া , পরীক্ষা দেয়া এইটারে ওয়ার্স্ট সেন্স টা বুঝানোর জন্য চোথাবাজি লিকহছিলাম...

বুয়েটের কারো সাথে কোন ব্যাক্তিগত আক্রোশ ছিলনা.. আর হবে বলেও মনে হয়না... ঐরকম কোন কারণ এখনো ঘটেনি... রাদার বুয়েটের কিছু ছাত্রকে দুর ঠেকে অ্যডমায়ার ই করি বটে.। রাগিব ভাই... শাহরিয়ার নির্জন. এইরকম.../

মাঝে মাঝে মুক্তবয়ান রে বুয়েট নিয়া এইসেই বইলা ক্ষেপানোর চেষ্টা করি সামনাসামনি দেখা হলে .। সেইটা ফ্রেন্ডলি টার্মসের কারণেই করা... এছাড়া ব্যাক্তিগত আক্রোশ বা বুয়েট নিয়ে ফাও কিছু বলেছি বলে মনে পড়েনা..

===

আমার নিজের ভাই মারা গেলে আমি ও হয়তবা এমনই করতাম.। কিন্তু আশা করতাম যে কেউ আইসা কথাটা বুঝায়া বলবে.। হয়তো যে আইসা বলত তারে তুমার স্টাইলেই থাপড়া মারতাম.। কিন্তু থ্যংকিউ বলাতাম পরে গিয়া .। বলটাম এই কারণে যে সে জরুরি কথাই বলছিল..।

যাউগ্গা... তুমি তো আর থাপড়া দিতে পারবানা কারণ আমি অনেক দুরে.। চাইলে ইমেইলে আমারে গাইল দিয়া দিতে পারো..

==

আর না জেনে পোস্ট দেইনি.. জেনেই দিয়েছি.. তুমি হয়ত মীন করতে চাচ্ছ যে ব্যাকগিয়ারে চাপা পড়ার সাথে ট্রাফিক সিস্টেমের সম্পর্ক কি... তাই বলেছ না জেনেই পোস্ট দিয়েছি..। আমি ট্রাফিক সিস্টেমের উন্নতি বা সেফার রোডের কথা বলছিলাম যেন ভবিষ্যতে এইরকম না হয় সেটা নিশ্চিত করার জন্য...

আর ট্রাফিক নিয়ে গুগলিং করলে যে আমি বুঝে যাব সে আশা করিনি তাই গুগল করিনি... ট্যকনিকাল স্টাফ আমি কম বুঝি তাই...
====

বাকি কমেন্টসের রিপ্লাই গুলো পড়লে হয়ত আরো ভালো করে বুঝতে পারবে কি বলেছি... আর তরাপরো পছন্দ না হলে থাপড়া দফেয়ার অপশান টা তো রইলই.।

১৩

বোহেমিয়ান's picture


তরাপরো পছন্দ না হলে থাপড়া দফেয়ার অপশান টা তো রইলই.
লাইনটা মারাত্মকভাবে খারাপ লাগলো ।

আমি যখন সেই ছেলেগুলারে থাপড়াতাম বলছি কোন অর্থে বুঝাইছি তা বোধহয় আপনি বুঝছেন । ওরা আমার জুনিয়র ছিলো , আর আপনি তুমি করে বলেই প্রমাণ করছেন আপনি আমার সিনিয়র । আপনার সাথে মশকরা করেও থাপড়া দেয়ার প্রশ্ন আসে না ।

আরেকটা কথা আমি গালি দেই না

আপনার পোস্ট আর কমেন্ট পড়ে শান্ত মাথায় বলতেছি বিশাল পোস্ট লেখা যাবে, আপনার দারুণভাবে অগভীর, শব্দচয়নে অসতকর্তায় ভরপুর, অনেক ক্ষেত্রেই অশালীন এই পোস্ট, উপ্রের কমেন্ট নিয়ে ।

ব্যক্তিগত ভাবে নিয়েন না, আপনার লেখার কথা বললাম ।

আখসানুলের পোস্ট ট যে জবাব হিসেবে লিখা তা আমার জানা ছিলনা.. সরি

আপনি ঐ লেখাটা পড়ে দেখছিলেন ?! লেখাটা পড়লে সেটা নিয়ে কিছু বলার কথা । বললেন না দেখে অবাক হইলাম!

আমি ট্রাফিক সিস্টেমের উন্নতি বা সেফার রোডের কথা বলছিলাম যেন ভবিষ্যতে এইরকম না হয় সেটা নিশ্চিত করার জন্য...
এমন কী সিস্টেম করা যাবে যাতে ব্যাক গিয়ারে ড্রাইভাররা না যায়?!! এর ফলে সামনে পেছনে গিয়ে ধাক্কা মেরে ফেলে, তারপর ছাত্রের উপর দিয়ে গাড়ি যাবে না, এমন সিস্টেম কেম্নে হবে? এইটা কী বুঝে বলতেছেন? আমি কিন্তু বুঝি নাই! সেফার রোডে (মানে ভালো ডিজাইনওয়ালা রোডে)ড্রাইভাররা পিছনে যাবে না?!

আপনে কোন জোশে পোস্টটা লিখছিলেন এখনো বলেন নাই! বেশ বিরক্ত হয়ে গেছিলেন একটা পোস্ট দেখে! কী?!! সামান্য একটা ছেলে মারা গেলো আর এতদামি দামি বাস পুড়িয়ে ফেলল?!! আজব তো?! একটা মানুষের আর দাম ই বা কী?!! বাস ট্রাক আমাদের জাতীয় সম্পদ!

আবারো বলি , ভাংচুরের পক্ষে নই আমি । অর্বাচীনের মত যারা পোস্ট লেখেন তাদের অগভীর যৌক্তিকতা, নির্বোধের মত সরলীকরণ , জ্ঞানের সীমাতিরিক্ত ক্ষুদ্রায়তনের , না বুঝে/জেনে/পড়ে বলার বিপক্ষে ।

আমার নিজের ভাই মারা গেলে আমি ও হয়তবা এমনই করতাম.। কিন্তু আশা করতাম যে কেউ আইসা কথাটা বুঝায়া বলবে.।
তাই?!!!! আপনি আশা করতেন কেউ আপনাকে এই সব বলবে?!!! ভাই এইবার কার মোবাইল থেকে কমেন্ট করছেন?!!! চিন্তা করে বলেন তো আপনি আশা করতেন?!

তুমি আমি আমরা দুই সপ্তাহ পর ভুলে যাব যে সম্রাট বলে কেউ ছিল । . শেষ গল্প... আপনার কাছে গল্প মনে হইছে ! শেষ পর্যন্ত একটা মানুষ ই তো মরছে! এর চেয়ে বেশি কিছু না! তাইলে আপনার এত জন দরদি হয়ে এই পোস্ট দেবার মাজেজা কি ছিল আমি বুঝলাম না!
ভাংচুর কি আপনার পোস্টের কারণে কমে যাবে নাকি!?!!

দেশ টা বেশী বড় না... আর এইরকমের ফাক্ট আপ ভ্রাতৃত্ববোধ নিয়া ঘোরাঘুরি করার জন্য দেশটা বেশীই ছোট...
আপনার এই দেশচিন্তা তো দু দশমাস পর থাকবে না, নাকি?!! সব ভুলে যাবেন না?! তার পর ও কি দরকার ছিলো? কেন খামাখা দেশপ্রেমিক সুশীল সাজার জন্য এই পোস্ট দিলেন? আপনে তো আবার বিঝনেস বুঝেন না! আপনি রেগুলার যত ভাংচুর হয় তার বিরুদ্ধে পোস্ট দিতে থাকবেন , বাকি সব কিছু ভুলে যাবেন!

আপনি ভাই বাংলাদেশে নতুন? বুয়েটের ছাত্ররা সড়ক বিভাগ বা সিটি কপোরেশান বা এইরকমের রিলেভেন্ট অথরিটির সাথে আলাপ করে একটা এলাকা আলাদা করে নিতে পারেনা যেখানে একটা মডেল ট্রাফিক সিস্টেম অনুসরণ করা হবে. আপনি যদি এই দেশে নতুন হন, তবে তো বলার কিছু নাই! অথরিটির সাথে কাজ করাটা সব সময় তো সহজ ছিলো!
গ্যালারিতে বসে মন্তব্য করা অবশ্যই সহজ, এবং সহজ, ইচ্ছে মত শব্দ বসিয়ে (যে কোন পিসিতেই হোক না কেন!!) ব্লগ পোস্ট লেখা!

আপনি যদি চান আমি বিস্তারিত পোস্ট দিব । একটু সময় নিয়ে উত্তর দিন । নিজের পিসিতে বসেই দিন! হিরো সাজার জন্য আরেকজনের পিসি ধার করে পেছনের কথা না জেনে যেমন পোস্ট দিছেন তেমন দিয়েন না!

বাঙালি আবেগ প্রবণ জাতি খুব ভাব নিয়ে অনেকেই এই লাইন লিখে ফেলে, যারা লেখে তারা বোধহয় বাঙালি না , তাদের আবেগ নাই , তাদের ভাই মরলে তারা শোকাহত হইত না ,তারা পুরো দেশের কথা ভাইবা চিন্তা তারপর কাজ করত , অথবা কেউ শুধারায়া দিব এই সব আশা করত!

১৪

বাফড়া's picture


তুামর থাপড়া বিষয়ক কথাটা বুচ্ছি.. আমি মনে করি থাপড়া খাওয়ার মত কথা যে কইব তারেই থাপরা দিবা.. বা এটলিস্ট প্রকাশ করবা যে আপনে থাপড়া খাওয়ার মত কথা কইছেন... কথাটা বাফড়া বা থাপড়া যেই ব্লগারই কউক না কেন ... গালি তুমি দেওনা জানি...আমি থাপড়ার সাথে একটা অপশান ও দেই... এই গালি নিয়া ফাহমিদ ভাইয়ের একটা কথা আচএ.। আরেকদিন বলা যাবে.।

=-==

তুমার কথায় মনে হচ্ছে ভবিষ্যত সব এক্সিডেন্ট ব্যকগিয়ারেই হবে?!!! যদি নাহয়ে থাকে সেক্ষেত্রে ভবিষ্যতে সব অ্যক্সিডেন্ট বন্ধে সেফার রোড এবং আরো সব কথা কইলাম...
===

সামান্য একটা ছেলে মারা গেছে এইরকম কিছু বলা ছিলো পোস্টে???? বাসের দাম নিয়ে কিছু বলা ছিলো পোস্টে??? পোস্ট পইড়া যদি এইটাই বুইঝা থাকো আকারে ইংগিতে ছেলেটারে সামান্য ছেলে বলা হইছে তাইলে আমার কিছু বলার নাই...
আর বাসের দাম নিয়া কিছু ইচ্ছা কইরাই বলি নাই কারন তখন কইবা একটা ছেলের মাথার দাম ধইরা নিছি!!!
বাস না ট্রাক এইটা কথা না.। কয়টা ভাংছে ঐটাও কথা না.। কথাটা হচ্ছে মআাদের এই বাস-ট্রাক এইসব ভাংচুরের জাতিগত সংস্কৃতি...

===

হ্য আমি আশা করটাম... অদ্রোহরে দেয়া রিপ্লাইয়ে ট্রেনের অংশ টা পড়ে নিও..।
===

গল্প শব্দটা ব্যাভার করায় আপত্তি? ঠিক আছে আর কি কি ভাবে বলা যায় দেখি- কাহানি খতম? কুল্লু খালাস? পৌনপুনিক এই ঘটনাপ্রবাহের এইতো সমাপ্তি? তো কি হইল? আিল্টিমেইটলি কি হইল? তুমি ী এইটা মীন করতে চাইলা যে গল্প কথাটা ব্যা=ভার কইরা আমি মৃ্ত্যুটারে ছোট করতাছি... উল্টাপাল্টা পইড়োনা... মুলটোন না ধইরা এইসব কমেন্টে কেমনে কর বুঝিনা!!!

হ ভাই আমি দেশপ্রেমিক সুশীল... খুশী... আমি েতই দেশপ্রেমিক যে আঝোক কাল হোক বা দশ বছর পর আবার বিদেশ চইলা যামু.। সেই চেষ্টাই করতাছি.. তয় যাওয়ার আগে যেই টয়লেট দেইখা যাইতাছি সেইটারে ভালো করনের একটা আইডিয়া দিলাম... ভালো লাগলে ফলো করেন.। না লাগলে আরো বেটার আইডিয়া বাইর করেন... তবু টয়লেট অবস্হারে উন্নত করেন..। আর যদি মনে করেন দেশটারে একটা টয়লেট বানায়া রাইখা থাকার মইধ্যেই আারাম সেইটা করেন.। আমিতো সুশীল দেশপ্রেমিক বিদেশে বইসা আগাচৌএর মত ভাব লয়া বিদেশে বইসা দেশ নিয়া লিখুম...

==
কর্তিপক্ষের সাথে কাজ করাটা সোজা না বুঝলাম..। কর্তিপক্ষের সাথে কাজ করার আইডিয়াটা কোরান হাদিস না যে ঐটাই একটা.। নাহইলে আর কোন পথ আচে কি না দেখেন...

==

আমার ব্লগিং লাইফের শুরু থেকেই এর-ওর কম্পু ধার কইরা ব্লগাই.। এবং মাঝে মাঝে হিরো জার জন্যইখালি ব্লগাই.। এই রিপ্লাই ও দিচ্ছি আরেকজনের কম্পুতে..

===

তুমি যদি পোস্ট দিতে চাও.. দিবা.. তয় সলুশান থাকলেই পোস্ট দিও.. মআার পোস্টের ভুল নিয়া পোস্টের দরকার নাই.। মআি নিজেই স্বীকার করলাম যে মআার পোস্ট টা বেহুদা... ঠিক আছে? অহন তুমি পোস্ট দিলে সমাধানের কিছু বলার থাকলে বইল..।

===

আমি কি বলছি তুমরা বাংগালিরা আবেগি জাতি? বাংগালিরটা আবেগি এই কথাটার ইরাম মিনিং হয় নাকি? তুমি লাইনে লাইনে এইরাম নিজে থিকা মিনিং বাইর করলে বলতে হয় এই কমেন্টের রিপ্লাই দেয়াই বৃথা কারণ তুমার করা কমেন্ট এই পোস্টের জন্য প্রযোজ্য না। তুমার কমনে্ট এইপোস্টের উপর বেইস কইরা তুমার পড়া কোন এক বাফডার কাল্পনিক পোস্টের জন্য

১৫

একলব্যের পুনর্জন্ম's picture


একমত । দাবি আদায়ের এটা সুস্থ ভঙ্গিও না , কার্যকর ভঙ্গিও না ।

১৬

মুক্ত বয়ান's picture


হা হা হা হা!!!
দিদি, খুব হাসি আসলো।
খুব জানতে ইচ্ছে করে, ২০০৫ সালে যখন শাহবাগ মোড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের "হ্যাপি" সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়, আপনার প্রতিক্রিয়া কি ছিল?

১৭

একলব্যের পুনর্জন্ম's picture


একেবারেই একই প্রতিক্রিয়া ছিলো । হ্যাপি সম্রাট আমার কাছে মানুষের বিচারে কেউ আগে-পিছনে না ।

হাসি আসার মত কিছু আমি অবশ্য পাইনি আমার মন্তব্যে । যাই হোক , ধন্যবাদ ।

১৮

মুক্ত বয়ান's picture


বাহ। ভালৈ।
আমরা অনেক দূর্বল মানসিকতার। তাই হুট করেই ঝোঁকের বসেই ভাংচুর করে ফেলি। আর, অজস্র মানুষকে কষ্টে ফেলি।
আপনাকেও ধন্যবাদ।

১৯

ভাঙ্গা পেন্সিল (সাইটে ঢুকতে পারি না, আইপি হাইড কইরা ঢুকছি)'s picture


আইনে বিচার হইলে সমস্যা ছিল না। ১২ না ১৩ বছর আগে কোকা-কোলার(অথবা পেপ্সি) কোন এক গাড়ি এক লোককে চাপা দেয়ায় ক্ষতিপূরণের রায় হইছে ঐদিন মাত্র, ক্ষতিপূরণ হাতে পাবে কবে আল্লাহ মালুম। সম্রাটকে যে চালক মারলো, তার বিচার হবে না, আপনি লিখে রাখতে পারেন--গ্যারান্টেড।

আমি নিশ্চিত ভাবেই আবেগী, কিন্তু আপনি যুক্তি দিয়া একটা জবাব দেন কিভাবে সম্রাটরে ফিরায় আনবো? কিংবা কিভাবে আরেকটা সম্রাট না মরে সে গ্যারান্টি দিব? পরিকল্পনা নিয়া সরকারের কাছে যাওয়া টাইপ কথা শুনলে হাসতে মন চায় Smile) কতো পরিকল্পনা সরকারের কতো আলমারিতে ইন্দুরের পেটে যাইতাছে সেই খবর কে রাখে!

একটামাত্র উপায় ছিল--তাৎক্ষণিক ভাবে যদি পুলিশ উইনারের মালিকরে ধইরা আনতো(গাড়ীর ড্রাইভার ভাগছে, মাগার উইনারের মালিক আশা করি ভাগেনাই), কয়েক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের প্রতিশ্রুতি দেয়াতো, তাইলে এতো ভাংচুর লাগতো না। টাকাটা এখানে অবশ্যই বড় কথা না, আজকে উইনারের মালিকের কয়েক কোটি টাকা লস হইলে কালকে আর কোনো বাস মালিক তার গাড়ির চাবি দেয়ার আগে দুইবার ভাববে কার হাতে স্টিয়ারিং তুইলা দিতাছে।

যেহেতু এইসব কিছুই হয় নাই, আর হবেও না,-- সেহেতু লজিকাল চিন্তা কইরা ফায়দা নাই। পোলাপান তা করেও নাই।

২০

অপরিচিত_আবির's picture


ফাকড আপ ভ্রাতৃত্ববোধ, বুয়েটি জোশ, বুয়েটিসাইঝ করার চেষ্টা - আপনার শব্দচয়ন দেখে বুঝে নিতে কষ্ট হয়না যে আপনি সেই ক্যাটাগরীর ব্যক্তি যাদের কথা আখসানুল ভাই লিখেছেন - বুয়েট নামটা শুনলেই কোন এক অদ্ভুত কারণে তাদের পশ্চাদ্দেশে বিছুটিপাতা লাগে। আমি মুখ্যু সুখ্যু মানুষ তবে এটুকু জানি যে প্রতিটা ভার্সিটিরই নিজস্ব কিছু কালচার, নিজস্ব কিছু আবেগ থাকে, যেটা বাইরের কেউ হয়তো বুঝবে না, এজন্য আমি কখনোই অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের আবেগ বা কালচার সম্পর্কে মন্তব্য করি না। কিন্তু আপনি যে বুয়েটিয়ান সাইকোলজি নিয়ে ভালোই গবেষণা করেছেন তা বোঝাই যাচ্ছে, আশা করি গবেষণার ফলাফল জানিয়ে দেশবাসীকে উপকৃত করবেন আর ভবিষ্যতে আশা করি এরকম আরো কিছু পোস্ট দিবেন যাতে করে আপনার ব্লগে আসার চিন্তাও করার দরকার না হয়। এবং আরো একবার ধন্যবাদ মানুষের আবেগ আর মৃত একটা ছেলেকে নিয়ে এভাবে ঠাট্টা করার জন্য।

২১

বাফড়া's picture


আবির, নাহ বুয়েটিয়ানদের কথা শুনলে গায়ে বিছুটিপাতা লাগবে কেন? লাগত যদি হীনমন্যতায় ভুগতাম নিজেকে নিয়ে.। সেরকম কিছু হয়নি আমার তাই বিছুটিপাতা লাগেনি...

বরং কিছু বুয়েটিয়ানদের অ্যডমায়ার ই করি...

আপনাকে হেল্প করতে পারি দুই একটা ইনফো দিয়া- বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা দেয়ার যে যোগ্যতা লাগে আমার ইন্টারের রেজাল্টে আমি সেই যোগ্যতা দেখাইনি... কিন্তু তাতে কি? আমার তো ইন্জিনিয়ার হবার শখ ছিল না.. ডাক্তার হবার ও শখ ছিলনা.। তাই মেডিকেলের নাম শুনলেও বিছুটি লাগেনা গায়ে... এইতো শেষ..। বুয়েটের নাম শুনে মানুষের গায়ে বিছুটিপাতা লাগার কনসেপ্ট টা আপনারা কিভাবে অ্যডপ্ট করলেন তা জানিনা.। জানলে বলতে পারতাম.।??!!!!!

==

আর পোস্টের নীচের দিকে বলছি যে পোস্টে বুয়েট বদলায়া যেকোন ইউনির নাম বসানো যায় নির্দিধায়, যেকোন ব্যক্তির নাম বসানো যায় নির্দিধায়... এই সংস্কৃতি পুরা দেশেই... আপনি শুধু শুধুই নিজের গায়ে টেনে নিচ্ছেন... এই সমস্যাটা শুধু বুয়েটের তা বলিনি...

===

আর মৃত ছেলেকে নিয়ে ঠাট্টা করছি ভাবলে ভুল হবে... ওটা করিনি... আর যদি কখনো েরকম কোন মরবিড কোন ইস্যু নিয়ে ঠাট্টা করিও তবে বুঝেশুনেই করব...

আপনাদের আবেগকেও ফেলনা বলিনি.. শুধু প্রকাশটা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছি.। সাজেস্ট করার চেষ্_টা করেছি এই আবেগের প্রকাশ আর কোন উপায়ে করা যায় কি না সেইটা...

২২

ভাঙ্গা পেন্সিল's picture


কোন কারণে সামহাউ ঢুকতে পারতাছিলাম না ব্লগে দুইদিন ধরে। আইপি হাইড কইরা ঢুকছি এবং এখানে একটা কমেণ্টও করছি। আরেকবার করতে ইচ্ছা করতাছে না। মডারেশন প্যানেলের নজরে আনার জন্য বলতাছি, কমেন্টটা আমারই করা।

২৩

মুক্ত বয়ান's picture


পোস্ট পছন্দ হইল না।
একটা মন্তব্য লিখছিলাম, সেটা অনেক বড় হয়ে যাওয়ায় আলাদা করে পোস্ট দিছি। একটা প্রশ্ন ছিল। উত্তর কাম্য।

২৪

বাফড়া's picture


সরি পোস্ট পছন্দ হয়নি...

তুমার পোস্ট টা দেখব...

২৫

বাফড়া's picture


বলতে চাচ্ছিলাম - সরি, আমার পোস্ট তুমার পছন্দ হয়নি বলে..।

২৬

মুকুল's picture


আখসানুলের পোস্ট পড়ি নাই। তবে ভাঙচুর আসলে অর্থহীন। সিস্টেমের উন্নয়নই গুরুত্বপূর্ণ। সেদিকে দেশবাসী আর সরকার দৃষ্টি দিলেই সবার মঙ্গল।

২৭

জ্বিনের বাদশা's picture


আপনার বক্তব্যের সাথে একমত (প্রকাশভঙ্গি যদিও ঝাঁঝালো হয়ে গেছে বেশী)

ইমোশন আর এ্যাকশনের মধ্যে যে একটা সুষ্পস্ট লাইন থাকা উচিত সেটা আমরা ভুলে যাই, তখন লাইন অভ থটসগুলো খুব বিপজ্জনক হয়ে পড়ে।

যাইহোক, সম্রাটের আত্মার শান্তি কামনা করি, সমবেদনা প্রকাশ করি ভারাক্রান্ত সহপাঠীদের প্রতি।

আর আশা করি, সময়ের সাথে সাথে এই সহপাঠীরা বুঝবেন যে তাঁদের বাস ভাঙার ইমোশনজনিত একশনটা ভুল এবং সেটার হয়ে সাফাই গাওয়াও ভুল।

২৮

বাফড়া's picture


জিন্টু, আমি নিজেও বুঝতে পারছিনা সমস্যা টা কোথায় হচ্ছে??!!! কমেন্টস পড়ে মনে হচ্ছে যেন সম্রাটের মৃত্যু টাকে আমি পাত্তাই দেইনি... বা খেলো বলছি.। বা বলছি ওর জন্য বুয়েটের ছাত্রদের ফীল করা উচিট হয়নি!!!! আশ্চর্য!!!! বুয়েটের ব্যাপারে আক্রোশ নিয়াও শুনলাম কয়েকলাইন...!!! আজীব সব ঘটনা ঘটছে!!!!

২৯

জ্বিনের বাদশা's picture


বাফু, কি কইতে চাইলেন বুঝলামনা ... আমার মন্তব্যের ইমোশন/একশনের গুলিয়ে ফেলাটা ছাত্রদের বাস ভাঙাকে উদ্দেশ্য করে লেখা

৩০

বাফড়া's picture


আপনার কমেন্ট টা বুচ্ছি...

আমি আগের কমেন্টগুলা পইড়া, রিপ্লাই দিতে গিয়া জমা হওয়া আক্ষেপটাই প্রকাশ করলাম আরকি আপনেরে দেয়া রিপ্লাইয়ে.। আর কিছু না.. ঐটা আসলে আপনের কমেন্টের রিপ্লাইয়ে আমার একটা সর্টঅব অফটপিক রিপ্লাই ছিল

৩১

আবদুর রাজ্জাক শিপন's picture


সম্রাটের আত্মার শান্তি কামনা করি । সমব্যথী তার পরিবারের প্রতি ।
প্রতিদিন দেশে অনেকের অনেক প্রিয়জন সড়ক দূর্ঘটনায় হারিয়ে যাচ্ছেন, যা সত্যিই ভীষণ দুঃখজনক ।

ড্রাইভারদের ভুলে অনেকসময় দূর্ঘটনা ঘটে থাকে এটা সত্য । তারপরও সেটা দূর্ঘটনাই । প্রতিদিন অনেক মানুষ মরছে সড়ক দূর্ঘটনায় । তাদের সব প্রিয়জন যদি রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাংতে থাকে, তো কোনমতেই সেটাকে ভালো কিছু বলা যাবেনা । অপরাধী চালক এবং সংশ্লীষ্টরা বিচারের সম্মুখীন হবেন, আইনের আওতায় আসবেন, সেজন্য আন্দোলন হতে পারে, তাদের বিচারের মুখোমুখি দাঁড়া করানোটা নিশ্চিত করা যেতে পারে, আন্দোলনের মাধ্যমে ।

বিদ্যুতের অভাবে বিশ্বাকাপ খেলা দেখতে না পারা, আর্জন্টিনা -ব্রাজিলের খেলা দেখতে না পারার ক্ষোভেও আমাদের দেশে রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে গাড়ি ভাংচুড়ের নজির অহরহ । কথায় -কথায় গাড়ি ভাংচূড়ের এই সংস্কৃতি আমাদের অস্থিরমতিরই প্রকাশ । এবং এটা পরিত্যাজ্য । গাড়ি- ভাংচুরের সুফল আছে কিনা জানিনা, কুফল অসীম, সেটা নিশ্চয় এখানে ব্যাখ্যা দিয়ে বুঝানোর দরকার হবেনা । আমি নিশ্চিত, বুয়েটের ছাত্ররা যদি এই মুহুর্তে কেবল আবেগটাকে সুস্থির ভাবনায় বদল করতে পারেনতো, তারাও স্বীকার করবেন যে, একজন ভুল চালকের অপরাধে ভুলভাবে অনেকগুলো গাড়ী ভাঙ্গা আসলে কোন কাজের কথা নয় । এই নিশ্চিত হওয়া এই কারণে যে, তারা সবাই যথেষ্ট বুদ্ধিমান এবং প্রাজ্ঞ বলেই বুয়েটে পড়তে পারছেন বলে বিশ্বাস ।

কাওকে আহত করা একদমই ইচ্ছা নয় । নিজের মতামতটাই দিলাম ।

৩২

সাঈদ's picture


গাড়ী ভাংচুর, পোড়ানো আমাদের একটা সংস্কৃতিতে পরিনত হয়ে গেছে।

বুয়েটের ছাত্র মারা গেছে , গাড়ী ভাংচুরের কারন ছিল, কারন গাড়ী চাপা পড়েই তার মৃত্যু হয়েছে, আবার দেখা যায় গার্মেন্টস্‌ শ্রমিকরা তাদের বেতন বাড়ানোর জন্য রাস্তার গাড়ী ভাংচুর করে, আবার রাজনৈতিক দল গুলো তাদের দাবী দাওয়া আদায়ের জন্য গাড়ী ভাংচুর করে। আপাতঃ দৃষ্টিতে দেখলে সবাইকেই সমান মনে হবে , সেই গার্মেন্টস শ্রমিক হোক আর বুয়েট ছাত্রই হোক আর হরতালের পিকেটার হোক।

বুয়েটের ছাত্র মানেই ধরা হয় সে বাংলাদেশের সবচেয়ে মেধাবী ছাত্রদের মধ্যে একজন। তার মৃত্যু মানেই দেশের অপূরনীয় ক্ষতি হওয়া, বাসের মুল্যের তুলনায় তা কিছুই নয় কিন্তু এই অস্বাভাবিক সংস্কৃতি আমাদের কে গ্রাস করছে, এইটা থেকে বের হয়ে আসা দরকার আমাদের। প্রতি বছরই বাসে চাপা পরে মারা যাচ্ছে অসংখ্য মানুষ , ভাংচুর ও হচ্ছে অসংখ্য বাস, প্রাইভেট কার, তারপরেও কি বদলেছে সরকারের চিন্তা ভাবনা ? বদলেছে কি বাস ড্রাইভারের মানসিকতা ?

যা হবার হয়ে গেছে সাময়িক আবেগের বশে , কিন্তু এখন সময় এসেছে এই ব্যাপারে সঠিক চিন্তা করার - বুয়েট - ভার্সিটির ভিতর গাড়ী বন্ধ করলেই কি এর সমাধান হবে ? মিরপুর কেউ বাস চাপায় পড়ে মারা গেলে কি মিরপুরে গাড়ী বন্ধ করে দেয়া হবে ? এটা সাময়িক ব্যবস্থা কারন বাস্তবতা হলো ঢাকা শহরে কোথাও গাড়ী বন্ধ করা অসম্ভব একটা কাজ । তারচেয়ে যেহেতু মেধাবীদের স্থান বলে পরিচিত বুয়েট , তাই সেই মেধাবীদের মেধা কাজে লাগায়ে এই ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়া উচিত। প্রচলিত আইন পালটিয়ে , জনগণ কে সম্পৃক্ত করে একটা সামাজিক আন্দোলন করা দরকার। বুয়েটিয়ান বলেই নিজেকে আলাদা না ভেবে সবার জন্যই এটা করা দরকার কারন গাড়ী চাপা পড়লে বুয়েটের ছাত্র থেকে বড় কথা একজন মানুষ মারা যায়।

৩৩

মুক্ত বয়ান's picture


প্রতি বছরই বাসে চাপা পরে মারা যাচ্ছে অসংখ্য মানুষ , ভাংচুর ও হচ্ছে অসংখ্য বাস, প্রাইভেট কার, তারপরেও কি বদলেছে সরকারের চিন্তা ভাবনা ? বদলেছে কি বাস ড্রাইভারের মানসিকতা ?

আমরা কি করেছি সরকারের চিন্তা ভাবনার পরিবর্তন আনতে? বছর বছর সেমিনার করি এসি'র বাতাসে বসে বসে। যারা এর উদ্যোক্তা হিসেবে জড়িত, তাদের এ ব্যাপারে আবেগ। বাকি আমরা যাদের কিছু হয় না, তারা যাই-খাই-বক্তব্য শেষে তালি দেই। আর কি হয়, কিছু টাকার শ্রাদ্ধ হয়।

বুয়েট - ভার্সিটির ভিতর গাড়ী বন্ধ করলেই কি এর সমাধান হবে ?

অবশ্যই হবে। তখন অন্তত: ছাত্রদের নিজেদের এলাকায় অশিক্ষিত কিছু বাসচালকের খামখেয়ালিপনার শিকার হতে হবে এই ভেবে তটস্থ থাকতে হবে না।

সেই মেধাবীদের মেধা কাজে লাগায়ে এই ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়া উচিত।

আপনার কি মনে হয় না, কোন উদ্যোগ নেয়া হয়? কখনো ভেবে দেখেছেন আপনার বাড়ির ডিজাইন করে দিয়ে আসে যে ইঞ্জিনিয়ার, তার ডিজাইন অনুযায়ী না করে আপনার ইচ্ছেমত করা স্বাধীনতা যে আপনার আছে? এখন যদি আপনি নিজে ইচ্ছেমত করতে গিয়ে ত্রুটিযুক্ত একটা বাড়ি বানালেন, যেটা ক'দিন পরেই ধ্বসে পড়ল। তখন সে দায় কি আপনার নাকি ইঞ্জিনিয়ারের?
বুয়েটের শিক্ষক/ গবেষকরা একটা সিদ্ধান্ত দিয়ে আসার পর, সেটা বাস্তবায়নের জন্য স্যারদেরই দৌড়াতে হবে, এটা নিশ্চয়ই আপনার দাবি না?

৩৪

সাঈদ's picture


নিচে লিখেছিলাম - সামাজিক আন্দোলনের কথা - মেধা কে অনেক ভাবেই কাজে লাগানো যায় , শুধু বাড়ী-গাড়ীর ডিজাইন না , কি ভাবে ঢাকার এই দূর্ঘটনায় মৃত্যু কমানো বা বন্ধ করা যায়, ড্রাইভারদের শাস্তির নিশ্চিত করা যায় - সম্রাটের শোক কে পুঁজি করে আপনারা আন্দলোন শুরু করুন - সবাই যোগ দেবে।

৩৫

মুক্ত বয়ান's picture


হা হা হা!!!
বাড়ির ডিজাইন একটা উদাহরণ ছিল। ইঞ্জিনিয়াররা দুর্ঘটনা কমানোর জন্যেও গবেষণা করে একটা সিদ্ধান্ত দিয়ে আসলো, কিন্তু, সেটা প্রণয়নের দায়িত্ব সরকারের, আমলা-মন্ত্রিদের। এটাই ছিল উদাহরণের মূল বক্তব্য।
শেষ লাইনের জন্য ধন্যবাদ। আশা রাখি, সবাইকে পাশে পাবো।

৩৬

সাঈদ's picture


কিছুদিন আগে উইলস লিটল ফ্লাওয়ারের এক ছাত্র মারা গেল গাড়ি চাপায় - এরকম আর কত ?

সরকার কে বাধ্য করা হোক সেই সুপারিশ বাস্তবায়নে - শুধু বুয়েট না , শহরের নাগরিক যেন বাসের দৌরাত্মে এরকম চাপা পড়ে মারা না যায় - সেই আন্দোলন শুরু হোক সবাইকে নিয়ে - এটাই কাম্য।

৩৭

বাফড়া's picture


কনক্লুশনের কথাটা আবার বলার চেষ্টা করি- সোজা কইরাই বলি না ঘুরায়া... ভাংচুর করা যদি এই নিশ্চয়তা দেয় যে ভবিষ্যতে আর কোন সড়ক দুর্ঘটনাই ঘটবে না.. তাইলে আমরা সবাই ভাংচুরে যোগ দিতে পারি... কিন্তু আসলেই কি সেটা হবে? যদি হয় তাইলে তো ভালোই.। আর না হইলে অন্য পথ ধরেন.। যেই পথে কাজ হয়... বুয়েটিয়ান দের মেধা আছে, আশা করি তারা বেটার কোন সলিউশান দেবেন, বা একঝিসটিং সিস্টেমকেই কাজে লাগাবেন সেফার রোড এনশিউর করার জন্য...

===

আরেকটা জিনিস অনেকেই ভাবছেন বাসমালিক আর কেউ, মারা যাওয়া ছাত্রটা আর কেউ, বাসের ড্রাইভার টা আর কেউ...

ভাইবা দেইখেন আপনেই বাসমালিক, আপনেই ছাত্র, আপনেই ড্রাইভার..।

এই মৃত্যুর দায় সবার... কারণ আপনেরা কেউই ঠিকমত চলেননাই, ট্রাফিক আইন মানারে এনকারেজ করেননাই.. বলার সময় ভাবছেন কাজটা আর কেউ করেছে.। কিন্তু কাজটায় আপনারই হাত ছিল...

৩৮

অদ্রোহ's picture


আমাদের বড় সমস্যাটা কী জানেন,নিজের গায়ের ওপর কিছু এসে না পড়লে সেটাকে আমরা তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেই,এমনকি সমস্যা বলে মানতেও নারাজ থাকি।যতক্ষণ আমরা নিজেদের গা বাঁচিয়ে চলতে পারি ,ততক্ষণ সব বিলকুল ঠিক হ্যায় ! নিজের অবস্থান থেকে এই ধরনের স্টেরিওটাইপড কথা(সেটা লজিক্যাল না ইল্লজিক্যাল সেই তর্কে আপাতত যাচ্ছিনা) বার্তা বলতে খুব একটা বুকের পাটা লাগেনা।সম্রাটের মৃত্যুতে এই ধরনের অনেক বাঁধাগতের কথা আকছার শোনা যাচ্ছে,তার মৃত্যুতে বুয়েটের ছাত্রদের ক্ষোভ অনেকের গাত্রদাহের কারণ হচ্ছে, ব্যাপারটা আসলে এটাই ।বুয়েটের ছাত্ররা তো বলে কয়ে কারো সাথে নিজেদের আবেগ ভাগাভাগি করতে চায়নি,তারপরও কারো কারো অস্বাভাবিক স্পর্শকাতরতা বিষয়টাকে আসলে ঘোরালো করে তুলেছে।

একটা প্রতিষ্ঠানের সাথে নিজস্ব কিছু আবেগ জড়িয়ে থাকে,সেই আবেগের অনুভূতির সাথে বাইরের কারো পরিচয় থাকবেনা সেটাই স্বাভাবিক।এখানে সবাই একটা বিশাল পরিবারের অংশ।সেই পরিবারের একজন সদস্য যদি মারা যায়,তাহলে বাইরের মানুষ হয়তোম সহানুভূতি দেখাবে,হয়তোবা খানিকটা গোল্ডফিশ মেমরির মত পলকা শোকে আক্রান্ত হবে।এর চেয়ে বেশি কেউ আজকাল আশা করেনা।কিন্তু তাদের সেই আবেগকে যখন ভাংচুরের মোটা দাগে ট্যাগিং করার একটা প্রবণতা দেখা যায় ,তখন সেটা মুখ বুজে কেউ কেউ হয়তো মেনে নেবে,কিন্তু সবাই না।কতটা ক্ষোভের আগুন জ্বলে উঠলে এরকম পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে,সেটা শুধু যুক্তির খাতিরে যাচাই করাটা আদতে ধোপে টেকেনা।যুক্তির পুরু খোলসে সেটাকে মোড়ালে আসলে মুদ্রার উল্টো পিঠটাই দেখা হয়,আসল পিঠ ঢাকা পড়ে যায়।

ক্ষোভের ধামাচাপা দিয়ে রাখার মত কঠিন কাজ পৃথিবীতে খুব কম আছে,আর আদতে সেটা সবসময় কাজ দেয় তা ও না,মাঝে মাঝে সেই পুঞ্জীভূত ক্ষোভ আসলেই দাবানলের মত ছড়িয়ে পড়ে।

৩৯

বাফড়া's picture


অদ্রোহ, সেইটাই.। নিজের গায়ে না লাগলে টের পাওয়া যায় না.। কথাটা আমার ক্ষেত্রেও সত্যি বটে,,,, আামর নিজের বন্ধু মারা গেলে আমি ও হয়তো এই কাজটাই করতাম...

যাহোক একটা ঘটনা বলি.. তকহন মাত্র অপারেশন ক্লিনহার্ট শুরু হইছে.. ঐসময় আমরা চিটাগং থেকে ট্রেনে সিলেট আসছিলাম... ট্রেনটা আজমপুর বা আজিমপুর নামের এক স্টেশানে দাড়া ছিল.। ঐসময় চিটাগং গামী আরেক ট্রেনের সাথে সংঘর্ষ হয়... ট্রেনে আমার মা ২বোন দুই খালা দুই খালু ছিল.। ইন্_জিন থেকে ১ বগি দুরে থাকার পরও মিরাক৭ুলাসলি বেচে গেছলাম..। ঐ ঘটনায় প্রায় ১৫০-২০০র মত মানুষ মারা যায়.। যদিও সরকারি খবরে বলছে ৮/৯ জন মারা গেছে..।

যাইহোক এক্সিডেন্টের পর মানুষ ট্রেন থেকে নেমে স্টেশান ভাংচুর করে.। আমি যাইনি ঐ ভাংচুরে... এইটারে আমি আমার বিবেচনাবোধের প্রমাণ কইনা, কইতাছি না... আমি খালি এই পয়েন্ৎাই মেইক করি যে আমি যাইনাই... । তুমি হয়ত আস্কাইতে পারো যে আমি এর পরে এইরকম কোন দুর্ঘটনা যেন না ঘটে এরকম কোন স্টেপ নিছলাম কি না? না ণেই নাই... কারণ এইষব মৃত্যু আমার কাছে পার্ট অব দ্য গেইম.। আমার ভাই মরুক , আর আমি মরি।

কিন্তু আপনের কাছে যেহেতু মৃত্যু গুলা ম্যাটার করে, টাই বলি স্টেপ যখন নিছেন তাইলে ভালোমতই নেন।

সামুতে একবার কি এক বিষয় নিয়া ব্লগ উত্তপ্ত.। তখন নেমেসিস মনে হয় বল;ছিল যে মানুষের ঘরে যখন পানি ঢুকে তখন মানুষ এট দিস ভেরি মোমেন্ট পানির হাত থিকা এখন কেমনে বাচুম সেইটা চিন্তা করে, পানি কেমনে সেইচা বাইরে ফালামু সেইটা চিন্তা করে.। তকহন বন্যা কেন হয় কয়া আালপ শুরু করাটা গাধামি.. আমি সায় দিছলাম তার কথায়।

আপনারা যেইটা করছেন (মানববন্ধন, কালোব্যাজ ধারণ, ভাংচুর) সেইটা পানির এইমুহুর্তের সমাধান; এবং এই সমাধানের সাথে আমার কোন আপত্তি নাই কহালি ভাংচুর অংশটা বাদে (এইটা বাংলাদেশের সব দুর্ঘটনার জন্য করা সব ভাংচুরের ক্ষেত্রেই বলি); আর আপনাদের এই তাতক্ষনিক সমাধানের সাথে সাথে আমি যেইটা কইছিলাম যে আরো বেটার কোন কিছু করা দরকার (সেফার রোড এন্ড ব্লা ব্লা)) যেইটা পানি বাইড়া বন্যা কেন হয় তার সমাধান।

==

এইবার আমার ব্লগিং নিয়াই বলি-

বিডিআর বিদ্রোহের সময় আমি লন্ডনে.. সামুতে ব্লগাই... ঐসমুয় বললাম বিডিআর ঠিকই করছে... এদেরে চোখহে আংগুল দিয়া না দেখাইলে দেখে না.। বিডিআর সেই কাজটাই করতাছে.. কত কথা কইলাম.। আল্লায় বাচাইছে যে বিডিআর বিদ্রোহ চলাকালীন আমার কমেন্ট পড়ে নাই.। পড়লে জানমালের ক্ষতি আরে বাড়ত।

আইজকা কে কই? বিডিআর রা জেলে পচে, আর আমি অহনো ব্লগাই.. তাদের বিচারের খবরটা পেপারে পড়িওনা.। খেলার পাতায় চইলা যাই...

এইটা নিয়া একদিন চিন্তা করলাম.। বুঝলাম যে ব্লগে কিবোর্ডের গুতায় অনেক কথা কইতে পারি যেইটার দায়িত্ব নেয়া লাগেনা... তারপর থিকা সিরিয়াস সিচুয়েশানে মতামত দিতে গেলে ভাইবা দেয়ার চেষ্টা করি... ।

আইজকা এই ভাংচুররে সাপোর্ট দিটে পারি... কিন্তু পুলিশ তুমারে ধইরা নিলে আমি পাশে থাকুম না... পাশে যদি নাই থাকি সেক্ষ্েত্রে তুমার মাথায় খারাপ আইডিয়া না দিয়া বরং ভালো আইডিয়া দিয়াই পাশে না থাকা টা বেটার বইলা মনে হইল.। দিলাম...

৪০

মাথামোটা's picture


পোস্টে সহমত।

৪১

হাসান রায়হান's picture


আখসানুলের পোস্ট পড়ি নাই। সহপাঠির মৃত্যুতে রাগ ক্ষোভ আবেগের প্রকাশ থাকবে স্বাভাবিক ভাবে। তবে ভাংচুর কইরা জব্বর কাম করছে এই মতবাদে বিশ্বাসি না আমি। পোস্টে সহমত।

৪২

বাফড়া's picture


সবশেষে এই পোস্টে আর কেউ কমেন্ট না করলেই ভালো হয়...

আমি যা বলটে চেয়েছি তা যারা বোঝার তারা আগে থেকেই বুঝতেন বলার চিলনা... আর যারা বোঝেননি তারা বলার পরও বোঝেননি সো বলার দরকার ছিলনা (এই না বোঝার কারন হয়তবা আমার পোস্টেরই দোষ)

সো এই পোস্ট টা অপ্রয়োজনীয় ই মনে হচ্ছে... মুছে ফেলতে পারলেই ভালো হত.। কিন্তু না মোছাটাই বেটার... সো রেখে দিলাম... আর কোন কমেন্ট না আসলেই ভালো হবে...

৪৩

বোহেমিয়ান's picture


ভুল স্বীকার করেন । আপনি না জেনে, না বুঝে, না চিন্তা করে, অসতর্ক শব্দে ভরপুর একটা পোস্ট দিছেন , হিরো সাজার জন্য । একটু স্বীকার করেন । ভুল স্বীকারে লজ্জা নাই ।

কমেন্ট করলেন

আমি যা বলটে চেয়েছি তা যারা বোঝার তারা আগে থেকেই বুঝতেন বলার চিলনা... আর যারা বোঝেননি তারা বলার পরও বোঝেননি সো বলার দরকার ছিলনা (এই না বোঝার কারন হয়তবা(?????) আমার পোস্টেরই দোষ)

হায়! কী বোঝাতে চেয়েছিলেন ভাংচুর খারাপ?! সেটা কে না জানে। বার বার ফালতু কথা বলতেছেন কেন?

তোমার মেধার মূল্য-প্রানের মূল্য কে কি দিল সেটা নিয়ে কষ্ট পেও না ভাই। হাজারটা মানুষ হাজার কথা বলবে সেটা মনে রেখো না

এই লাইনগুলা পড়ে পোস্ট দিছিলেন ?

এর আগের কমেন্ট স্বিকার করছেন আপনি জানতেন না তার পর আবার কেন বলতেছেন আমি যা বুঝাইতে চাইছিলাম . আপনের মত জ্ঞানী লোকের তো দেশে অভাব পড়ে নাই! এইটা জানা বিষয় , সহজ একটা জিনিসরে খামাখা ঘোলা করছেন । আখসানুল ভাই পোস্ট দিছেন এক কারণে আপনি জিনিসটারে ঘুরাইছেন অন্য দিকে ।

তুামর থাপড়া বিষয়ক কথাটা বুচ্ছি.. আমি মনে করি থাপড়া খাওয়ার মত কথা যে কইব তারেই থাপরা দিবা.. বা এটলিস্ট প্রকাশ করবা যে আপনে থাপড়া খাওয়ার মত কথা কইছেন... কথাটা বাফড়া বা থাপড়া যেই ব্লগারই কউক না কেন ...

হায়! আর কিছু কমু না! অনলাইন বলেই যে সংযত হব না, শব্দচয়নে সতর্ক হব না, এমন মানুষ আমি না! এই বিষয় নিয়ে আপনার টীপ্স/উপদেশ আমার লাগবে না, নো থ্যাঙ্কস!

আপনি কোন মুখে মূল সুরের কথা বলেন বুঝি না আমি! আপনি তো আখসানুল ভাই এর মূল সুর ধরতে পারেন নাই!

তোমার মেধার মূল্য-প্রানের মূল্য কে কি দিল সেটা নিয়ে কষ্ট পেও না ভাই। হাজারটা মানুষ হাজার কথা বলবে সেটা মনে রেখো না

এই লাইনগুলা পড়ছিলেন?!! মূল সুর বোঝার চেষ্টা করছিলেন?!!
খুব তো জোশের বশে পোস্ট দিছিলেন!

পোস্ট পইড়া যদি এইটাই বুইঝা থাকো আকারে ইংগিতে ছেলেটারে সামান্য ছেলে বলা হইছে তাইলে আমার কিছু বলার নাই...

আপ্নের কমেন্টের উত্তর কেন দিতাছি আমিও জানি না! কারণ আপনে সব ই বুঝছেন । কেবল ভুলটা স্বীকার করতেছেন না । ভাব নিতেছেন ।

কর্তিপক্ষের সাথে কাজ করাটা সোজা না বুঝলাম..। কর্তিপক্ষের সাথে কাজ করার আইডিয়াটা কোরান হাদিস না যে ঐটাই একটা.। নাহইলে আর কোন পথ আচে কি না দেখেন...
আরেকজনের পিসিতে বইসা চিন্তা ভাবনা না কইরা নানান কথাই কওন যায় ঠিক ই কইছেন! একটু কাজে নাইমা দেইখেন কেমন লাগে!

তুমার কথায় মনে হচ্ছে ভবিষ্যত সব এক্সিডেন্ট ব্যকগিয়ারেই হবে?!!! যদি নাহয়ে থাকে সেক্ষেত্রে ভবিষ্যতে সব অ্যক্সিডেন্ট বন্ধে সেফার রোড এবং আরো সব কথা কইলাম...

ও আচ্ছা! মরল এক কারণে আমি কথা কমু আরেক বিষয়ে?! নিজে ভুল করছেন ভুলের স্বীকার করেন । বলেন না জেনে না শুনে পোস্ট দিছি ।ক্যান খামাখা পেচাইতেছেন?! আপনি জানতেন ই না সম্রাট কীভাবে মারা গেছে । সম্রাট এর এই মৃত্যু তাই আমাদের জন্য অনেক বেশি কষ্টের । পিসির চিপায় বইসা খুব সড়ক উন্নয়নের কথা কইতে পারেন , কিন্তু সঠীক ঘটনা জানার জন্য দুই পাতা লেখা পড়তে পারেন না । একটা লিঙ্ক দিছিলাম একবার ও পড়েন্ নাই , অইটা নিয়ে কিছু বলেন ও নাই ,ঐ লেখাই ছিল আখসানুল ভাই এর পোস্টের কারণ । সেই সব মানুষদের প্রতি করুণা হয় , যাদের নিজের/কর্মের চেয়ে ভুলের আকার বড় তবুও নির্লজ্জের মত তা অস্বীকার করে ।

কথাটা হচ্ছে মআাদের এই বাস-ট্রাক এইসব ভাংচুরের জাতিগত সংস্কৃতি...

আহারে! এই জাতিগত ভুল হিরো হয়ে আপনি ই প্রথম দেখিয়ে একটা পোস্ট দিলেন! আপনাকে মাথায় তুলে নাচা দরকার কী বলেন?!!!

বাঙালি বিষয়ক কথাটা সারকাজম ছিল । না বুঝলে কিছু করার নাই ।

ভুল স্বীকার করেন । আপনি না জেনে, না বুঝে, না চিন্তা করে, অসতর্ক শব্দে ভরপুর একটা পোস্ট দিছেন , হিরো সাজার জন্য । একটু স্বীকার করেন । ভুল স্বীকারে লজ্জা নাই ।

শেষের কমেণ্ট কইরা সব সামারাইজ করার চেষ্টা করলেন তাই এই খানে উপরের কমেন্ট এর জবাব দিলাম! ভবিষতের পাঠকের জন্য!

৪৪

বাফড়া's picture


বোহেমিয়ান, আমি আমার ভুল স্বীকার করলাম । আমি স্বীকার করলাম যে আমি না জেনে, না বুঝে, না চিন্তা করে, অসতর্ক শব্দে ভরপুর একটা পোস্ট দিছি , হিরো সাজার জন্য ।

আর তুমারে থ্যনকিউ যে ভুল স্বীকার করায় লজ্জার কিছু নাই এইটা কয়া আমারে সাহস যোগাইছ, নাইলে এই ভুলটা হয়ত স্বীকারই করা হইত না.।

@ভবিষ্যতের পাঠক যারা- থ্যনকিউ যে আপনি এই ব্লগ পড়টে আসছেন..। বা দুর্ভাগ্যক্রমে এই পেজে চলে আসছেন। আপনাদের কাছেও আমি আমার ভুল স্বীকার করলাম । আমি স্বীকার করলাম যে আমি না জেনে, না বুঝে, না চিন্তা করে, অসতর্ক শব্দে ভরপুর একটা পোস্ট দিছি , হিরো সাজার জন্য ।...

৪৫

আখসানুল's picture


অনেক দেরীতে হইলেও পড়লাম আপনার ব্লগ।

আমারটা আমি লিখেছিলাম আবেগের বশে। যুক্তি দেয়ার চেষ্টা করিনি, শুধু সোজা কথাটাই বলতে চেয়েছি।

যাই হোক, এতদিন পরে এসে পুরান ত্যানা প্যাচানোর কিছু নাই। সত্য কথা দুই পক্ষেই আছে।

ভালো থাকবেন।

ইয়ে, একটা কথা, আমার ব্লগ ছিল অন্য ব্লগের প্রতিক্রিয়া, আর আপনারটা আমার ব্লগের। সুতরাং অনেকেই অনেক কিছু ভুল বুঝবে।

৪৬

বাফড়া's picture


আখসানুল- আপনের লেখাটা যে প্রতিক্রিয়া হিসেবে ছিল তা জানা ছিলনা যখন আমি পোস্ট টা লিখি.. পরে বোহেমিয়ানের কমেন্ট থেকে জানতে পোারছিলাম যে ঐটা প্রতিক্রিয়া পোস্ট ছিল.. সরি অ্যাবাউট দ্যাট...

আর হ্য,,,, এতদিন পরের ত্যানা প্যাচানোর আসলেই মানে নেই ...

ব্লগে কম কম দেখা যায়.। ঘটনা কি? আপনের না কি একটা সিরিজ পোস্ট দেয়ার কথা.. এবি তে রাংগামাটি নিয়া সেই সিরিজ পোস্ট??!!!

আর সামুর ছিল মর্মবেদনা গাঢ অন্ধকারে টাইপের গুলাও তো বাদ দিলেন!!!!

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

বাফড়া's picture

নিজের সম্পর্কে

অবৈধ সংগম ছাড়া সুখ, আর অপরের মুখ ম্লান করে দেয়া ছাড়া কোন প্রিয় অনুভূতি নেই ...

...টাং ইন চিক ব্লগ...

থ্যাংকিউ ফর ফলোয়িং মাই স্টুপিড ব্লগ Smile.। ফীল ফ্রী টু কমেন্ট, অলদো দ্যর ওন্ট বি আ রিপ্লাই... 27.02.2011