ইউজার লগইন

নবাব সিরাজউদ্দৌলা (ভার্সন - ২০০৯)

১ম দৃশ্য

নবাব সিরাজ বসে আছেন সিংহাসনে। তাঁর সামনে চেয়ারে উপবিষ্ট সভাসদ।

সিরাজঃ বাংলা বিহার উড়িষ্যার মহান অধিপতি......

এমন সময় কে যেন বলে উঠলো - কা-আ-ট

সিরাজঃ কে কে ওখানে ? কাট বলে কে ?

জনৈক সভাসদঃ গোস্তাগি মাফ করবেন হুজুর। বাংলা সিনেমার এক আবাল  ডিরেক্টর, আপনার রাজদরবারে "দেবদাস" সিনেমার শুটিং এ এসেছিল। আপনার ডায়লগ শুনে মনে করেছে এখানেও সিনেমার শুটিং হচ্ছে বুঝি !!!

সিরাজঃ খামোশ !!! এত বড় আস্পর্ধা আমার প্রাসাদে শুটিং !!! এই কে আছিস , ওকে ধরে ক্রসফায়ারে দে !!!

মহন লালঃ বেয়াদবি নিবেন না হুজুর। আপনার ক্রসফায়ারে দেবার ক্ষমতা নেই, ঐ ক্ষমতা একমাত্র নির্বাচিত গণতান্ত্রিক সরকার এর।

সিরাজঃ হুম। তাহলে ওকে ক্রসশূলে চড়ানো হোক।

এমন সময় সিরাজের মোবাইল বেঁজে উঠে।

বেগম কল করেছে অন্দরমহল থেকে।

সিরাজঃ বেগম কি মনে করে আপনি আমায় ডাক দিয়েছেন?
ওপাশ থেকেঃ জাঁহাপণা , আপনার সন্ধ্যার নাস্তা তৈরী, আপনি কি তশরিফ দিবেন এখানে।
সিরাজঃ যাথাজ্ঞা বেগম। কি নাস্তা করেছেন আজ ?
ওপাশ থেকেঃ কে এফ সি থেকে ফ্রায়েড চিকেন আনিয়েছি আজ।
সিরাজঃ বাহ বাহ বহুৎ খুব। কি করে জানলেন আমি ফ্রায়েড চিকেন খেতে চেয়েছি ?
ওপাশ থেকেঃ জাঁহাপণা , আমি ফ্রয়েড এর থিওরি পড়েছি যে তাই।
সিরাজঃ আমি আসছি বেগম। আপনি অপেক্ষা করুন।

এই বলে নবাব সিরাজ তার মোবাইল রেখে দেয় মিরপুরি কাতানে তৈরী আলখাল্লায়।

সিরাজঃ রাজকার্য আজকের মত সমাপ্ত
উঁমি চাঁদঃ হুজুর এত ক্ষন বসিয়ে রাখলেন আমাদের ওভার টাইম দিবেন না?
সিরাজঃ সিওর।

সিরাজ বের হয়ে যায় দরবার থেকে ।

২য় দৃশ্য

নবাব সিরাজ বসে আছেন খাবার টেবিলে। তাঁর পাশে বসে আছেন বসে আছেন তাঁর বেগম লুৎফুন্নিসা।

সিরাজঃ আহ চিকেন ফ্রাই খেয়ে মনটা ভরে গেল বেগম। আপনার সাথে দরকারী কথা ছিল বেগম।
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ বলুন জনাব
সিরাজঃ আপনার কাতান শাড়ী গুলো কোনটা পুরান হয়েছে বেগম ?
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ কেন হুজুর?
সিরাজঃ না মানে আমার আলখাল্লা বানাতে হবে তো তাই খুঁজছি।
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ গোস্তাগি মাফ করবেন , এখন আর মিরপুরি কাতান কিনি না হুজুর। ঐটার চল চলে গেছে। "মনে রেখ"আর "শপার্স ওয়ার্ল্ড" থেকে কেনা জর্জেট কাতান শাড়ী সব। ঐ শাড়ী দিয়ে তো আলখাল্লা হবে না হুজুর।
সিরাজঃ তাহলে ???
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ হুজুর আপনি শপার্স ওয়ার্ল্ড এ যান , এই যুগের কাপড় চোপড় কিনুন। এখন ঐ গুলা পুরান ফ্যাশন হয়ে গেছে হুজুর এ আলম।

বেগমের কথা শুনে সিরাজ চিন্তামগ্ন হলেন। কল্পনায় ভাসতে লাগলেন তিনি...

ঘরের টিউব লাইটের আলো আস্তে আস্তে কমে এল ।

৩য় দৃশ্য

"নবাব এ বাংলা , বিহার উড়িষ্যা , মির্জা মুহম্মদ সিরাজ উদ্দৌলা আসিতেছেন... "
নবাব রাজকার্যে প্রবেশ করা মাত্র একজন সিডি চালিয়ে দেয়, সাথে সাথে বাঁজতে থাকে কথাগুলো, সেই সাথে বিউগল এ সুর বেঁজে উঠে, ঢোল বেঁজে উঠে
সবাই নিজ নিজ আসন ছেড়ে দাঁড়িয়ে পড়ে নবাব কে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য।

নবাব সিরাজ প্রবেশ করেন তাঁর কার্য্যালয়ে। সিংহাসনে গিয়ে বসেন।

সিরাজঃ কি ব্যাপার মীর জাফর কে দেখছিনা যে আজ
জগৎ শেঠঃ হুজুরে আলা , উনি একটা ক্লাশ নিচ্ছেন ।
সিরাজঃ ক্লাশ ? কিসের ? কাকে পড়াচ্ছে ?
জগৎ শেঠঃ হুজুর উনি গোলাম আযম , নিজামী, মুজাহিদ, মোস্তাক, সাকাচৌ নামে এবং আরো কয়েক ব্যাক্তি কে কি যেন শিখাচ্ছেন।
সিরাজঃ হুম।
সিরাজ কে খুব চিন্তিত দেখায় এসময়। মুখে হাত দিয়ে চোখ বন্ধ করে তিনি বসে কি যেন চিন্তা করছেন।

সিরাজঃ আমার মন ভালো নেই। এই কে আছিস আজ আলেয়া কে খবর দে। আজ রাতে একটু নাচা গানা হোক , সবাই কি বলেন?
সভাসদ বৃন্দঃ তাই হোক তাই হোক।

নবাব সিরাজ তাই বলে সভা ছেড়ে বেরিয়ে অন্দর মহলে যান।

৪র্থ দৃশ্য

নবাব অন্দর মহলের লিভিং রুমে বসে টিভি তে ক্রিকেট দেখছেন, এমন সময় ঘোষেটি বেগমের প্রবেশ
ঘোষেটি বেগমঃ সিরাজ তুমি খেলা দেখছ ? ওদিকে ইষ্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি তোমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।
সিরাজঃ জ্বি খালাম্মা । তার প্রতিবাদে আমি তাই আজকের খেলায় ওয়েষ্ট ইন্ডিজ কে সাপোর্ট করছি। তা শুনেছি আপনার মহলে নাকি দুই জন মহিলা নিয়মিত আসা যাওয়া করে ইদানিং। কারা তারা খালাম্মা জান ?
ঘোষেটি বেগমঃ ও এই খবর ও রাখো তাহলে বেটা। ওদের কে চিনবে না। ওরা ষড়যন্ত্র তত্ত্ব নিয়ে কাজ করে । একজনের নাম খালেদা আরেক জনের নাম হাসিনা। বড় ভালো মেয়ে দুটো।
সিরাজঃ ও । ঠিক আছে খালাম্মা। দেখে শুনে চলতে হয় তো। তাই।

ঘোষেটি বেগমের প্রস্থান। নবাব নিবিষ্ট মনে খেলা দেখছেন টিভিতে।

বেগম লুৎফুন্নিসা এর প্রবেশ।

বেগম লুৎফুন্নিসাঃ নবাব
সিরাজঃ কিছু বলবেন বেগম ?
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ জ্বি। একটা আবদার ছিল আপনার কাছে নবাব।
সিরাজঃ বলে ফেলুন বেগম
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ শুনলাম বাজারে নাকি নতুন ড্রেস এসেছে - মাসাক্কালি।
সিরাজঃ কি ড্রেস? কি কালি ?
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ মাসাক্কালি। আমি ওই ড্রেস চাই।
সিরাজঃ সর্বনাশ বেগম। আপনি এখন জামা পড়বেন ? ঘরে শুয়ে বসে থেকে থেকে, কোন কাজ কাম না করে আর ভালো ভালো খেয়ে খেয়ে আপনি যে খোদার খাসী হয়েছেন , আপনাকে জামা পড়লে জানেন কেমন দুম্বা লাগবে ?
বেগম লুৎফুন্নিসাঃ হোল্ড ইউর টাং , জনাবে আলা।

বেগম লুৎফুন্নিসা রেগে গিয়ে গজ গজ করতে বের হয়ে যাবেন। নবাব টিভি অফ করে বের হবেন রুম থেকে।

৫ম দৃশ্য

নবাবা ও সভাসদ রা গোল হয়ে বসে আছেন নাচঘরে। মাথার উপরে এসি চলছে নিঃশব্দে।
নবাবের সামনে VAT69 এর বোতল। পাশে গ্লাস, জুশ আর বরফ কুচি।

এমন সময় নুপূরের আওয়াজ তুলে আলেয়ার প্রবেশ।
ঘরে ঢুকে সবাই কে কূর্নিশ করে মাঝে দাঁড়ায়। নবাব গলা থেকে একটি স্বর্নের চেইন খুলে ছুড়ে মারে আলেয়ার দিকে।

সিরাজঃ এই নাও আলেয়া তোমার আজকের পারিশ্রমিক।
আলেয়াঃ ধন্যবাদ জাঁহাপনা।
আলেয়া চেইন টা কে নিয়ে হাতে খুঁটিয়ে দেখে।

আলেয়াঃ জাঁহাপনা, এখানে কত ভরি স্বর্ন আছে ? কত ক্যারটের গোল্ড এখানে ?
সিরাজঃ আলেয়া , তুমি আমাকে অপমান করছো । তুমি নাচ শুরু কর। ওইটা ভেনাস জুয়েলার্সে গিয়ে চেক করে এন, আমি জানিনা ঠিক।

আলেয়া নাচ শুরু করে। আশে পাশে তবলা বাদক , সেতার বাদক চুপ করে বসে আছে।

সিডি প্লেয়ারে গান শুরু করে দেয় আলেয়ার সহকারী।

ঘর ভরে ভেসে আসতে থাকে " কাজরা রে কাজরা রে তেরি কালে কালে নেয়না......"

নবাব আর সভাসদ রা ঢুলু ঢুলু চোখে দেখে নাচত নাচতে এক সময় শরীরে কাপড় খুলে বিকিনি পরে নাচতে শুরু করে... এমন সময় গান চেঞ্জ হয়... নতুন গান আসে... গানের মাঝে মাঝে ও ইয়া ! চেক ইট আউট বেবি বলে উঠে একজন...গান চলতে থাকে

নবাব সিরাজের চোখ বন্ধ হয়ে আসে নেশায়...

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~

সমাপ্ত।

পোস্টটি ৮ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

সাঈদ's picture


এইটাও যথারীতি পুরানো পোষ্ট , এখানে আবার দেয়া হোল।

টুটুল's picture


আরে... আবার পুরানা পোস্ট ঝার্ছেন... আপ্নার ব্যান চাইতে হৈপে

সাঈদ's picture


Cry

সাঁঝবাতির রুপকথা's picture


চেক ইট আউট বেবি!!

সাঈদ's picture


Smile

কাঁকন's picture


Laughing ; এরশাদ নাই কেন?

সাঈদ's picture


এরশাদ বেচারা এম্নিতেই মন খারাপ কইরা আছে , ভাবছিলো পেরসিডেন্ট হবে ... তাই আর ঘাটাইলাম না।

রোহান's picture


এরশাদের আছিলো.... নবাবে ভ্যাট টাইনা ঘুমাইয়া যাওনের পরে আলেয়া আন্ঠিরে এরশাদ নানাই তো নিজের পাজেরো তে কইরা বাড়িত ড্রপ দিয়াইছে...

সাঈদ's picture


খেক খেক !!!!

১০

অদিতি's picture


সাঈদ ভাই, আমাদের এরু কই? তারে কোনভাবে ফিট করাইতে পারলেন না? তারে ছাড়া জমে?

১১

সাঈদ's picture


এরুর এত ফ্যান... জানলে তো ...

১২

~স্বপ্নজয়~'s picture


১৩

সাঈদ's picture


Laughing out loud

১৪

শাওন৩৫০৪'s picture


...আলেয়া কৈলেই আমার আনোয়ার হোসেন অভিনীত সেরাজ দৌলার অনোয়ারা'র কথা চুখে ভাসে, সে হঠাৎ কৈরা কাজরা রে গানডায় নাচতাছে ভাবতেই হেঁচকী উইঠা গেছিলো...Sealed

১৫

রোহান's picture


হাসতে হাসতে শ্যাষ..... আনোয়ারা খালা দরবারের খাম্বার পিছে গিয়া কল্লা বাইর কইরা কাজরা রে বইলা টান দিছে.... হা হা হা হা হা হা 

১৬

কাঁকন's picture


ধুর খালা না এইটা রঙীন দেবদাস অন্জু ঘোষ নাচবো কাজরারে

১৭

সাঈদ's picture


তাইলে দেশে ভুমিকম্প শুরু হইতে পারে , রিখটার স্কেলে ৯ মাত্রার ভুমিকম্প , অঞ্জুর নাচার সময়।

১৮

সাঈদ's picture


আমিও একই চিন্তাইছিলাম লেখার সময়। Smile

১৯

সাঈদ's picture


Laughing out loud আমিও একই চিন্তাইছিলাম লেখার সময়।

২০

শওকত মাসুম's picture


মজা পাইছি।

২১

সাঈদ's picture


Smile

২২

মানুষ's picture


Innocent

২৩

সাঈদ's picture


Smile

২৪

তায়েফ আহমাদ's picture


এইটা একটা কঠিন চিজ্‌ হৈছে!Smile

২৫

সাঈদ's picture


Laughing out loud

২৬

নরাধম's picture


 

 

ব্যাপকস! লাইক্কর্লাম।

২৭

সাঈদ's picture


Smile

২৮

নড়বড়ে's picture


ক্লাসে বইসা পড়লাম, ফিকফিকাইয়া হাসতেছি Smile
মজা পাইছি।

২৯

সাঈদ's picture


Laughing out loud

৩০

ভাস্কর's picture


পুরান লেখা কি নতুন লেখা সেইটা বুঝি নাই...পড়তে মজা পাইলাম...

৩১

সাঈদ's picture


ধন্যবাদ।

৩২

জ্যোতি's picture


৩৩

সাঈদ's picture


Laughing out loud

৩৪

নাহীদ Hossain's picture



এইটা নিয়া তো নাটক বানান যাইতো...

৩৫

সাঈদ's picture


হ পরে আবার কেস কইরা দিত হাসিনা খালেদার নাম শুইনা।

৩৬

টুটুল's picture


জট্টিল Smile

৩৭

সাঈদ's picture


Smile

৩৮

তানবীরা's picture


LaughingLaughingLaughing

৩৯

সাঈদ's picture


Laughing out loud

৪০

নুশেরা's picture


Laughing

আরেকটা বিষয় বোঝা গেলো, সাঈদভাই শাড়ী বিষয়ে অনেক জ্ঞান রাখেন Tongue

৪১

সাঈদ's picture


আপনি দেখি অনেক কিছু খিয়াল করেন Tongue

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

সাঈদ's picture

নিজের সম্পর্কে

আমি হয়তো মানুষ নই, মানুষগুলো অন্যরকম,
হাঁটতে পারে, বসতে পারে, এ-ঘর থেকে ও-ঘরে যায়,
মানুষগুলো অন্যরকম, সাপে কাটলে দৌড়ে পালায়।

আমি হয়তো মানুষ নই, সারাটা দিন দাঁড়িয়ে থাকি,
গাছের মত দাঁড়িয়ে থাকি।
সাপে কাটলে টের পাই না, সিনেমা দেখে গান গাই না,
অনেকদিন বরফমাখা জল খাই না।
কী করে তাও বেঁচে আছি আমার মতো। অবাক লাগে।