ইউজার লগইন

ফল নিয়ে কিছু কথা

এই গতবছর এই সময়ে সপ্তাহের ছুটিতে বাসায় গেছি।আব্বা বাজার থেকে কাঁঠাল নিয়ে আসছে।আম্মা কাঁঠাল ভাংতেছে আর আমাদের চোদ্দগুষ্ঠির পিন্ডি চটকাচ্ছে।কারন কি কাঁঠাল নাকি খাজা না।

আর আমরা তিন ভাইবোন দেখছি আর হাসতেছি।কিছুক্ষন পর আম্মা টেবিলে দিয়ে গেল আর বললো বছরের ফল খেতে হয় না হলে আল্লাহ মন খারাপ করবে ভাববে আমার নেয়ামত বান্দারা উপেক্ষা করছে।

আমরা তিন ভাইবোন আল্লাহকে খুশি করার জন্য তিনজন তিন রোয়া কাঁঠাল খেলাম।

আসলে আমাদের বাসায় আমরা তিন ভাইবোন কেও কাঁঠাল পছন্দ করি না।আমার ছোটটা পারলে এই ফলের নাম কে প্রস্তাব করেছিলো তারে পাইলে নাকি ওর একদিন আর উনার একদিন করে দিবে।

কিন্তু আমার আম্মা কাঁঠাল এর একনিষ্ঠ ভক্ত। বাসায় কাঁঠাল আসলে আম্মা একবার এমনি খাবে।বিকালে মুড়িদিয়ে আর রাতে দুধভাত দিয়ে আর বাকীটা কাজের বুয়াকে দিবে কিন্তু শর্ত হচ্ছে বুয়াকে বিঁচি ফেরত দিতে হবে।কারন ওগুলো দিয়ে পরে ভর্তা আর তরকারী খাওয়া হবে।

কিন্তু এইবার আল্লাহ সত্যি মন খারাপ করবে কারন আমি একটাও কাঁঠালের রোয়া খাইনি। ছোটবেলায় এই সময় ফল খাওয়া নিয়ে কত কাহিনী আছে...

একবার আমের সময় আম্মা আম আর দুধভাত মেখে দিয়ে বলছে তাড়াতাড়ি খা মাছি আসবে সেই মাছি আবার ময়লার মধ্যে থাকে বড় বড় মাছি।আম্মা মাছির দুঃখে জানালা বন্ধ করে দিছে আমি ভাত খাচ্ছি আম্মা কই যেন গেছে আর আমি এই ফাকে আমি জানালা খুলে পাশের বাসার দোস্তর সাথে বিকালে কখন খেলতে যাবো এটা ঠিক করছি এই সময় মাছু রুমে ঢুকে গেল আর আমি সাথে সাথে একটা চাবিয়ে খেয়ে ফেললাম আর কিছুক্ষন পর থেকে শুরু করলাম বমি।এখনো মনে আছে আমি আম্মার কাছে পিটুনী খাচ্ছি আর বমি করতেছি।

বাজার থেকে লিচু আনলে আমি আর আমার ভাই সেই লিচু ঘন্টাখানেক এর মধ্যে শেষ করে দিতাম কিছুক্ষন পর আব্বা জিজ্ঞাসা করলে বলতাম কি জানি কে খাইছে?একদিন আব্বা জিজ্ঞাসা করলো তোরা কতগুলো লিচু একঘন্টার মধ্যে খেতে পারবি?আমি আর আমার ছোট ভাই অনেক হিসাব নিকাশ করে বললাম হাজার খানেক। আব্বা পরের দিন দুই হাজার লিচু কিনে নিয়ে আসলেন বলল খাও বাবারা কত খেতে পার।আমি আর আমার ছোট ভাই মহাআনন্দে খাওয়া শুরু করলাম এবং তারপরের দিন থেকে টানা এক সপ্তাহ আমাশয়ে ভুগলাম।

একবার বাসায় আব্বা তরমুজ কিনে নিয়া আসছে তখন আমাদের বাসায় ফ্রিজ ছিলো না। আম্মা দেখে বললো কি ব্যাপার কেটে আনোনি যে আব্বা কয় দোকানদার কইছে চিনির মতো মিষ্টি আর রক্তের মতো লাল তাই সে আর কাটার প্রয়োজন মনে করে নাই।সারাদিন ঠান্ডা পানিতে চুবায় রেখে যখন বিকাল বেলা আম্মা কাটতে গেল তখন দেখলো তরমুজ পুরা সাদা।আম্মা কয় কই গেলা তোমার তরমুজ ওয়ালার কাছ থেকে চিনি আর আলতা নিয়ে আসো।আর আব্বা কয় বুঝলি জীবনে তরমুজ আর মেয়ে মানুষ চেনা বড় কঠিন।

কয়েকদিন ধরে বাসায় ফোন দিলে আম্মা জিজ্ঞাসা করে কোরিয়াতে আম পাওয়া যায়?

আমি কই হ্যাঁ।

খাইছোস?

কই, হুম।

কয় কয়দিন?

আমি কই তিনদিন?

কয় তোদের ক্যাম্পাসে আমগাছ আছে?

আমি কই না

কয় পাইলি কই?

আমি কই সুপারশপ থেকে কিনা খাইছি ইন্দোনেশিয়ান আম।

আম্মা কয় খাইতে কেমন?

আমি কই আমাদের আশ্বিনা আমের মতো স্বাদ।

কয় তাইলে তো টক।

আমি কই তা একটু তাই বলে বছরকার ফল না খেয়ে থাকি কেমনে?

কিন্তু এতটুকু বলতে পারি না তোমার ছেলে এই বছর আম,লিচু,কাঁঠাল চোখেই দেখে নি খাওয়াতো অনেক পরের কথা।

কারন এগুলো বললে দেখা যাবে উনিও ফল খাওয়া ছেড়ে দিবে।

কারন মা তো............

পোস্টটি ৭ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

রাফি's picture


কোরিয়ায় থাকতে ম্যাক্সিমাম ক্যানের ফল খেতাম। তবে ফ্রেশ আম তো পাওয়া যায়। লিচুটা ক্যানেরটাই খেতে হবে।

নো ওরিস...... বিদেশে সব পাওয়া যাবে না, মন খারাপের কিছু নাই।

আমার প্রিয় ফল কাঠাল আর পেয়ারা। কাঠাল এখানে এখনও চোখে দেখি নি, আর পেয়ারার দাম যা তাতে মাঝে মাঝে শখ করে খেতে হয়।

রাসেল আশরাফ's picture


ফ্রেশ আম পাওয়া যায় আমিও শুঞ্ছি কিন্তু মিরাং এর হোমপ্লাসে পাওয়া যায় না।ক্যানের ফল আমিও খাই।

এ নিয়ে মন খারাপের কিছু নাই সেটা আমিও জানি আর আপনে আম্র চাইতে ভালো জানেন যে কোরিয়া তে এর চাইতে হাজার গুন বড় কারন আছে মন খারাপ করার। Sad Sad Sad Sad Sad

মীর's picture


সুন্দর লেখা। আবেগ ছুঁয়ে গেল

রাসেল আশরাফ's picture


ধন্যবাদ

শাপলা's picture


কাঁঠাল সারাজীবনেও খাইনি, বলতে পারবো না ওটার কি স্বাদ। তবে পেয়ারা আমার প্রিয় ফল, খাইনি পাঁচ বছর।
তবে আপনার অবস্থার কন্ডিশন আর আমার অবস্থার কন্ডিশন এক।

বিদেশে যা ভালো খাই, তাই নি্যেই আফসোস হয়। মনে আহারে এটা যদি আমার মা-বাবাকে খাওয়াতে পারতাম! দেশে পয়সা দিয়েও ভালো জিনিষ পাওয়া যায় না। সব আপনার বর্ণিত তরমুজেভ মত।
ওরিড হবেন না, ওরিড হলে তাইলে দুঃখ বাড়বে কিন্তু। Big smile Big smile

রাসেল আশরাফ's picture


ওরিড হবো না ।ওক্কে ওক্কে ওক্কে Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud

সাহাদাত উদরাজী's picture


ভাতিজা রাসেল আশরাফ, 'কাঁঠাল' বানানে 'চন্দ্রবিন্দু' দিতে হবে। নতুবা 'কাঁঠাল' হবে না! হাহাহা।

'কিন্তু আমার আম্মা কাঠালের একনিষ্ঠ ভক্ত।' সালাম আপনার আম্মাকে।

রাসেল আশরাফ's picture


দিয়ে দিছি কাগু।

সালাম আপনার ভাবীর কাছে পাঠায় দিছি।

ভাঙ্গা পেন্সিল's picture


নরম একটু টক স্বাদের কাঁঠাল খাই, অন্যগুলা খাই না। Big smile

১০

রাসেল আশরাফ's picture


আমার নরম শক্ত কোনটাই খেতে ভালো লাগে না। Wink Wink Wink

১১

তানবীরা's picture


আপ্নে নতুন আসছেন? আমাদের মতো এক যুগ গেলে কেউ জিজ্ঞেসও করবে না আর মিথ্যেও বলতে হবে না। Laughing out loud

১২

রাসেল আশরাফ's picture


এক যুগ কবে যে পার হবে??????

আর আপনি না বলে তুমি বললে ভালো হয়।

১৩

শাওন৩৫০৪'s picture


কোরিয়ানরা তো মাঙ্গু ফলডাই চিনেনা, তয় মাঙ্গু জুসটা আসলে জুশ..
তয় তরমুজ নিয়া টেমশম করতে হয়না, না? মান ওনের তরমুজ হৈলে ফাডাইয়া খাওয়া যায়, তাছাড়া ছোটো সাইযের বাঙ্গিও তো পাবেন, সেডি খান, মজাছে, খারাপ না----

১৪

রাসেল আশরাফ's picture


মাঙ্গু জুসটা আসলে জুশ। কইছে তোমারে???? আমার কাছে এর ফ্লেভার আমের মনে হয় না।
তয় তরমুজ খাইতেছি জান ভইরা।আহা রে কি মিষ্টি।
বাংগীডাও খাইতে ভালো।

তয় রাজশাহীর পোলা তো তাই ল্যাংড়া,ক্ষিরসাপাত,গোপালভোগ ফজলি এর জন্য মন কান্দে।

১৫

নুশেরা's picture


বেশ মজা পাচ্ছিলাম, দিলেন তো মনটা খারাপ করে Sad

আপনার আব্বা-আম্মাকে সালাম। দুজনেই দারুণ মানুষ।

১৬

জ্যোতি's picture


আর আব্বা কয় বুঝলি জীবনে তরমুজ আর মেয়ে মানুষ চেনা বড় কঠিন।

কিসের সাথে কিসের তুলনা!!!!!!!!!!!
মন খারাপ কইরেন না। একসময় নিশ্চয়ই সব ঠিক হবে। দেশে আসলে ফল তো খেতেই পারবেন। আবগী লেখা।ভালো লাগলো।

১৭

সাঈদ's picture


তরমুজ !!! উদ্রাজী ভাইয়ের কথা মনে পড়লো ।

১৮

হাসান রায়হান's picture


সুন্দর লেখা ।

১৯

শওকত মাসুম's picture


দারুণ। আরেকটা ভাল লেখা পড়লাম।

২০

মাহবুব সুমন's picture


সেই দিন বাজারে কাঁঠাল দেখলাম, কোথা হতে আনা জানি না। আধা আধি করে কাটা, $ ১১.৯৯/কেজি। দেখে মনে হলো সেই কাঁঠাল দিয়া ফুটবল খেলা যাবে, তারপরো ফাটবে না Cool ২/৩ কোষ চলে , এর চাইতে বেশী না।
পেয়ারার দাম অনেক, হাতে ধরে নাড়াচাড়া করি মাঝে সাজেই, কেনা হয় না।
লিচুর দামও বেজায় অনেক। গনে গনে ১০/১২ টা কেনা হয় লিচুর মৌসুমে, তবে যতবারই কেনা হয়েছে দেশের মতো স্বাদ পাই নাই।
আমের সময়ে আম কেনা হয় সেইভাবে, দাম কোনো ব্যপারনা সে সময়। প্রায়শই ক্রেট ধরে কিনি। আম সবচাইতে প্রিয় ফল।
তরমুজও অনেক ভালো লাগে।
ফল অনেক কেনা হয়, মাজে সাজে এমন ফল কেনা হয় যা জীবনেও দেখিনাই। খাওয়ার পর মনে হয় শালার টাকাটা জলে গেলো Glasses

২১

অতিথি's picture


RUSSEL BHAI,KHUB I TOUCHY LAST PARA.PORE ONEK KOSTO HOCHHE.R APNAR MA JE FOL KHAWA CHERE DITO,TATE KONO SONDEHO I NAI. AMI TAI BOLI PROBASHI JIBON ONEK KOSTER,PORA SES KORE TARATARI CHOLE ASEN.
TOBE NISCOY OI DESHER ONEK FOL PAWA JAY, SE SOB KINTU KHETE VULBENNA.R DESHE BERATE ASBE SUMMER E.ALLAH APNAKE ESOB SOJO KORAR KHOMOTA DIK EI DOA THAKLO.

২২

অতিথি's picture


AMAR EKTA FRIEND GERMAN THAKE.THAKURGAON BARI.TAR BASA THEKE AIR POST ER MADHOME AAM PATHAY.KG HISEBE PAY KORTE HOY.ETA TRY KORA JAY.KI BOLEN?

২৩

নুশেরা's picture


কী খবর পাহারাদারসাব Tongue ? নতুন লেখা পাই না ক্যান?

২৪

রাসেল আশরাফ's picture


জানিনা নুশেরা আপু কি হয়ছে?কিছুই করিনা ইদানিং।ল্যাব ধুমছে ফাকিঁ দেই।অবশ্য একটা কাজ করি সেটা হচ্ছে এবি পাহারা দেয়া। Glasses Glasses Glasses

২৫

শাপলা's picture


জিলাপির নিউজ আমার পাতায় আছে।

২৬

অতিথি's picture


darun

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

রাসেল আশরাফ's picture

নিজের সম্পর্কে

কিছুই জানি না...